আশুলিয়ায় ইউপি সদস্যের মুক্তি দাবিতে মানববন্ধন
jugantor
আশুলিয়ায় ইউপি সদস্যের মুক্তি দাবিতে মানববন্ধন

  আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি  

১২ আগস্ট ২০২২, ২১:৩৭:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

মানববন্ধন

ঢাকার সাভার উপজেলার আশুলিয়ার পাথালিয়া ইউপির ৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার সফিউল আলম সোহাগের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছেন এলাকাবাসী।

শুক্রবার জুমার নামাজের পর সাভার স্মৃতিসৌধের সামনের ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক এ কর্মসূচি পালিত হয়।

মানববন্ধনে সফিউল আলম সোহাগের ভাই বলেন, সোহাগ মেম্বার একজন মাদকবিরোধী আন্দোলনের নেতা। তাই মাদক ব্যবসায়ী বকুল আক্তার তার বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগে তাকে আসামি করেছে।

তিনি বলেন, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মাদক কারবারি বকুল আক্তার এলাকার তিনজন নিরীহ ছেলেকে তার বাড়িতে আটকে রেখে বেদম মারধর করে। খবর পেয়ে আত্মীয় ও বন্ধুরা তাদের উদ্ধার করতে ওই বাড়িতে হামলা করেন। সোহাগ মেম্বার ঘটনার মীমাংসার জন্য ওই বাড়িতে যান। ঘটনাটি মীমাংসা করতে না পেরে মাদক কারবারির হাতে আহতদের নিয়ে থানায় যান তিনি। মাদক কারবারি বকুল আক্তার বিষয়টি জানতে পেরে আশুলিয়া থানায় সোহাগ মেম্বারসহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে একটি অভিযোগ করেন। পুলিশ অভিযোগ পেয়ে সোহাগ মেম্বারসহ আটজনকে থানা থেকে আটক করে এবং পরের দিন দুপুরে মামলা রুজু করে আদালতে পাঠায়।

সোহাগ মেম্বারের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করায় এলাকাবাসী মাদক কারবারি বকুলের শাস্তি ও মেম্বারের মুক্তির দাবিতে এ মানববন্ধন করেছেন বলে জানান সফিউল আলম।

আশুলিয়ায় ইউপি সদস্যের মুক্তি দাবিতে মানববন্ধন

 আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি 
১২ আগস্ট ২০২২, ০৯:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মানববন্ধন
ছবি-যুগান্তর

ঢাকার সাভার উপজেলার আশুলিয়ার পাথালিয়া ইউপির ৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার সফিউল আলম সোহাগের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছেন এলাকাবাসী।

শুক্রবার জুমার নামাজের পর সাভার স্মৃতিসৌধের সামনের ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক এ কর্মসূচি পালিত হয়। 

মানববন্ধনে সফিউল আলম সোহাগের ভাই বলেন, সোহাগ মেম্বার একজন মাদকবিরোধী আন্দোলনের নেতা। তাই মাদক ব্যবসায়ী বকুল আক্তার তার বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগে তাকে আসামি করেছে।

তিনি বলেন, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মাদক কারবারি বকুল আক্তার এলাকার তিনজন নিরীহ ছেলেকে তার বাড়িতে আটকে রেখে বেদম মারধর করে। খবর পেয়ে আত্মীয় ও বন্ধুরা তাদের উদ্ধার করতে ওই বাড়িতে হামলা করেন। সোহাগ মেম্বার ঘটনার মীমাংসার জন্য ওই বাড়িতে যান। ঘটনাটি মীমাংসা করতে না পেরে মাদক কারবারির হাতে আহতদের নিয়ে থানায় যান তিনি। মাদক কারবারি বকুল আক্তার বিষয়টি জানতে পেরে আশুলিয়া থানায় সোহাগ মেম্বারসহ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে একটি অভিযোগ করেন। পুলিশ অভিযোগ পেয়ে সোহাগ মেম্বারসহ আটজনকে থানা থেকে আটক করে এবং পরের দিন দুপুরে মামলা রুজু করে আদালতে পাঠায়। 

সোহাগ মেম্বারের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করায় এলাকাবাসী মাদক কারবারি বকুলের শাস্তি ও মেম্বারের মুক্তির দাবিতে এ মানববন্ধন করেছেন বলে জানান সফিউল আলম।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন