মধ্যরাতে হাওড়ে ডাকাতের কবলে ১৪ ঢাবি শিক্ষার্থী, ৯৯৯ কলে উদ্ধার
jugantor
মধ্যরাতে হাওড়ে ডাকাতের কবলে ১৪ ঢাবি শিক্ষার্থী, ৯৯৯ কলে উদ্ধার

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো  

২০ আগস্ট ২০২২, ০০:৫৬:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

মধ্যরাতে ৯৯৯ নম্বরের কল পেয়ে ডাকাত দলের কবলে পড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ শিক্ষার্থীসহ মোট ১৪ নারী-পুরুষ শিক্ষার্থীকে গভীর হাওড় পর্যটন এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

বিলম্বে পাওয়া খবরে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) রাত ১২টার দিকে গভীর হাওড় পর্যটন এলাকায় সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের কবলে ৯৯৯ নম্বরে কল দিয়ে পুলিশের সহযোগিতায় রক্ষা পান এ-সব শিক্ষার্থীরা। এ পর্যটক দলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ জন এবং গুরুদয়াল সরকারি কলেজের দুজন শিক্ষার্থী ছিলেন।

কিশোরগঞ্জের চামড়া নৌ-বন্দরের নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকালে এ ১৪ শিক্ষার্থী হাওড়ের দৃষ্টি নন্দন অলওয়েদার সড়ক ও সেতুপথ এলাকা পরিভ্রমণে যান। এর আগে করিমগঞ্জের বালিখলার ধনু নদী ঘাট থেকে একটি ট্রলার ভাড়া করে মিঠামইন উপজেলার অলওয়েদার সড়কে গিয়ে ঘোরাঘুরি করেন তারা।

সন্ধ্যার পর ইঞ্জিন চালিত ওই ট্রলার নৌকায় ফেরার পথে প্রচণ্ড ঝড়ো হাওয়ার কবলে পড়েন তারা। রাত ৯টার দিকে হাসনপুর সেতু এবং ডুবি গ্রাম এলাকা অতিক্রমকালে তাদের বহনকারী ট্রলারটি হঠাৎ আটকে যায়। সবাই মিলে চেষ্টা করেও ট্রলারটিকে ভাসাতে পারছিলেন না তারা।

এ সময় সংঘবদ্ধ ডাকাত চক্র তাদের ঘিরে চারদিক থেকে টর্চের আলো ফেলে হামলার প্রস্তুতি নিতে থাকে। এমন শ্বাসরুদ্ধকর মুহূর্তে এক শিক্ষার্থী জরুরি উদ্ধার সেবা ও সাহায্য পেতে ৯৯৯-নম্বরে ফোন করেন। সেখান থেকে তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি জানানো হয় করিমগঞ্জের চামড়া নৌ বন্দর ঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়িকে।

খবর পেয়ে চামড়া নৌ-বন্দর ঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মোহাম্মদ এনামুল হকের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল দ্রুততম সময়ের মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছলে টের পেয়ে সটকে পড়ে ডাকাতদল। পুলিশের সহযোগিতায় সবাই মিলে আটকে পড়া ট্রলারটিকে ভাসানো সম্ভব হয়। ট্রলারটি নিরাপদে বালিখলা ঘাটে এসে পৌঁছে। রাত ১টার দিকে শিক্ষার্থী পর্যটক দলটিকে কিশোরগঞ্জ শহরের একটি আবাসিক হোটেলে নিরাপদে পৌঁছে দেয় পুলিশ।

চামড়া নৌ-বন্দর ঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মোহাম্মদ এনামুল হক গণমাধ্যমকে জানান, শিক্ষার্থীদের একটি দল হাওড়ে আটকে আছে, এমন খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে চারজন কনস্টেবল নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সটকে পড়ে ডাকাত দল। এ সময় ভয়ে ট্রলার থেকে পানিতে পড়ে যাওয়া দুজন শিক্ষার্থীকেও উদ্ধার করে পুলিশ।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ট্রলারে মোট ১৪ জন শিক্ষার্থী ছিলেন। তাদের মধ্যে ১২ জন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী এবং দুজন কিশোরগঞ্জ গুরুদয়াল সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন। উদ্ধারকৃত ভ্রমণবিলাসী এসব শিক্ষার্থীদের রাত দেড়টার দিকে নিরাপদে কিশোরগঞ্জ শহরে একটি আবাসিক হোটেলে দিয়ে আসা হয় বলেও জানিয়েছেন তিনি।

মধ্যরাতে হাওড়ে ডাকাতের কবলে ১৪ ঢাবি শিক্ষার্থী, ৯৯৯ কলে উদ্ধার

 কিশোরগঞ্জ ব্যুরো 
২০ আগস্ট ২০২২, ১২:৫৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মধ্যরাতে ৯৯৯ নম্বরের কল পেয়ে ডাকাত দলের কবলে পড়া  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ শিক্ষার্থীসহ মোট ১৪ নারী-পুরুষ  শিক্ষার্থীকে গভীর হাওড় পর্যটন এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

বিলম্বে পাওয়া খবরে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) রাত ১২টার দিকে গভীর হাওড় পর্যটন এলাকায় সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের কবলে ৯৯৯ নম্বরে কল দিয়ে পুলিশের সহযোগিতায় রক্ষা পান এ-সব শিক্ষার্থীরা। এ পর্যটক দলে  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের  ১২ জন এবং গুরুদয়াল সরকারি কলেজের দুজন শিক্ষার্থী ছিলেন। 

কিশোরগঞ্জের চামড়া নৌ-বন্দরের নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি সূত্রে জানা  গেছে, বৃহস্পতিবার বিকালে এ ১৪ শিক্ষার্থী হাওড়ের দৃষ্টি নন্দন অলওয়েদার সড়ক ও সেতুপথ এলাকা পরিভ্রমণে যান। এর আগে  করিমগঞ্জের বালিখলার ধনু নদী ঘাট  থেকে একটি ট্রলার ভাড়া করে মিঠামইন উপজেলার অলওয়েদার সড়কে গিয়ে ঘোরাঘুরি করেন তারা।

সন্ধ্যার পর ইঞ্জিন চালিত ওই ট্রলার নৌকায় ফেরার পথে প্রচণ্ড ঝড়ো হাওয়ার কবলে পড়েন তারা। রাত ৯টার দিকে হাসনপুর সেতু এবং ডুবি গ্রাম এলাকা অতিক্রমকালে তাদের বহনকারী ট্রলারটি হঠাৎ আটকে যায়। সবাই মিলে চেষ্টা করেও ট্রলারটিকে ভাসাতে পারছিলেন না তারা।

এ সময় সংঘবদ্ধ ডাকাত চক্র তাদের ঘিরে চারদিক থেকে টর্চের আলো ফেলে হামলার প্রস্তুতি নিতে থাকে। এমন শ্বাসরুদ্ধকর মুহূর্তে এক শিক্ষার্থী জরুরি উদ্ধার সেবা ও সাহায্য পেতে ৯৯৯-নম্বরে ফোন করেন। সেখান থেকে তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি জানানো হয় করিমগঞ্জের চামড়া নৌ বন্দর ঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়িকে।

খবর পেয়ে চামড়া নৌ-বন্দর ঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মোহাম্মদ এনামুল হকের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল দ্রুততম সময়ের মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছলে টের পেয়ে সটকে পড়ে  ডাকাতদল। পুলিশের সহযোগিতায় সবাই মিলে আটকে পড়া  ট্রলারটিকে ভাসানো সম্ভব হয়। ট্রলারটি নিরাপদে বালিখলা ঘাটে এসে পৌঁছে। রাত ১টার দিকে শিক্ষার্থী পর্যটক দলটিকে কিশোরগঞ্জ শহরের একটি আবাসিক হোটেলে নিরাপদে পৌঁছে দেয় পুলিশ।

চামড়া নৌ-বন্দর ঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মোহাম্মদ এনামুল হক গণমাধ্যমকে জানান, শিক্ষার্থীদের একটি দল হাওড়ে আটকে আছে, এমন খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি  তাৎক্ষণিকভাবে চারজন কনস্টেবল নিয়ে ঘটনাস্থলে যান। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সটকে পড়ে ডাকাত দল। এ সময় ভয়ে ট্রলার থেকে পানিতে পড়ে যাওয়া দুজন শিক্ষার্থীকেও উদ্ধার করে পুলিশ। 

ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানান, ট্রলারে মোট ১৪ জন শিক্ষার্থী ছিলেন। তাদের মধ্যে ১২ জন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী এবং দুজন কিশোরগঞ্জ গুরুদয়াল সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন। উদ্ধারকৃত ভ্রমণবিলাসী এসব শিক্ষার্থীদের রাত দেড়টার দিকে  নিরাপদে কিশোরগঞ্জ শহরে একটি আবাসিক হোটেলে দিয়ে আসা হয় বলেও জানিয়েছেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন