বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে একই পরিবারের ৩ জন নিহত
jugantor
বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে একই পরিবারের ৩ জন নিহত

  কুমিল্লা ব্যুরো ও মুরাদনগর প্রতিনিধি  

২০ আগস্ট ২০২২, ১৪:৪৭:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার মুরাদনগরে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুরে উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাধীন এলখাল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, হোসনেয়া বেগম (৬০), তারা মিয়া (৩০), রিফাত হোসেন (৮)।

পুলিশ এবং স্থানীয়রা জানায়, শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে এলখাল গ্রামের তারা মিয়ার ভাগিনা রিফাত হোসেন বাড়ির পাশের একটি জমিতে কলমি শাক তুলতে যায়। সেখানে বিদ্যুৎ লাইনের একটি তার ছিঁড়ে রিফাতের উপর পড়ে। তার চিৎকার শুনে নানী হোসনে আরা তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে বিদ্যুতের একই তারে আটকে যান। এ সময় মা এবং ভাগিনাকে উদ্ধারের জন্য তারা মিয়া গিয়ে তিনিও বিদ্যুতের তারের সঙ্গে আটকে যান। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজনের মৃত্যু হয়।

স্থানীয়রা দৌলতপুর বিদ্যুৎ অফিসে খবর দিলে সেখান থেকে সংযোগ বন্ধ করা হয়। পরে এলাকার লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন বলেন, বিদ্যুৎ বিভাগের চরম গাফিলতিতে আমরা একই পরিবারের তিনজনকে হারালাম। এর আগেও বিদ্যুতের এসব সমস্যার বিষয় নিয়ে আমরা তাদের কাছে অভিযোগ করেছি। কিন্তু আমাদের অভিযোগ তারা শুনেনি।

এ বিষয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে একই পরিবারের তিনজনের মৃত্যুর খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে, এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে একই পরিবারের ৩ জন নিহত

 কুমিল্লা ব্যুরো ও মুরাদনগর প্রতিনিধি 
২০ আগস্ট ২০২২, ০২:৪৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার মুরাদনগরে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুরে উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাধীন এলখাল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহতরা হলেন, হোসনেয়া বেগম (৬০), তারা মিয়া (৩০), রিফাত হোসেন (৮)। 

পুলিশ এবং স্থানীয়রা জানায়, শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে এলখাল গ্রামের তারা মিয়ার ভাগিনা রিফাত হোসেন বাড়ির পাশের একটি জমিতে কলমি শাক তুলতে যায়। সেখানে বিদ্যুৎ লাইনের একটি তার ছিঁড়ে রিফাতের উপর পড়ে। তার চিৎকার শুনে নানী হোসনে আরা তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে বিদ্যুতের একই তারে আটকে যান। এ সময় মা এবং ভাগিনাকে উদ্ধারের জন্য তারা মিয়া গিয়ে তিনিও বিদ্যুতের তারের সঙ্গে আটকে যান। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজনের মৃত্যু হয়। 

স্থানীয়রা দৌলতপুর বিদ্যুৎ অফিসে খবর দিলে সেখান থেকে সংযোগ বন্ধ করা হয়। পরে এলাকার লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন বলেন, বিদ্যুৎ বিভাগের চরম গাফিলতিতে আমরা একই পরিবারের তিনজনকে হারালাম। এর আগেও বিদ্যুতের এসব সমস্যার বিষয় নিয়ে আমরা তাদের কাছে অভিযোগ করেছি। কিন্তু আমাদের অভিযোগ তারা শুনেনি। 

এ বিষয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে একই পরিবারের তিনজনের মৃত্যুর খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে, এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন