স্ত্রীর সঙ্গে চেয়ারম্যানের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও ভাইরাল, অতঃপর...
jugantor
স্ত্রীর সঙ্গে চেয়ারম্যানের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও ভাইরাল, অতঃপর...

  সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি  

২৪ জুন ২০২২, ০০:৩৪:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা চেয়ারম্যান ও তার দ্বিতীয় স্ত্রীর অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও গোপনে ধারণ করেন ছাত্রলীগ নেতাসহ কয়েকজন। পরে সেই ভিডিও ভাইরাল করে দেওয়া হয়।

এই ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতাসহ দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতাররা হলেন- উপজেলা শ্রমিক লীগের সদস্য সচিব শেখ আবুল কালামের ছেলে ও উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক শেখ আফরান আহমেদ আরিফ (১৯) এবং কুট্টাপাড়া এলাকার সুলতান মিয়ার ছেলে তরিকুল ইসলাম আপেল (২৯)।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসাইন বলেন, সম্প্রতি উপজেলা চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুরের একটি আপত্তিকর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে উপজেলা চেয়ারম্যানের ছেলে সাইফুল ইসলাম রাব্বি সরাইল থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে একটি মামলা করেন।
এতে তিনি উল্লেখ্য করেছেন- তার বাবা ২০১৭ সালে পরিবারের সম্মতিতে দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন। সম্প্রতি তার বাবার সঙ্গে সৎমায়ের একান্ত ব্যক্তিগত ভিডিও ধারণ করে তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছে একটি চক্র। মামলা দায়েরের পর কুট্টাপাড়া এলাকা থেকে বুধবার রাতে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়।

ওসি আরও বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যানের দ্বিতীয় বিয়ের কাবিননামা আমাদের দিয়েছেন। গ্রেফতার আসামিরা মোবাইলে অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে সংরক্ষণ, প্রচার ও সরবরাহ করায় পর্নোগ্রাফি আইনের ৮ ধারায় অপরাধ করেছেন। তাদের মোবাইলে এসব আলামত থাকায় তা জব্দ করা হয়েছে। দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

স্ত্রীর সঙ্গে চেয়ারম্যানের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও ভাইরাল, অতঃপর...

 সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি 
২৪ জুন ২০২২, ১২:৩৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা চেয়ারম্যান ও তার দ্বিতীয় স্ত্রীর অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও গোপনে ধারণ করেন ছাত্রলীগ নেতাসহ কয়েকজন। পরে সেই ভিডিও ভাইরাল করে দেওয়া হয়।

এই ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতাসহ দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতাররা হলেন- উপজেলা শ্রমিক লীগের সদস্য সচিব শেখ আবুল কালামের ছেলে ও উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক শেখ আফরান আহমেদ আরিফ (১৯) এবং কুট্টাপাড়া এলাকার সুলতান মিয়ার ছেলে তরিকুল ইসলাম আপেল (২৯)। 

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসাইন বলেন, সম্প্রতি উপজেলা চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুরের একটি আপত্তিকর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে উপজেলা চেয়ারম্যানের ছেলে সাইফুল ইসলাম রাব্বি সরাইল থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে একটি মামলা করেন। 
এতে তিনি উল্লেখ্য করেছেন- তার বাবা ২০১৭ সালে পরিবারের সম্মতিতে দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন। সম্প্রতি তার বাবার সঙ্গে সৎমায়ের একান্ত ব্যক্তিগত ভিডিও ধারণ করে তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছে একটি চক্র। মামলা দায়েরের পর কুট্টাপাড়া এলাকা থেকে বুধবার রাতে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। 

ওসি আরও বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যানের দ্বিতীয় বিয়ের কাবিননামা আমাদের দিয়েছেন। গ্রেফতার আসামিরা মোবাইলে অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে সংরক্ষণ, প্রচার ও সরবরাহ করায় পর্নোগ্রাফি আইনের ৮ ধারায় অপরাধ করেছেন। তাদের মোবাইলে এসব আলামত থাকায় তা জব্দ করা হয়েছে। দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন