‘বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে হত্যার ষড়যন্ত্রকারী ছিল পাকিস্তান’
jugantor
‘বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে হত্যার ষড়যন্ত্রকারী ছিল পাকিস্তান’

  বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি  

১৩ আগস্ট ২০২২, ০৬:২১:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর পুরো পরিবারকে হত্যার ষড়যন্ত্রকারী ছিল পাকিস্তান। সেই সময় বিদেশে থাকা বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানাকে ছয় বছর বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। তাদের আশ্রয় দিয়েছিলেন, তৎকালীন ভারত সরকার।

শুক্রবার সন্ধ্যায় বাঘা উপজেলার আলাইপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে পাকুড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নৃশংস হত্যাকান্ডের শিকার সকল শহীদদের স্মরণে শোক সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

পাকুড়িয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আবদুর রহমানের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, জনগণের মাঝে অযথা বিভ্রান্তি না ছড়িয়ে যদি সাহস থাকে তো আমার নির্বাচনী এলাকায় আসেন। এখানকার মানুষ আপনাদের হাতে হারিকেন ধরিয়ে বিদায় করবে।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনীর উপর পাঠচক্র ও কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের হাতে পুরুস্কার তুলে দেন।

আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলফুর রহমান, উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি রোকনুজ্জামান রিন্টু, উপজেলা আ.লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ নছিম উদ্দিন, সিনিয়র সদস্য মাসুদ রানা তিলু, পাকুড়িয়া ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা নয়ন সরকার, জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক বিপাশা খাতুন, উপজেলা মহিলা আ.লীগের সভানেত্রী ফাতেমা মাসুদ লতা, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহানুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন।

উপস্থিত ছিলেন বাঘা পৌর আ.লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সরকার, সাধারণ সম্পাদক মামুন হোসেন, বাঘা পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান পিন্টু প্রমুখ।

‘বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে হত্যার ষড়যন্ত্রকারী ছিল পাকিস্তান’

 বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি 
১৩ আগস্ট ২০২২, ০৬:২১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর পুরো পরিবারকে হত্যার ষড়যন্ত্রকারী ছিল পাকিস্তান। সেই সময় বিদেশে থাকা বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানাকে ছয় বছর বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। তাদের আশ্রয় দিয়েছিলেন, তৎকালীন ভারত সরকার।

শুক্রবার সন্ধ্যায় বাঘা উপজেলার আলাইপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে পাকুড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নৃশংস হত্যাকান্ডের শিকার সকল শহীদদের স্মরণে শোক সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। 

পাকুড়িয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আবদুর রহমানের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, জনগণের মাঝে অযথা বিভ্রান্তি না ছড়িয়ে যদি সাহস থাকে তো আমার নির্বাচনী এলাকায় আসেন। এখানকার মানুষ আপনাদের হাতে হারিকেন ধরিয়ে বিদায় করবে। 

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনীর উপর পাঠচক্র ও কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের হাতে পুরুস্কার তুলে দেন।

আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলফুর রহমান, উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি রোকনুজ্জামান রিন্টু, উপজেলা আ.লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ নছিম উদ্দিন, সিনিয়র সদস্য মাসুদ রানা তিলু, পাকুড়িয়া ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা নয়ন সরকার, জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক বিপাশা খাতুন, উপজেলা মহিলা আ.লীগের সভানেত্রী ফাতেমা মাসুদ লতা, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহানুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হোসেন।

উপস্থিত ছিলেন বাঘা পৌর আ.লীগের সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস সরকার, সাধারণ সম্পাদক মামুন হোসেন, বাঘা পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান পিন্টু প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন