এক ট্রলারে ধরা পড়ল ৬০ মণ ইলিশ, ১৪ লাখে বিক্রি
jugantor
এক ট্রলারে ধরা পড়ল ৬০ মণ ইলিশ, ১৪ লাখে বিক্রি

  হাতিয়া (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৩ আগস্ট ২০২২, ০৩:২০:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সাগরে লঘুচাপ ও বিপদ সংকেতে সমুদ্রে বৈরী আবহাওয়ার সঙ্গে লড়াই করে ৭ দিন পর ঘাটে ফিরতে সক্ষম হয় ‘বিসমিল্লাহ ফিশিং বোট’। সেই বোটেই মিলল ৬০ মণ ইলিশ, যা নিলামে বিক্রি হয়েছে ১৩ লাখ ৫০ হাজার টাকায়।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হাতিয়ার চেয়ারম্যান ঘাটের মেঘনা ফিশিংয়ে এসব ইলিশ বিক্রি করা হয়।

বোটের মালিক ও বোটটির প্রধান মাঝি গোলাম কিবরিয়া বলেন, আমরা সমুদ্র সংকেতের মধ্যে পড়ে যাওয়ায় তীরে আসতে পারি নাই। অনেক টাকা দেনা করে সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়েছি, কিন্তু কূলে ফিরলে ঋণী হয়ে যাব। তাই যুদ্ধ করে সাগরে রয়ে গেছি। আলহামদুলিল্লাহ অনেক মাছ পেয়েছি। আমরা ২৩ জন মাঝি ৭ দিন সমুদ্রে মাছ ধরেছি। এত মাছ হবে কল্পনাও করি নাই।

হাতিয়া মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল বলেন, আমাদের জেলেরা মেঘনা নদীতে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করেন, কিন্তু এবার মেঘনা নদীতে মাছ নেই, তবে গভীর সমুদ্রে মাছ ধরা পড়ছে।

এক ট্রলারে ধরা পড়ল ৬০ মণ ইলিশ, ১৪ লাখে বিক্রি

 হাতিয়া (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৩ আগস্ট ২০২২, ০৩:২০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সাগরে লঘুচাপ ও বিপদ সংকেতে সমুদ্রে বৈরী আবহাওয়ার সঙ্গে লড়াই করে ৭ দিন পর ঘাটে ফিরতে সক্ষম হয় ‘বিসমিল্লাহ ফিশিং বোট’। সেই বোটেই মিলল ৬০ মণ ইলিশ, যা নিলামে বিক্রি হয়েছে ১৩ লাখ ৫০ হাজার টাকায়।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হাতিয়ার চেয়ারম্যান ঘাটের মেঘনা ফিশিংয়ে এসব ইলিশ বিক্রি করা হয়।

বোটের মালিক ও বোটটির প্রধান মাঝি গোলাম কিবরিয়া বলেন, আমরা সমুদ্র সংকেতের মধ্যে পড়ে যাওয়ায় তীরে আসতে পারি নাই। অনেক টাকা দেনা করে সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়েছি, কিন্তু কূলে ফিরলে ঋণী হয়ে যাব। তাই যুদ্ধ করে সাগরে রয়ে গেছি। আলহামদুলিল্লাহ অনেক মাছ পেয়েছি।  আমরা ২৩ জন মাঝি ৭ দিন সমুদ্রে মাছ ধরেছি। এত মাছ হবে কল্পনাও করি নাই।

হাতিয়া মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল বলেন, আমাদের জেলেরা মেঘনা নদীতে মাছ ধরে  জীবিকা নির্বাহ করেন, কিন্তু এবার মেঘনা নদীতে মাছ নেই, তবে গভীর সমুদ্রে মাছ ধরা পড়ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন