লঞ্চের সঙ্গে সংঘর্ষে ডুবে যাওয়া বাল্কহেড শ্রমিকের লাশ উদ্ধার
jugantor
লঞ্চের সঙ্গে সংঘর্ষে ডুবে যাওয়া বাল্কহেড শ্রমিকের লাশ উদ্ধার

  বরিশাল ব্যুরো  

০৯ আগস্ট ২০২২, ১৭:০৮:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের বানারীপাড়ায় সন্ধ্যা নদীতে লঞ্চের সঙ্গে সংঘর্ষে বাল্কহেড ডুবিতে নিখোঁজ দুইজনের মধ্যে কালাম নামে এক শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) সকালে উপজেলার সন্ধ্যা নদীর খেজুরবাড়ি পয়েন্ট থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাল্কহেডের মালিক হাবুল কাজী।

তিনি জানান, মৃত কালাম (৫৫) পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ উপজেলার নান্দুহার এলাকার বাসিন্দা। অপরদিকে এখনো নিখোঁজ থাকা শ্রমিক মিলনের সন্ধানে নদীতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এই বাল্কহেডের মালিক।

উল্লেখ্য প্রায় ৫শ যাত্রী নিয়ে পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া থেকে ঢাকা যাওয়ায় পথে উজিরপুর উপজেলাধীন মীরের হাট সংলগ্ন সন্ধ্যা নদীতে এমভি মর্নিং সান-৯ লঞ্চের সঙ্গে একটি বাল্কহেডের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে বাল্কহেডটি ডুবে গিয়ে এর দুই শ্রমিক নিখোঁজ হয় এবং লঞ্চের তলা ফেটে ভেতরে পানি প্রবেশ করতে থাকে। পরবর্তীতে লঞ্চটিকে উজিরপুরের বড়াকোঠা ইউনিয়নের চৌধুরীর হাট লঞ্চঘাটে নোঙ্গর করে।

এ সময় আতঙ্কিত হয়ে বেশিরভাগ যাত্রী লঞ্চ থেকে নেমে গেলেও কিছু যাত্রী লঞ্চে থেকে যায়। পরবর্তীতে লঞ্চটির তলায় ফেটে যাওয়া অংশ মেরামত করে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে উজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারিহা তানজিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে রাতেই তিনিসহ, স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স ও বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তারা উপস্থিত হন। লঞ্চের যে অংশ ফেটে যায়, সেখানে ঝালাই করা হয়। পরে রাত সোয়া ৩টার দিকে লঞ্চটি নিরাপদে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। তখন লঞ্চে শতাধিক যাত্রী ছিল বলে জানান তিনি।

এদিকে এ ঘটনায় এখনো কোনো পক্ষ মামলা করেননি বলে জানিয়েছেন বানারীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম মাসুদ আলম চৌধুরী। তিনি বলেন, এ ঘটনায় বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

লঞ্চের সঙ্গে সংঘর্ষে ডুবে যাওয়া বাল্কহেড শ্রমিকের লাশ উদ্ধার

 বরিশাল ব্যুরো 
০৯ আগস্ট ২০২২, ০৫:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের বানারীপাড়ায় সন্ধ্যা নদীতে লঞ্চের সঙ্গে সংঘর্ষে বাল্কহেড ডুবিতে নিখোঁজ দুইজনের মধ্যে কালাম নামে এক শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) সকালে উপজেলার সন্ধ্যা নদীর খেজুরবাড়ি পয়েন্ট থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাল্কহেডের মালিক হাবুল কাজী।

তিনি জানান, মৃত কালাম (৫৫) পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ উপজেলার নান্দুহার এলাকার বাসিন্দা। অপরদিকে এখনো নিখোঁজ থাকা শ্রমিক মিলনের সন্ধানে নদীতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এই বাল্কহেডের মালিক।

উল্লেখ্য প্রায় ৫শ যাত্রী নিয়ে পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া থেকে ঢাকা যাওয়ায় পথে উজিরপুর উপজেলাধীন মীরের হাট সংলগ্ন সন্ধ্যা নদীতে এমভি মর্নিং সান-৯ লঞ্চের সঙ্গে একটি বাল্কহেডের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে বাল্কহেডটি ডুবে গিয়ে এর দুই শ্রমিক নিখোঁজ হয় এবং লঞ্চের তলা ফেটে ভেতরে পানি প্রবেশ করতে থাকে। পরবর্তীতে লঞ্চটিকে উজিরপুরের বড়াকোঠা ইউনিয়নের চৌধুরীর হাট লঞ্চঘাটে নোঙ্গর করে।

এ সময় আতঙ্কিত হয়ে বেশিরভাগ যাত্রী লঞ্চ থেকে নেমে গেলেও কিছু যাত্রী লঞ্চে থেকে যায়। পরবর্তীতে লঞ্চটির তলায় ফেটে যাওয়া অংশ মেরামত করে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে উজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারিহা তানজিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে রাতেই তিনিসহ, স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স ও বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তারা উপস্থিত হন। লঞ্চের যে অংশ ফেটে যায়, সেখানে ঝালাই করা হয়। পরে রাত সোয়া ৩টার দিকে লঞ্চটি নিরাপদে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। তখন লঞ্চে শতাধিক যাত্রী ছিল বলে জানান তিনি।

এদিকে এ ঘটনায় এখনো কোনো পক্ষ মামলা করেননি বলে জানিয়েছেন বানারীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম মাসুদ আলম চৌধুরী। তিনি বলেন, এ ঘটনায় বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন