বড়শিতে ধরা পড়ল ১৫ কেজি ওজনের পাঙাশ
jugantor
বড়শিতে ধরা পড়ল ১৫ কেজি ওজনের পাঙাশ

  বরগুনা প্রতিনিধি  

১৯ আগস্ট ২০২২, ১০:১৬:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

বরগুনার আমতলীর পায়রা নদীতে জেলের বড়শিতে ১৫ কেজি ওজনের পাঙাশ মাছ ধরা পেড়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় আমতলীর পায়রা নদীতে ১৫ কেজি ওজনের এই বিশাল পাঙাশ মাছটি ধরা পড়ে। পরে রাত ৯টায় আমতলী বাজারে ১৫ হাজার টাকায় মাছটি বিক্রি করা হয়।

জানা যায়, আমতলী উপজেলার আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের বালিয়াতলীর নাননু বয়াতি নামে এক জেলের বড়শিতে এই পাঙাশ মাছটি ধরা পড়ে। বৃহস্পতিবার বিকালে তিনি পায়রা নদীতে বড়শি পেতে মাছের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। রাত ৮টায় বুঝতে পারেন তার বড়শিতে বড় কোনো মাছ ধরা পড়েছে। অনেক কষ্টে মাছটি নৌকায় তোলেন। মাছটি দেখেই সে আনন্দে আত্মহারা হয়ে যান। পরে মাছটি রাত ৯টায় আমতলীর মাছ বাজারের নাহিদ মৎস্য আড়ৎদারের কাছে নিয়ে ওজন করে দেখেন মাছটির ওজন ১৫ কেজি। খুচরা মাছের বিক্রেতা জব্বার চৌকিদার আড়ৎ থেকে সাড়ে ১২ হাজার টাকায় মাছটি কিনে ফরিদপুরের এক ব্যবসায়ীর কাছে ১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেন।

জেলে নাননু বয়াতি জানান, আমি অত্যন্ত খুশি। সবই আল্লাহর ইচ্ছা, আল্লাহতায়ালার ইশারা ছাড়া কিছুই হয় না। নদীতে অনেক জেলেই তো বড়শি পেতেছে। সেখানে আল্লাহতায়ালা আমার বড়শিতে এত বড় মাছ দিয়েছেন। আমি এতই খুশি হয়েছি, যা আপনাদের বোঝাতে পারব না।

আমতলীর মৎস্য আড়ৎদার ফোরকান চৌকিদার বলেন, এত বড় পাঙাশ দুই-তিন বছরেও দেখিনি। আমার আড়তে আসেনি।

এ বিষয়ে আমতলী উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা (অতিরিক্ত) মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, সাগর এবং নদীতে বিভিন্ন সময়ে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা থাকায় পাঙাশ মাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ অবাধে চলাচল করার সুযোগ পেয়েছে। তাই নদীতে এত বড় মাছ জেলের বড়শিতে ধরা পড়ল।

বড়শিতে ধরা পড়ল ১৫ কেজি ওজনের পাঙাশ

 বরগুনা প্রতিনিধি 
১৯ আগস্ট ২০২২, ১০:১৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরগুনার আমতলীর পায়রা নদীতে জেলের বড়শিতে ১৫ কেজি ওজনের পাঙাশ মাছ ধরা পেড়েছে। 

বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় আমতলীর পায়রা নদীতে ১৫ কেজি ওজনের এই বিশাল পাঙাশ মাছটি ধরা পড়ে। পরে রাত ৯টায় আমতলী বাজারে ১৫ হাজার টাকায় মাছটি বিক্রি করা হয়।

জানা যায়, আমতলী উপজেলার আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের বালিয়াতলীর নাননু বয়াতি নামে এক জেলের বড়শিতে এই পাঙাশ মাছটি ধরা পড়ে। বৃহস্পতিবার বিকালে তিনি পায়রা নদীতে বড়শি পেতে মাছের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। রাত ৮টায় বুঝতে পারেন তার বড়শিতে বড় কোনো মাছ ধরা পড়েছে। অনেক কষ্টে মাছটি নৌকায় তোলেন। মাছটি দেখেই সে আনন্দে আত্মহারা হয়ে যান। পরে মাছটি রাত ৯টায় আমতলীর মাছ বাজারের নাহিদ মৎস্য আড়ৎদারের কাছে নিয়ে ওজন করে দেখেন মাছটির ওজন ১৫ কেজি। খুচরা মাছের বিক্রেতা জব্বার চৌকিদার আড়ৎ থেকে সাড়ে ১২ হাজার টাকায় মাছটি কিনে ফরিদপুরের এক ব্যবসায়ীর কাছে ১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেন।

জেলে নাননু বয়াতি জানান, আমি অত্যন্ত খুশি। সবই আল্লাহর ইচ্ছা, আল্লাহতায়ালার ইশারা ছাড়া কিছুই হয় না। নদীতে অনেক জেলেই তো বড়শি পেতেছে। সেখানে আল্লাহতায়ালা আমার বড়শিতে এত বড় মাছ দিয়েছেন। আমি এতই খুশি হয়েছি, যা আপনাদের বোঝাতে পারব না। 

আমতলীর মৎস্য আড়ৎদার ফোরকান চৌকিদার বলেন, এত বড় পাঙাশ দুই-তিন বছরেও দেখিনি। আমার আড়তে আসেনি।
 
এ বিষয়ে আমতলী উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা (অতিরিক্ত) মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, সাগর এবং নদীতে বিভিন্ন সময়ে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা থাকায় পাঙাশ মাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ অবাধে চলাচল করার সুযোগ পেয়েছে। তাই নদীতে এত বড় মাছ জেলের বড়শিতে ধরা পড়ল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন