ধর্ষণের শিকার তরুণী অন্তঃসত্ত্বা, আসামি গ্রেফতার
jugantor
ধর্ষণের শিকার তরুণী অন্তঃসত্ত্বা, আসামি গ্রেফতার

  কুমিল্লা ব্যুরো   

৩০ জুন ২০২২, ১৩:০৩:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লায় উন্নয়ন সহযোগী তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় এসএমই ফোরামের ব্যবস্থাপনা পরিচালক চাষি মামুনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার গভীর রাতে ঢাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন থানার ওসি সহিদুর রহমান।

ধর্ষণের শিকার তরুণী সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে চাষি মামুনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামুন (৫০) নগরীর ৮নং ওয়ার্ডের ঠাকুরপাড়া এলাকায় অবস্থিত এসএমই ফোরাম নামক একটি নারী উন্নয়ন সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

অভিযোগে জানা যায়, এসএমই ফোরাম নামক নারী উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানটির উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে কর্মরত ছিলেন ভুক্তভোগী ওই তরুণী। গত ২৫ ডিসেম্বর রাত ৮টার দিকে চাষি মামুন তাকে কোকাকোলার সঙ্গে নেশাজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে অচেতন করে ধর্ষণ করেন। এতে তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন।

এরই মাঝে ওই তরুণী অনাগত সন্তানের পিতৃপরিচয় এবং তাকে স্ত্রীর মর্যাদা দিতে চাষি মামুনকে চাপ দিলেও তিনি পাত্তা দেননি। পরে বাধ্য হয়ে বুধবার বিকালে বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন ওই তরুণী।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আলমগীর হোসেন জানান, ধর্ষণের শিকার হয়ে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা তরুণীর দায়ের করা মামলায় আমরা এসএমই ফোরামের ব্যবস্থাপনা পরিচালক চাষি মামুনকে গ্রেফতার করেছি। অভিযান চালিয়ে মামুনকে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

ধর্ষণের শিকার তরুণী অন্তঃসত্ত্বা, আসামি গ্রেফতার

 কুমিল্লা ব্যুরো  
৩০ জুন ২০২২, ০১:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লায় উন্নয়ন সহযোগী তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় এসএমই ফোরামের ব্যবস্থাপনা পরিচালক চাষি মামুনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

বুধবার গভীর রাতে ঢাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন থানার ওসি সহিদুর রহমান। 

ধর্ষণের শিকার তরুণী সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে চাষি মামুনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামুন (৫০) নগরীর ৮নং ওয়ার্ডের ঠাকুরপাড়া এলাকায় অবস্থিত এসএমই ফোরাম নামক একটি নারী উন্নয়ন সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক।  

অভিযোগে জানা যায়, এসএমই ফোরাম নামক নারী উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানটির উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে কর্মরত ছিলেন ভুক্তভোগী ওই তরুণী। গত ২৫ ডিসেম্বর রাত ৮টার দিকে চাষি মামুন তাকে কোকাকোলার সঙ্গে নেশাজাতীয় দ্রব্য পান করিয়ে অচেতন করে ধর্ষণ করেন। এতে তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। 

এরই মাঝে ওই তরুণী অনাগত সন্তানের পিতৃপরিচয় এবং তাকে স্ত্রীর মর্যাদা দিতে চাষি মামুনকে চাপ দিলেও তিনি পাত্তা দেননি। পরে বাধ্য হয়ে বুধবার বিকালে বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন ওই তরুণী।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আলমগীর হোসেন জানান, ধর্ষণের শিকার হয়ে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা তরুণীর দায়ের করা মামলায় আমরা এসএমই ফোরামের ব্যবস্থাপনা পরিচালক চাষি মামুনকে গ্রেফতার করেছি। অভিযান চালিয়ে মামুনকে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন