প্রবাসীর চার মাসের মেয়ের রহস্যজনক মৃত্যু
jugantor
প্রবাসীর চার মাসের মেয়ের রহস্যজনক মৃত্যু

  হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) প্রতিনিধি  

০৬ আগস্ট ২০২২, ১৫:৫৯:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে প্রবাসীর শাহরিন নামে (চার মাস) এক শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার ভোররাতে সদর ইউনিয়নের বাড্ডা মিজি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে সকালে নিহত শিশু শাহরিনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর মর্গে পাঠায় পুলিশ। শিশুটি ওই বাড়ির প্রবাসী ফারুক হোসেন মিয়াজির একমাত্র মেয়ে।

সংশ্লিষ্টরা জানায়, শনিবার সকালে মায়ের হাতে শিশু খুন হয়েছে- এমন খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি জানতে পেরে হাজীগঞ্জ থানার এসআই মো. নাজিম উদ্দীন বাড়িতে যায়।

এ সময় তিনি নিহত শিশুর মা ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং শিশুর লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে থানা হেফাজতে নিয়ে আসে।

শিশুটির মা মুনছুরা বেগম যুগান্তরকে বলেন, অন্যদিনের মতো শিশুটিকে নিয়ে ঘুমিয়েছিলাম। রাতে কয়েকবার স্তন পান খায়। কিন্তু রাত তিনটার পর শিশুটির কোনো সাড়া-শব্দ না পেয়ে সবাইকে খবর দেই। এরপর শিশুটি মারা গেছে বলে সবাই বুঝতে পারে।

এদিকে শিশু শাহরিনের মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে তার প্রবাসী বাবা ও দাদার পরিবারের সদস্যরা রহস্যজনক বলে মনে করেন।

হাজীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ জোবাইর সৈয়দ যুগান্তরকে বলেন, নিহত শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হবে।

প্রবাসীর চার মাসের মেয়ের রহস্যজনক মৃত্যু

 হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) প্রতিনিধি 
০৬ আগস্ট ২০২২, ০৩:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে প্রবাসীর শাহরিন নামে (চার মাস) এক শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শনিবার ভোররাতে সদর ইউনিয়নের বাড্ডা মিজি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে সকালে নিহত শিশু শাহরিনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর মর্গে পাঠায় পুলিশ। শিশুটি ওই বাড়ির প্রবাসী ফারুক হোসেন মিয়াজির একমাত্র মেয়ে।

সংশ্লিষ্টরা জানায়, শনিবার সকালে মায়ের হাতে শিশু খুন হয়েছে- এমন খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি জানতে পেরে হাজীগঞ্জ থানার এসআই মো. নাজিম উদ্দীন বাড়িতে যায়।

এ সময় তিনি নিহত শিশুর মা ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং শিশুর লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে থানা হেফাজতে নিয়ে আসে।

শিশুটির মা মুনছুরা বেগম যুগান্তরকে বলেন, অন্যদিনের মতো শিশুটিকে নিয়ে ঘুমিয়েছিলাম। রাতে কয়েকবার স্তন পান খায়। কিন্তু রাত তিনটার পর শিশুটির কোনো সাড়া-শব্দ না পেয়ে সবাইকে খবর দেই। এরপর শিশুটি মারা গেছে বলে সবাই বুঝতে পারে।

এদিকে শিশু শাহরিনের মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে তার প্রবাসী বাবা ও দাদার পরিবারের সদস্যরা রহস্যজনক বলে মনে করেন। 

হাজীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ জোবাইর সৈয়দ যুগান্তরকে বলেন, নিহত শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন