বৃষ্টির ছোঁয়া পেয়ে রোপা আমনের উৎসব
jugantor
বৃষ্টির ছোঁয়া পেয়ে রোপা আমনের উৎসব

  মীরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

০৫ আগস্ট ২০২২, ১৭:৩৯:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

অবশেষে বৃষ্টির ছোঁয়া পেয়ে মাঠে রোপা আমনের উৎসব লেগেছে। ভালোভাবে এখনো বৃষ্টিপাত না হলেও সামান্য বৃষ্টিপাতেই জমিতে পানি জমা হতেই কৃষকরা নেমে পড়েছেন মাঠে। ইতোমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের মাঠজুড়ে কৃষকদের ব্যস্ততা লক্ষণীয়।

শ্রাবণের শুরু থেকেই যেখানে আমন রোপণ শুরু হয় সেখানে শ্রাবণ শেষ হবার পথে। তাই তর সইছে না কারো যেন। বিশেষ করে যাদের রোপা আমনের বীজতলায় চারা বড় হয়ে গেছে তারা দ্রুতই শেষ করতে চাইছে চারা রোপণ।

বৃহস্পতিবার পড়ন্ত বিকালে ও তালবাড়িয়া গ্রামের কৃষক রফিকুল ইসলাম (৫৮) রোপা আমনের জমি তৈরিতে ব্যস্ততার সময়ে গণমাধ্যমকর্মী দেখে বলেন, ভাই আল্লাহর কাছে বৃষ্টি চাইছিলাম শুধু। আজও ভোরে মোনাজাত করে দোয়া করেছি। এখন যা বৃষ্টি হয়েছে তাতে জমিতে যা পানি হয়েছে চারাগুলো রোপণ করে পাশের জমি থেকে ও পানি দিয়ে নিব। অনেক জমিতে রোপা হয়েও গেছে।

আমবাড়িয়া গ্রামের কৃষক জাহাঙ্গীর আলম ( ৪৫) বলেন, এবার যেমন বিদ্যুতে গোলযোগ করছে তেমনি করছে আকাশ। তবুও আশা ভরসা নিয়ে কৃষকরা মাঠে নেমেছে। বাকিটা আল্লাহ জানেন।

গড়িয়াইশ গ্রামের কৃষক কৃষ্ণ দাস (৪৫) বলেন, ঠাকুরের কৃপায় মাঠে চারা রোপণ শুরু করেছি, তবে আরও বৃষ্টি না হলে আবার কষ্ট করতে হবে।

দুর্গাপুর গ্রামের কৃষক আমির হোসেন (৪০) বলেন, গত দুবছর ভালো ফলন আর ভালো দামে কৃষকরা বেশ খুশি এবার ভাগ্যে কি আছে বোঝা যাচ্ছে না। তবে কদিন একটু বৃষ্টিপাত হলেই সবার মনে-প্রাণে স্বপ্ন জেগে উঠবে অবশ্যই। সব মিলিয়ে আশা নিরাশা আর স্বপ্ন সব নিয়েই কৃষকরা এখন রোপা আমন নিয়ে মাঠে ব্যস্ত।

মীরসরাই উপজেলা কৃষি সুপারভাইজার কাজী নুরুল আলম বলেন, এবার আমনের লক্ষ্যমাত্রা ২১ হাজার ৬শ হেক্টর। উপজেলার ৪০ হাজার কৃষক এবার আমন আবাদের প্রস্তুতি নিয়েছে। বীজতলাগুলো থেকে চারা নিয়ে কৃষকরা আমন রোপণে ব্যস্ত এখন। আশা করা যাচ্ছে সব প্রতিকূলতা কাটিয়ে রোপা আমানের উৎসবমুখর হয়েই থাকবে প্রান্তর।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রঘুনাথ নাহা বলেন, প্রাকৃতিক প্রতিকূলতা কাটাতে খরিপ-১/২০১৮-১৯ মৌসুমে উফশী আউশ ও নেরিকা আউশ উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে অনেক আউশ চাষিকে বিনামূল্যে বীজ, রাসায়নিক সার ও আগাছা দমন সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। এখন আশা করছি লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা সম্ভব।

বৃষ্টির ছোঁয়া পেয়ে রোপা আমনের উৎসব

 মীরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
০৫ আগস্ট ২০২২, ০৫:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

অবশেষে বৃষ্টির ছোঁয়া পেয়ে মাঠে রোপা আমনের উৎসব লেগেছে। ভালোভাবে এখনো বৃষ্টিপাত না হলেও সামান্য বৃষ্টিপাতেই জমিতে পানি জমা হতেই কৃষকরা নেমে পড়েছেন মাঠে। ইতোমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের মাঠজুড়ে কৃষকদের ব্যস্ততা লক্ষণীয়।

শ্রাবণের শুরু থেকেই যেখানে আমন রোপণ শুরু হয় সেখানে শ্রাবণ শেষ হবার পথে। তাই তর সইছে না কারো যেন। বিশেষ করে যাদের রোপা আমনের বীজতলায় চারা বড় হয়ে গেছে তারা দ্রুতই শেষ করতে চাইছে চারা রোপণ।

বৃহস্পতিবার পড়ন্ত বিকালে ও তালবাড়িয়া গ্রামের কৃষক রফিকুল ইসলাম (৫৮) রোপা আমনের জমি তৈরিতে ব্যস্ততার সময়ে গণমাধ্যমকর্মী দেখে বলেন, ভাই আল্লাহর কাছে বৃষ্টি চাইছিলাম শুধু। আজও ভোরে মোনাজাত করে দোয়া করেছি। এখন যা বৃষ্টি হয়েছে তাতে জমিতে যা পানি হয়েছে  চারাগুলো রোপণ করে পাশের জমি থেকে ও পানি দিয়ে নিব। অনেক জমিতে রোপা হয়েও গেছে।

আমবাড়িয়া গ্রামের কৃষক জাহাঙ্গীর আলম ( ৪৫) বলেন, এবার যেমন বিদ্যুতে গোলযোগ করছে তেমনি করছে আকাশ। তবুও আশা ভরসা নিয়ে কৃষকরা মাঠে নেমেছে। বাকিটা আল্লাহ জানেন।

গড়িয়াইশ গ্রামের কৃষক কৃষ্ণ দাস (৪৫) বলেন, ঠাকুরের কৃপায় মাঠে চারা রোপণ শুরু করেছি, তবে আরও বৃষ্টি না হলে আবার কষ্ট করতে হবে।

দুর্গাপুর গ্রামের কৃষক আমির হোসেন (৪০) বলেন, গত দুবছর ভালো ফলন আর ভালো দামে কৃষকরা বেশ খুশি এবার ভাগ্যে কি আছে বোঝা যাচ্ছে না। তবে কদিন একটু বৃষ্টিপাত হলেই সবার মনে-প্রাণে স্বপ্ন জেগে উঠবে অবশ্যই। সব মিলিয়ে আশা নিরাশা আর স্বপ্ন সব নিয়েই কৃষকরা এখন রোপা আমন নিয়ে মাঠে ব্যস্ত।

মীরসরাই উপজেলা কৃষি সুপারভাইজার কাজী নুরুল আলম বলেন, এবার আমনের লক্ষ্যমাত্রা ২১ হাজার ৬শ হেক্টর। উপজেলার ৪০ হাজার কৃষক এবার আমন আবাদের প্রস্তুতি নিয়েছে। বীজতলাগুলো থেকে চারা নিয়ে কৃষকরা আমন রোপণে ব্যস্ত এখন। আশা করা যাচ্ছে সব প্রতিকূলতা কাটিয়ে রোপা আমানের উৎসবমুখর হয়েই থাকবে প্রান্তর।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রঘুনাথ নাহা বলেন, প্রাকৃতিক প্রতিকূলতা কাটাতে খরিপ-১/২০১৮-১৯ মৌসুমে উফশী আউশ ও নেরিকা আউশ উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে অনেক আউশ চাষিকে বিনামূল্যে বীজ, রাসায়নিক সার ও আগাছা দমন সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। এখন আশা করছি লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা সম্ভব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন