রাতে খোলা রাখায় ৯ দোকানে জরিমানা, ৭টির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন
jugantor
রাতে খোলা রাখায় ৯ দোকানে জরিমানা, ৭টির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন

  বগুড়া ব্যুরো  

১৬ আগস্ট ২০২২, ০২:৪৭:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার আদমদীঘিতে সরকারি নির্দেশ অমান্য করে রাত ৮টার পর দোকান খোলা রাখায় ৯টি দোকানের মালিককে এক হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া ৭টি দোকানের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

রোববার রাতে আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায়ের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত এ আদেশ দেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, সরকার বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে রাত ৮টার পর সব দোকানপাট বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। আদমদীঘি উপজেলা সদর ও সান্তাহারে সে নির্দেশ অমান্য করে রাতে অধিকাংশ দোকান খোলা রেখে মালামাল বিক্রি করা হচ্ছিল। এমন খবর পেয়ে আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শ্রাবণী রায়ের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত সোমবার রাতে অভিযান চালান।

রাত ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত সান্তাহার পৌর এলাকা, পূর্ব ঢাকা রোড ও আদমদীঘি সদরে অভিযান চালানো হয়। সান্তাহার স্টার হোটেল ও পাশের ইলেকট্রিক সামগ্রীর দোকানে ২০০ টাকা করে জরিমানা, হোটেল মৌবণ ও বিসমিল্লাহ হোটেলে ২০০ টাকা করে জরিমানা ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। ঢাকা রোডে দুটি মুদি দোকান ও একটি হোটেলে ২০০ টাকা করে জরিমানা এবং বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া আদমদীঘি উপজেলা সদরে বিসমিল্লাহ ও ভাই ভাই হোটেলের ২০০ টাকা করে জরিমানা ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। অভিযান চলাকালে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

রাতে খোলা রাখায় ৯ দোকানে জরিমানা, ৭টির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন

 বগুড়া ব্যুরো 
১৬ আগস্ট ২০২২, ০২:৪৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার আদমদীঘিতে সরকারি নির্দেশ অমান্য করে রাত ৮টার পর দোকান খোলা রাখায় ৯টি দোকানের মালিককে এক হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া ৭টি দোকানের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

রোববার রাতে আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায়ের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত এ আদেশ দেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, সরকার বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে রাত ৮টার পর সব দোকানপাট বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। আদমদীঘি উপজেলা সদর ও সান্তাহারে সে নির্দেশ অমান্য করে রাতে অধিকাংশ দোকান খোলা রেখে মালামাল বিক্রি করা হচ্ছিল। এমন খবর পেয়ে আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শ্রাবণী রায়ের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত সোমবার রাতে অভিযান চালান।

রাত ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত সান্তাহার পৌর এলাকা, পূর্ব ঢাকা রোড ও আদমদীঘি সদরে অভিযান চালানো হয়। সান্তাহার স্টার হোটেল ও পাশের ইলেকট্রিক সামগ্রীর দোকানে ২০০ টাকা করে জরিমানা, হোটেল মৌবণ ও বিসমিল্লাহ হোটেলে ২০০ টাকা করে জরিমানা ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। ঢাকা রোডে দুটি মুদি দোকান ও একটি হোটেলে ২০০ টাকা করে জরিমানা এবং বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া আদমদীঘি উপজেলা সদরে বিসমিল্লাহ ও ভাই ভাই হোটেলের ২০০ টাকা করে জরিমানা ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। অভিযান চলাকালে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন