বঙ্গোপসাগরে ৫ ট্রলার ডুবি, ১৬ জেলে নিখোঁজ
jugantor
বঙ্গোপসাগরে ৫ ট্রলার ডুবি, ১৬ জেলে নিখোঁজ

  যুগান্তর প্রতিবেদন, কুয়াকাটা  

২০ আগস্ট ২০২২, ০০:০৭:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

বঙ্গোপসাগরে ৫ ট্রলার ডুবি, ১৬ জেলে নিখোঁজ

কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে অন্তত ৭০ জেলেসহ ৫টি মাছধরা ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে নিখোঁজ রয়েছে ১৬ জেলে, বাকিদের অন্য মাছধরা ট্রলারে উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরের বিভিন্ন পয়েন্টে এ ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে।

ডুবে যাওয়া ট্রলারগুলো হচ্ছে- এমবি মামনি-৩, এফবি সাইফুল, এফবি আল মামুন, এফবি কুলসুম ও এফবি রফিক মিঝি। এর মধ্যে এফবি রফিক মিঝির ট্রলারে থাকা জেলেদের বাড়ি ভোলার হাজারীগঞ্জে। বাকি ৪ ট্রলারে থাকা জেলেদের বাড়ি মহিপুরে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আলীপুর-কুয়াকাটা মৎস্য আড়ত মালিক সমিতির সভাপতি আনছার উদ্দিন মোল্লা।

উদ্ধার হওয়া জেলেরা জানান, সাগরের অস্বাভাবিক ঢেউ এবং ঝড়ের কবলে পড়ে তাদের ট্রলারগুলো ডুবে যায়। এ সময় সাগরে নিকটবর্তী থাকা অন্য ট্রলারের মাধ্যমে অন্তত ৫৪ জেলে উদ্ধার হলেও নিখোঁজ রয়েছেন ১৬ জেলে।

এর মধ্যে নিখোঁজ ১৪ জেলে এফবি কুলসুম ট্রলারের এবং এফবি রফিক মিঝি ট্রলার ডুবে যাওয়ার সময় ওই ট্রলারের মালিক রফিক মিঝি (৬০) নিখোঁজ হন। এদিকে প্রচণ্ড ঢেউয়ের তোড়ে এফবি মরিয়ম নামের একটি ট্রলার থেকে সাগরে পড়ে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছেন ওই ট্রলারের মাঝি এসাহাক (৪৫)।

উদ্ধারকৃত জেলেরা কুয়াকাটা ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ও মহিপুর উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

নিজামপুর কোস্টগার্ডের কন্টিজেন্ট কমান্ডার সেলিম মণ্ডল জানান, সাগরে ট্রলারডুবির খবর পেয়েছি। আমাদের টহল টিম সাগরে রয়েছে এবং উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। এছাড়া এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

বঙ্গোপসাগরে ৫ ট্রলার ডুবি, ১৬ জেলে নিখোঁজ

 যুগান্তর প্রতিবেদন, কুয়াকাটা 
২০ আগস্ট ২০২২, ১২:০৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বঙ্গোপসাগরে ৫ ট্রলার ডুবি, ১৬ জেলে নিখোঁজ
ফাইল ছবি

কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে অন্তত ৭০ জেলেসহ ৫টি মাছধরা ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে নিখোঁজ রয়েছে ১৬ জেলে, বাকিদের অন্য মাছধরা ট্রলারে উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বঙ্গোপসাগরের বিভিন্ন পয়েন্টে এ ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে।

ডুবে যাওয়া ট্রলারগুলো হচ্ছে- এমবি মামনি-৩, এফবি সাইফুল, এফবি আল মামুন, এফবি কুলসুম ও এফবি রফিক মিঝি। এর মধ্যে এফবি রফিক মিঝির ট্রলারে থাকা জেলেদের বাড়ি ভোলার হাজারীগঞ্জে। বাকি ৪ ট্রলারে থাকা জেলেদের বাড়ি মহিপুরে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আলীপুর-কুয়াকাটা মৎস্য আড়ত মালিক সমিতির সভাপতি আনছার উদ্দিন মোল্লা।

উদ্ধার হওয়া জেলেরা জানান, সাগরের অস্বাভাবিক ঢেউ এবং ঝড়ের কবলে পড়ে তাদের ট্রলারগুলো ডুবে যায়। এ সময় সাগরে নিকটবর্তী থাকা অন্য ট্রলারের মাধ্যমে অন্তত ৫৪ জেলে উদ্ধার হলেও নিখোঁজ রয়েছেন ১৬ জেলে।

এর মধ্যে নিখোঁজ ১৪ জেলে এফবি কুলসুম ট্রলারের এবং এফবি রফিক মিঝি ট্রলার ডুবে যাওয়ার সময় ওই ট্রলারের মালিক রফিক মিঝি (৬০) নিখোঁজ হন। এদিকে প্রচণ্ড ঢেউয়ের তোড়ে এফবি মরিয়ম নামের একটি ট্রলার থেকে সাগরে পড়ে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছেন ওই ট্রলারের মাঝি এসাহাক (৪৫)।

উদ্ধারকৃত জেলেরা কুয়াকাটা ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ও মহিপুর উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

নিজামপুর কোস্টগার্ডের কন্টিজেন্ট কমান্ডার সেলিম মণ্ডল জানান, সাগরে ট্রলারডুবির খবর পেয়েছি। আমাদের টহল টিম সাগরে রয়েছে এবং উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। এছাড়া এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন