তেলের দাম বৃদ্ধির খবরে যশোরের পাম্পে ভিড় লেগে যায়
jugantor
তেলের দাম বৃদ্ধির খবরে যশোরের পাম্পে ভিড় লেগে যায়

  যশোর ব্যুরো  

০৬ আগস্ট ২০২২, ০১:২৮:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির খবরে যশোরে তেল পাম্পগুলোর সামনে মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকারের ভিড় লেগে যায়। শুক্রবার রাতে সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়।

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির খবর প্রকাশের পরপরই যশোরের পেট্রল পাম্পগুলোতে ভিড় করতে শুরু করেন মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকারসহ তেলচালিত ছোট যানবাহনের চালকেরা। তবে বেশির ভাগ পাম্পই বন্ধ দেখা গেছে। বন্ধ পাম্পেই ক্ষোভ ঝাড়তে দেখা গেছে তেল নিতে আসা বিভিন্ন যানবাহনের চালকদের।

সরেজমিনে যশোরের ৫টি ফিলিং স্টেশন ঘুরে দেখা গেছে আর এন রোডের যান্ত্রিক পেট্রলিয়াম সার্ভিস, গাড়ি খানা এলাকায় তোফাজ্জেল হোসেন এন্টারপ্রাইজ তেলের দাম বৃদ্ধিতে পাম্প বন্ধ ছিল। বন্ধ পাম্পের সামনে অর্ধশত যানবাহন নিয়ে চালকরা বিক্ষোভ করে।

মনিহার সিনেমা হল এলাকায় মনির ফিলিং স্টেশন, যশোর মাগুরা সড়কের রজনীগন্ধা ফিলিং স্টেশন খোলা থাকলেও শত শত মানুষ মোটরসাইকেল এবং প্রাইভেটগাড়ি নিয়ে তেল নিতে অপেক্ষা করে।

রাত ১১টার দিকে মনির ফিলিং স্টেশনে তেল নিতে আসা কলেজ ছাত্র সাব্বির হোসেন জানান, হঠাৎ করেই সরকার তেলের দাম বাড়াল। কি আর করা তেল নিতে আসলাম। একটু পরেই তো পেট্রল ১৩৫ টাকা হয়ে যাবে। যে সিরিয়াল মনে হয় ১২টার আগে পুরনো দামে নিতে পারবো না। নতুন দামেই নিতে হবে।

নজরুল ইসলাম নামে এক ওষুধ প্রতিনিধি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, কি অবস্থা! নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের সব দাম বৃদ্ধি। এর মধ্যে জালানি তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। কোম্পানির চাকরি করি, দিনে দুই আড়াই লিটার তেল লাগে। এখন তেলের দাম বৃদ্ধিতে বেতনে টান পড়বে।

এই ফিলিং স্টেশনের কর্মী সালাম হোসেন বলেন, টেলিভিশনে ডিজেল পেট্রলের দাম বাড়ার খবরে ১১টার পর থেকে যানবাহনের চাপ বেড়ে যায়। এতোটাই চাপ বাড়ে; পাম্পের মেশিন গরম হয়ে যায়। দাঁড়ালে মানুষ গালাগালি দেয়। আমাদের মালিক তো একটু ভালো, শহরের অনেক পাম্প বন্ধ করে দিয়েছে কাল থেকে বেশি দামে তেল বিক্রি করবে বলে।

আর এন রোডের যান্ত্রিক পেট্রলিয়াম সার্ভিস ও গাড়ি খানা এলাকায় তোফাজ্জেল হোসেন এন্টারপ্রাইজ দুটিই ফিলিং স্টেশন বন্ধ পাওয়া যায়। সাইনবোর্ডে থাকা নাম্বারগুলোতে যোগাযোগ করা হলে বন্ধ পাওয়া যায়।

শুক্রবার রাতে সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। রাত ১২টা থেকে নতুন দাম কার্যকর হবে বলেও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয় ডিজেল ও কেরোসিনে লিটারপ্রতি ৩৪ টাকা বাড়িয়ে নতুন দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১১৪ টাকা। অকটেনে ৪৬ টাকা বেড়ে ১৩৫ টাকা ও পেট্রল লিটারে ৪৬ টাকা বেড়ে করা হয়েছে ১৩০ টাকা।

তেলের দাম বৃদ্ধির খবরে যশোরের পাম্পে ভিড় লেগে যায়

 যশোর ব্যুরো 
০৬ আগস্ট ২০২২, ০১:২৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির খবরে যশোরে তেল পাম্পগুলোর সামনে মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকারের ভিড় লেগে যায়।  শুক্রবার রাতে সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়।

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির খবর প্রকাশের পরপরই যশোরের পেট্রল পাম্পগুলোতে ভিড় করতে শুরু করেন মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকারসহ তেলচালিত ছোট যানবাহনের চালকেরা। তবে বেশির ভাগ পাম্পই বন্ধ দেখা গেছে। বন্ধ পাম্পেই ক্ষোভ ঝাড়তে দেখা গেছে তেল নিতে আসা বিভিন্ন যানবাহনের চালকদের।

সরেজমিনে যশোরের ৫টি ফিলিং স্টেশন ঘুরে দেখা গেছে আর এন রোডের যান্ত্রিক পেট্রলিয়াম সার্ভিস, গাড়ি খানা এলাকায় তোফাজ্জেল হোসেন এন্টারপ্রাইজ তেলের দাম বৃদ্ধিতে পাম্প বন্ধ ছিল। বন্ধ পাম্পের সামনে অর্ধশত যানবাহন নিয়ে চালকরা বিক্ষোভ করে।

মনিহার সিনেমা হল এলাকায় মনির ফিলিং স্টেশন, যশোর মাগুরা সড়কের রজনীগন্ধা ফিলিং স্টেশন খোলা থাকলেও শত শত মানুষ মোটরসাইকেল এবং প্রাইভেটগাড়ি নিয়ে তেল নিতে অপেক্ষা করে। 

রাত ১১টার দিকে মনির ফিলিং স্টেশনে তেল নিতে আসা কলেজ ছাত্র সাব্বির হোসেন জানান, হঠাৎ করেই সরকার তেলের দাম বাড়াল। কি আর করা তেল নিতে আসলাম। একটু পরেই তো পেট্রল ১৩৫ টাকা হয়ে যাবে। যে সিরিয়াল মনে হয় ১২টার আগে পুরনো দামে নিতে পারবো না। নতুন দামেই নিতে হবে।

নজরুল ইসলাম নামে এক ওষুধ প্রতিনিধি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, কি অবস্থা! নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের সব দাম বৃদ্ধি। এর মধ্যে জালানি তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। কোম্পানির চাকরি করি, দিনে দুই আড়াই লিটার তেল লাগে। এখন তেলের দাম বৃদ্ধিতে বেতনে টান পড়বে।

এই ফিলিং স্টেশনের কর্মী সালাম হোসেন বলেন, টেলিভিশনে ডিজেল পেট্রলের দাম বাড়ার খবরে ১১টার পর থেকে যানবাহনের চাপ বেড়ে যায়। এতোটাই চাপ বাড়ে; পাম্পের মেশিন গরম হয়ে যায়। দাঁড়ালে মানুষ গালাগালি দেয়। আমাদের মালিক তো একটু ভালো, শহরের অনেক পাম্প বন্ধ করে দিয়েছে কাল থেকে বেশি দামে তেল বিক্রি করবে বলে।

আর এন রোডের যান্ত্রিক পেট্রলিয়াম সার্ভিস ও গাড়ি খানা এলাকায় তোফাজ্জেল হোসেন এন্টারপ্রাইজ দুটিই ফিলিং স্টেশন বন্ধ পাওয়া যায়। সাইনবোর্ডে থাকা নাম্বারগুলোতে যোগাযোগ করা হলে বন্ধ পাওয়া যায়।

শুক্রবার রাতে সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। রাত ১২টা থেকে নতুন দাম কার্যকর হবে বলেও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয় ডিজেল ও কেরোসিনে লিটারপ্রতি ৩৪ টাকা বাড়িয়ে নতুন দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১১৪ টাকা। অকটেনে ৪৬ টাকা বেড়ে ১৩৫ টাকা ও পেট্রল লিটারে ৪৬ টাকা বেড়ে করা হয়েছে ১৩০ টাকা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন