অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ
jugantor
অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

  মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি  

১২ আগস্ট ২০২২, ২১:৪৯:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রতীকী ছবি

নওগাঁর মহাদেবপুরে পঞ্চম শ্রেণির (১২) এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার অফিস সহকারী মমেনুল হক ওরফে মমোর (৫০) বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে থানায় মামলাটি করেন ভুক্তভোগী কিশোরীর মা।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের মো. আব্দুল খালেকের ছেলে মমেনুল হক ওরফে মমো বিভিন্ন সময় ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতেন। ২ আগস্ট সকালে ওই ছাত্রী মাদ্রাসার বারান্দায় দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময় তার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন মমেনুল হক। এ ঘটনায় ক্ষোভে ওই ছাত্রী মাদ্রাসাতেই বই-খাতা ফেলে বাড়িতে চলে আসে।

ওই দিনই মেয়েটির খোঁজ নেওয়ার অজুহাতে দুপুর ১টার দিকে তার দাদার বাড়িতে যায় মমেনুল হক। সেখানে বাড়িতে কেউ না থাকায় মেয়েটির ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করে।

ভিকটিমের দাদি জানান, দারিদ্র্যতার কারণে তার মা ও বাবা গাজীপুরে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকে। তার মা গার্মেন্টসে চাকরি করে আর বাবা অটোরিকশা চালায়।

তিনি জানান, ঘটনার দিন তাকে মাদ্রাসায় পাঠিয়ে দিয়ে অসুস্থ মেয়েকে দেখতে মেয়ের বাড়ি গিয়েছিলেন তিনি।

এ বিষয়ে জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাজেদুর রহমান বলেন, অফিস সহকারী মমেনুল হকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মহাদেবপুর থানার ওসি আজম উদ্দিন মাহমুদ জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

 মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি 
১২ আগস্ট ২০২২, ০৯:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

নওগাঁর মহাদেবপুরে পঞ্চম শ্রেণির (১২) এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার অফিস সহকারী মমেনুল হক ওরফে মমোর (৫০) বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার রাতে থানায় মামলাটি করেন ভুক্তভোগী কিশোরীর মা। 

মামলা সূত্রে জানা গেছে, জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের মো. আব্দুল খালেকের ছেলে মমেনুল হক ওরফে মমো বিভিন্ন সময় ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করতেন। ২ আগস্ট সকালে ওই ছাত্রী মাদ্রাসার বারান্দায় দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময় তার স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন মমেনুল হক। এ ঘটনায় ক্ষোভে ওই ছাত্রী মাদ্রাসাতেই বই-খাতা ফেলে বাড়িতে চলে আসে। 

ওই দিনই মেয়েটির খোঁজ নেওয়ার অজুহাতে দুপুর ১টার দিকে তার দাদার বাড়িতে যায় মমেনুল হক। সেখানে বাড়িতে কেউ না থাকায় মেয়েটির ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করে।

ভিকটিমের দাদি জানান, দারিদ্র্যতার কারণে তার মা ও বাবা গাজীপুরে বাসা ভাড়া নিয়ে থাকে। তার মা গার্মেন্টসে চাকরি করে আর বাবা অটোরিকশা চালায়। 

তিনি জানান, ঘটনার দিন তাকে মাদ্রাসায় পাঠিয়ে দিয়ে অসুস্থ মেয়েকে দেখতে মেয়ের বাড়ি গিয়েছিলেন তিনি। 

এ বিষয়ে জয়পুর ডাঙ্গাপাড়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাজেদুর রহমান বলেন, অফিস সহকারী মমেনুল হকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

মহাদেবপুর থানার ওসি আজম উদ্দিন মাহমুদ জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন