সোনারগাঁওয়ে তৈরি হচ্ছে ভেষজ হাসপাতাল
jugantor
সোনারগাঁওয়ে তৈরি হচ্ছে ভেষজ হাসপাতাল

  এম এম সালাহউদ্দিন  

১৮ আগস্ট ২০২২, ০১:৫১:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে বেসরকারি উদ্যোগে নির্মাণ করা হচ্ছে ভেষজ হাসপাতাল। উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের পেরাব গ্রামে আলোচিত ‘বাংলার তাজমহলের’ পাশে গড়ে উঠছে এ হাসপাতাল।

বাংলার তাজমহলের প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট চলচ্চিত্রকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনির তত্ত্ববধানে এ হাসপাতালের কার্যক্রম শিগগিরই শুরু হতে যাচ্ছে।

জামপুর ইউনিয়নের পেরাব গ্রামে আহসান উল্লাহ মনর খামার বাড়িতে এ হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হবে। হাসপাতালটি আহসান উল্লাহ মনির কন্যা আশা আহসান পরিচালনা করবেন বলে জানা গেছে। এতে যুক্ত হবেন দেশি বিদেশি বিখ্যাত চিকিৎসকরা।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনি

এ ব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনি জানান, মানুষকে সুস্থ থাকতে হলে প্রাকৃতিক চিকিৎসার বিকল্প নেই। গাছপালার মধ্যেই রয়েছে নানা ঔষধিগুণ, তাই এ গাছগাছালি ও শারীরিক থেরাপির মাধ্যমে যেকোন জটিল অসুখেরও চিকিৎসা সম্ভব। তাই সোনারগাঁওয়ের প্রাকৃতিক পরিবেশে এ ব্যতিক্রমী হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে এ ভেষজ হাসপাতালটি রাজধানীর গুলশানে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এটি সোনারগাঁওয়ের জামপুর ইউনিয়নের পেরাব গ্রামে স্থানান্তর করা হচ্ছে।ইতিমধ্যে হাসপাতালটির জন্য জমি কেনা সম্পন্ন হয়েছে। এখন ভবন নির্মানের কাজ শুরু হবে।

হাসপাতালটিতে বর্তমানে শুধু আউটডোর চিকিৎসার ব্যবস্থা থাকবে, রোগী ভর্তির ব্যবস্থা করা হবে আরও পরে। তবে ধাপে ধাপে রোগী ভর্তির ব্যবস্থা করা হবে।
সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে এখানে চিকিৎসা দেয়া হবে। চিকিৎসার জন্য থাকবে একাধিক বিখ্যাত অভিজ্ঞ চিকিৎসক।

ভেষজ চিকিৎসার ওপর বিদেশ থেকে উচ্চতর ডিগ্রি নেওয়া এসব চিকিৎসকরা রোগীদের সমস্যা চিহ্নিত করে চিকিৎসা দেবেন বলে জানান আহসান উল্লাহ মনি।

এতে মানুষের ব্যাপক সাড়া পাবেন বলে মনে করছেন এ সমাজসেবক।

এ ব্যাপারে আহসান উল্লাহ মনির কন্যা আশা আহসান জানান, বিদেশে এ ধরণের ভেষজ চিকিৎসা বেশ জনপ্রিয়। আমাদের দেশে এটি এখনো সেভাবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি। আমরা ভেষজ পদ্ধতির চিকিৎসা ব্যবস্থা এদেশেও শুরু করতে যাচ্ছি। এখানে চিকিৎসা পদ্ধতিটি গতানুগতিক ভেষজ চিকিৎসার বাইরে হবে। বিশেষ করে শারীরিক থেরাপিকে গুরুত্ব দিয়েই এ চিকিৎসা করা হবে।

উল্লেখ্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনি সোনারগাঁওয়ের প্রত্যন্ত জামপুর ইউনিয়নের পেরাব গ্রামে ভারতের আগ্রায় নির্মিত তাজমহলের আদলে ‍’বাংলার তাজমহল’ নির্মাণ করে দেশে বিদেশে আলোচনায় আসেন।

এছাড়া তিনি তাজমহলের পাশেই নির্মাণ করেছেন মিশরের পিরামিডের আদলে ’বাংলার পিরামিড’। রয়েছে সিনেমা হল ও পাখির মেলা নামে বিদেশী পাখি প্রদর্শনীর ব্যবস্থা। প্রতিদিনই হাজার হাজার দেশি বিদেশি পর্যটক এসব অনন্য স্থপনা দেখতে সোনারগাঁওয়ের পেরাব এলাকা আসছেন।

পর্যটন খাতে আহসান উল্লাহ মনির এ অবদানের ফলে সোনারগাঁওয়ের অর্থনৈতিক ও সামাজিক অবস্থার বেশ উন্নয়ন ঘটেছে। এতে আশপাশের এলাকারও ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। কর্মসংস্থান হয়েছে শত শত বেকার মানুষের।

সোনারগাঁওয়ে তৈরি হচ্ছে ভেষজ হাসপাতাল

 এম এম সালাহউদ্দিন 
১৮ আগস্ট ২০২২, ০১:৫১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে বেসরকারি উদ্যোগে নির্মাণ করা হচ্ছে ভেষজ হাসপাতাল। উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের পেরাব গ্রামে আলোচিত ‘বাংলার তাজমহলের’ পাশে গড়ে উঠছে এ হাসপাতাল।

বাংলার তাজমহলের প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট চলচ্চিত্রকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনির তত্ত্ববধানে এ হাসপাতালের কার্যক্রম শিগগিরই শুরু হতে যাচ্ছে।

জামপুর ইউনিয়নের পেরাব গ্রামে আহসান উল্লাহ মনর খামার বাড়িতে এ হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু হবে। হাসপাতালটি আহসান উল্লাহ মনির কন্যা আশা আহসান পরিচালনা করবেন বলে জানা গেছে। এতে যুক্ত হবেন দেশি বিদেশি বিখ্যাত চিকিৎসকরা।

                                                                              বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনি

এ ব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনি জানান, মানুষকে সুস্থ থাকতে হলে প্রাকৃতিক চিকিৎসার বিকল্প নেই। গাছপালার মধ্যেই রয়েছে নানা ঔষধিগুণ, তাই এ গাছগাছালি ও শারীরিক থেরাপির মাধ্যমে যেকোন জটিল অসুখেরও চিকিৎসা সম্ভব। তাই সোনারগাঁওয়ের প্রাকৃতিক পরিবেশে এ ব্যতিক্রমী হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে এ ভেষজ হাসপাতালটি রাজধানীর গুলশানে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এটি সোনারগাঁওয়ের জামপুর ইউনিয়নের পেরাব গ্রামে স্থানান্তর করা হচ্ছে।ইতিমধ্যে হাসপাতালটির জন্য জমি কেনা সম্পন্ন হয়েছে। এখন ভবন নির্মানের কাজ শুরু হবে।

হাসপাতালটিতে বর্তমানে শুধু আউটডোর চিকিৎসার ব্যবস্থা থাকবে, রোগী ভর্তির ব্যবস্থা করা হবে আরও পরে। তবে ধাপে ধাপে রোগী ভর্তির ব্যবস্থা করা হবে।
সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে এখানে চিকিৎসা দেয়া হবে। চিকিৎসার জন্য থাকবে একাধিক বিখ্যাত অভিজ্ঞ চিকিৎসক।

ভেষজ চিকিৎসার ওপর বিদেশ থেকে উচ্চতর ডিগ্রি নেওয়া এসব চিকিৎসকরা রোগীদের সমস্যা চিহ্নিত করে চিকিৎসা দেবেন বলে জানান আহসান উল্লাহ মনি।

এতে মানুষের ব্যাপক সাড়া পাবেন বলে মনে করছেন এ সমাজসেবক।

এ ব্যাপারে আহসান উল্লাহ মনির কন্যা আশা আহসান জানান, বিদেশে এ ধরণের ভেষজ চিকিৎসা বেশ জনপ্রিয়। আমাদের দেশে এটি এখনো সেভাবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি। আমরা ভেষজ পদ্ধতির চিকিৎসা ব্যবস্থা এদেশেও শুরু করতে যাচ্ছি। এখানে চিকিৎসা পদ্ধতিটি গতানুগতিক ভেষজ চিকিৎসার বাইরে হবে। বিশেষ করে শারীরিক থেরাপিকে গুরুত্ব দিয়েই এ চিকিৎসা করা হবে।

উল্লেখ্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনি সোনারগাঁওয়ের প্রত্যন্ত জামপুর ইউনিয়নের পেরাব গ্রামে ভারতের আগ্রায় নির্মিত তাজমহলের আদলে ‍’বাংলার তাজমহল’ নির্মাণ করে দেশে বিদেশে আলোচনায় আসেন।

এছাড়া তিনি তাজমহলের পাশেই নির্মাণ করেছেন মিশরের পিরামিডের আদলে ’বাংলার পিরামিড’। রয়েছে সিনেমা হল ও পাখির মেলা নামে বিদেশী পাখি প্রদর্শনীর ব্যবস্থা। প্রতিদিনই হাজার হাজার দেশি বিদেশি পর্যটক এসব অনন্য স্থপনা দেখতে সোনারগাঁওয়ের পেরাব এলাকা আসছেন।

পর্যটন খাতে আহসান উল্লাহ মনির এ অবদানের ফলে সোনারগাঁওয়ের অর্থনৈতিক ও সামাজিক অবস্থার বেশ উন্নয়ন ঘটেছে। এতে আশপাশের এলাকারও ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। কর্মসংস্থান হয়েছে শত শত বেকার মানুষের।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর