অপারেশন থিয়েটারের ফ্রিজে গরুর মাংস!
jugantor
অপারেশন থিয়েটারের ফ্রিজে গরুর মাংস!

  কুমিল্লা ব্যুরো   

০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২২:২৪:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লায় নিবেদিতা নামে একটি প্রাইভেট হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারের যন্ত্রাংশ সংরক্ষণের ফ্রিজে গরুর মাংস পাওয়া গেছে।

শনিবার বিকালে নগরীর চকবাজারের তেলিকোনা এলাকার ওই বেসরকরি হাসপাতালে অভিযান চালায় জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। অপারেশন থিয়েটারের ফ্রিজে মাংস পাওয়া হাসপাতালটি সিলগালা করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, ওই হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারের যন্ত্রপাতি ও ওষুধ সংরক্ষণের ফ্রিজে গরুর মাংস পাওয়া যায়। এছাড়া হাসপাতালে সদ্য অপারেশন করা একজন রোগী পাওয়া গেলেও ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোনো নার্স বা ডাক্তার ওই রোগীকে দেখতে আসেননি। তাছাড়া কোনো ডাক্তার বা নার্সও ওই হাসপাতালে দেখা যায়নি। এমন অবেহেলা ও স্বাস্থ্যসেবার মানের দুরবস্থার কারণে হাসপাতালটি সিলগালা করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সেখানে রোগী থাকায় তা তাৎক্ষণিক বন্ধ করা হয়নি। নতুন রোগী ভর্তি না করে বর্তমান যারা আছে তাদের চলে যাওয়ার পর হাসপাতালটি বন্ধ করা হবে।

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার (কো-অর্ডিনেটর) আবদুল্লাহ আল সাকী বলেন, আমরা তিনটি হাসপাতালে অভিযান চালাই। দুটির সামান্য কিছু ত্রুটি ছিল, সতর্ক করা হয়েছে। কিন্তু নিবেদিতা হাসপাতালের অবস্থা খুবই নাজুক। অল্পসংখ্যক রোগী আছে। কোনো ডাক্তার নেই, নার্স নেই, কোনো বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নেই।

তিনি বলেন, রোগীরা অভিযোগ করেছেন, একজন ম্যানেজার আছেন- তিনিই ডাক্তার, তিনিই নার্স আবার তিনিই অপারেশনও করেন। আমরা হাসপাতালটি বন্ধের ঘোষণা দিয়েছি। তবে কিছু রোগী থাকায় বলেছি নতুন কাউকে ভর্তি না করে যারা ভর্তি আছেন তাদের দ্রুত ব্যবস্থা করতে। শিগগিরই আমরা যাব আবার সেই হাসপাতালে।

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডা. কেয়া রাণী। তিনি বলেন, ওই হাসপাতালের ফ্রিজে গরুর মাংস দেখেছি। ওই ফ্রিজটি যদিও অপারেশন থিয়েটারের বাইরে কিন্তু অপারেশনের সময় তা ভেতরে নেওয়া হয় এবং এটাতেই অপারেশনের ওষুধ ও যন্ত্রপাতি রাখা হয়। ফ্রিজটির নিচের অংশে যন্ত্রপাতি ও ওপরের অংশে মাংস রাখা ছিল। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি হাসপাতালটি সিলগালা করার।

অপারেশন থিয়েটারের ফ্রিজে গরুর মাংস!

 কুমিল্লা ব্যুরো  
০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লায় নিবেদিতা নামে একটি প্রাইভেট হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারের যন্ত্রাংশ সংরক্ষণের ফ্রিজে গরুর মাংস পাওয়া গেছে। 

শনিবার বিকালে নগরীর চকবাজারের তেলিকোনা এলাকার ওই বেসরকরি হাসপাতালে অভিযান চালায় জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। অপারেশন থিয়েটারের ফ্রিজে মাংস পাওয়া হাসপাতালটি সিলগালা করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। 

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়, ওই হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারের যন্ত্রপাতি ও ওষুধ সংরক্ষণের ফ্রিজে গরুর মাংস পাওয়া যায়। এছাড়া হাসপাতালে সদ্য অপারেশন করা একজন রোগী পাওয়া গেলেও ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোনো নার্স বা ডাক্তার ওই রোগীকে দেখতে আসেননি। তাছাড়া কোনো ডাক্তার বা নার্সও ওই হাসপাতালে দেখা যায়নি। এমন অবেহেলা ও স্বাস্থ্যসেবার মানের দুরবস্থার কারণে হাসপাতালটি সিলগালা করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সেখানে রোগী থাকায় তা তাৎক্ষণিক বন্ধ করা হয়নি। নতুন রোগী ভর্তি না করে বর্তমান যারা আছে তাদের চলে যাওয়ার পর হাসপাতালটি বন্ধ করা হবে। 

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার (কো-অর্ডিনেটর) আবদুল্লাহ আল সাকী বলেন, আমরা তিনটি হাসপাতালে অভিযান চালাই। দুটির সামান্য কিছু ত্রুটি ছিল, সতর্ক করা হয়েছে। কিন্তু নিবেদিতা হাসপাতালের অবস্থা খুবই নাজুক। অল্পসংখ্যক রোগী আছে। কোনো ডাক্তার নেই, নার্স নেই, কোনো বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নেই। 

তিনি বলেন, রোগীরা অভিযোগ করেছেন, একজন ম্যানেজার আছেন- তিনিই ডাক্তার, তিনিই নার্স আবার তিনিই অপারেশনও করেন। আমরা হাসপাতালটি বন্ধের ঘোষণা দিয়েছি। তবে কিছু রোগী থাকায় বলেছি নতুন কাউকে ভর্তি না করে যারা ভর্তি আছেন তাদের দ্রুত ব্যবস্থা করতে। শিগগিরই আমরা যাব আবার সেই হাসপাতালে। 

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডা. কেয়া রাণী। তিনি বলেন, ওই হাসপাতালের ফ্রিজে গরুর মাংস দেখেছি। ওই ফ্রিজটি যদিও অপারেশন থিয়েটারের বাইরে কিন্তু অপারেশনের সময় তা ভেতরে নেওয়া হয় এবং এটাতেই অপারেশনের ওষুধ ও যন্ত্রপাতি রাখা হয়। ফ্রিজটির নিচের অংশে যন্ত্রপাতি ও ওপরের অংশে মাংস রাখা ছিল। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি হাসপাতালটি সিলগালা করার।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন