জেলের জালে ১৮ কেজির বাঘাইড়, দাম ২১ হাজার টাকা
jugantor
জেলের জালে ১৮ কেজির বাঘাইড়, দাম ২১ হাজার টাকা

  গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি  

০৬ আগস্ট ২০২২, ২১:২৩:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় পদ্মা নদীতে জেলের জালে ১৮ কেজি ওজনের একটি বাঘাইড় মাছ ধরা পড়েছে।

শনিবার সকালে দৌলতদিয়া ৭ নম্বর ফেরিঘাট এলাকার অদূরে পদ্মা-যমুনা নদীর মোহনায় মানিকগঞ্জের জাফরগঞ্জ এলাকার জেলে মদন হালদার ও তার দল জাল ফেললে মাছটি ধরা পড়ে।

স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী মো. শাহজাহান শেখ মাছটি ১ হাজার ৫০ টাকা কেজি দরে মোট ১৮ হাজার ৯শ টাকায় কিনে নেন। পরে মাছটি তিনি ১ হাজার ২শ টাকা কেজি দরে ২১ হাজার ৬শ টাকায় ঢাকার এক ব্যাবসায়ীর কাছে বিক্রি করেন।

মাছটি সকাল ১০টার দিকে বিক্রির জন্য দৌলতদিয়া মাছ বাজারের আড়তদার দুলাল চালাকের ঘরে আনা হয়। সেখানে প্রকাশ্য নিলামের মাধ্যমে ব্যবসায়ী মো. শাহজাহান শেখ কিনে নেন।

মাছ ব্যবসায়ী শাহজাহান শেখ বলেন, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে ঢাকার এক ব্যবসায়ীর কাছে মাছটি ১ হাজার ২শ টাকা কেজি দরে মোট ২১ হাজার ৬শ টাকায় বিক্রি করা হয়।

গোয়ালন্দ উপজেলার সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. রেজাউল শরিফ বলেন, বছরে নির্দিষ্ট সময়ে ইলিশ মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার কারণে এই মাছগুলো বড় হওয়ার সুযোগ পায়। এছাড়া এখন নদীতে পানি বাড়ার কারণে এসব বড় বড় মাছ পাওয়া যাচ্ছে।

জেলের জালে ১৮ কেজির বাঘাইড়, দাম ২১ হাজার টাকা

 গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি 
০৬ আগস্ট ২০২২, ০৯:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় পদ্মা নদীতে জেলের জালে ১৮ কেজি ওজনের একটি বাঘাইড় মাছ ধরা পড়েছে।  

শনিবার সকালে দৌলতদিয়া ৭ নম্বর ফেরিঘাট এলাকার অদূরে পদ্মা-যমুনা নদীর মোহনায় মানিকগঞ্জের জাফরগঞ্জ এলাকার জেলে মদন হালদার ও তার দল জাল ফেললে মাছটি ধরা পড়ে। 

স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী মো. শাহজাহান শেখ মাছটি ১ হাজার ৫০ টাকা কেজি দরে মোট ১৮ হাজার ৯শ টাকায় কিনে নেন। পরে মাছটি তিনি ১ হাজার ২শ টাকা কেজি দরে ২১ হাজার ৬শ টাকায় ঢাকার এক ব্যাবসায়ীর কাছে বিক্রি করেন। 

মাছটি সকাল ১০টার দিকে বিক্রির জন্য দৌলতদিয়া মাছ বাজারের আড়তদার দুলাল চালাকের ঘরে আনা হয়। সেখানে প্রকাশ্য নিলামের মাধ্যমে ব্যবসায়ী মো. শাহজাহান শেখ কিনে নেন।

মাছ ব্যবসায়ী শাহজাহান শেখ বলেন, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করে ঢাকার এক ব্যবসায়ীর কাছে মাছটি ১ হাজার ২শ টাকা কেজি দরে মোট ২১ হাজার ৬শ টাকায় বিক্রি করা হয়। 

গোয়ালন্দ উপজেলার সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. রেজাউল শরিফ বলেন, বছরে নির্দিষ্ট সময়ে ইলিশ মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার কারণে এই মাছগুলো বড় হওয়ার সুযোগ পায়। এছাড়া এখন নদীতে পানি বাড়ার কারণে এসব বড় বড় মাছ পাওয়া যাচ্ছে। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন