শাকিলকে হত্যা করে বাবা মা ভাই মিলে মাটিচাপা দেয়
jugantor
শাকিলকে হত্যা করে বাবা মা ভাই মিলে মাটিচাপা দেয়

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

০৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:১৫:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালী বেগমগঞ্জ উপজেলায় হত্যা করে মাটিচাপা দেওয়ার ৩ দিন পর নূর হোসেন শাকিল (২৫) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার মিরওয়ারিশপুর ইউনিয়নের লালপুর এলাকার আব্দুল করিম হাজী বাড়ির পুকুর পাড় থেকে পুলিশ মাটি খুঁড়ে এ লাশ উদ্ধার করে।

শনিবার রাত ১১টার দিকে পরিবারের সদস্যরা একত্রিত হয়ে শাকিলকে হত্যা করে লাশ বসতঘর সংলগ্ন পুকুর পাড়ে মাটিচাপা দিয়ে রাখে।

এ ঘটনায় নিহতের মা, ভাইকে গ্রেফতার করেছে। তারা হলেন- নিহতের বাবা বাবুল হোসেন, মা ফাতেমা বেগম, ছোট ভাই এমাম হোসেন।

নিহত শাকিল (২৫) উপজেলার ৯নং মিরওয়ারিশপুর ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের লালপুর এলাকার আব্দুল করিম হাজী বাড়ির বাবুল হোসেনের ছেলে।

নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহীদুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, গত শনিবার পারিবারিক কলহের জের ধরে শাকিলকে পরিবারের সদস্যরা একত্রিত হত্যা করে। এরপর বসতঘর সংলগ্ন পুকুর পাড়ে নিহতের লাশ দাফন ছাড়া মাটিচাপা দিয়ে রাখে। বুধবার বিকালে ঘটনাটি জানাজানি হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পায়। তারপর পুলিশ মাটি খুঁড়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত শাকিল পরিবারের সদস্যের ওপর প্রায় নানা কারণে অত্যাচার করত। এসব ঘটনার জের ধরে পরিবারে কলহ দেখা দেয়। একপর্যায়ে ওই কলহের জের ধরে পরিবারের সদস্যরা তাকে হত্যা করে লাশ মাটিচাপা দিয়ে রাখে।

এসপি আরও জানান, বৃহস্পতিবার সকালে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

শাকিলকে হত্যা করে বাবা মা ভাই মিলে মাটিচাপা দেয়

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
০৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:১৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালী বেগমগঞ্জ উপজেলায় হত্যা করে মাটিচাপা দেওয়ার ৩ দিন পর নূর হোসেন শাকিল (২৫) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার মিরওয়ারিশপুর ইউনিয়নের লালপুর এলাকার আব্দুল করিম হাজী বাড়ির পুকুর পাড় থেকে পুলিশ মাটি খুঁড়ে এ লাশ উদ্ধার করে।

শনিবার রাত ১১টার দিকে পরিবারের সদস্যরা একত্রিত হয়ে শাকিলকে হত্যা করে লাশ বসতঘর সংলগ্ন পুকুর পাড়ে মাটিচাপা দিয়ে রাখে।

এ ঘটনায় নিহতের মা, ভাইকে গ্রেফতার করেছে। তারা হলেন- নিহতের বাবা বাবুল হোসেন, মা ফাতেমা বেগম, ছোট ভাই এমাম হোসেন।

নিহত শাকিল (২৫) উপজেলার ৯নং মিরওয়ারিশপুর ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের লালপুর এলাকার আব্দুল করিম হাজী বাড়ির বাবুল হোসেনের ছেলে।

নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহীদুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, গত শনিবার পারিবারিক কলহের জের ধরে শাকিলকে পরিবারের সদস্যরা একত্রিত হত্যা করে। এরপর বসতঘর সংলগ্ন পুকুর পাড়ে নিহতের লাশ দাফন ছাড়া মাটিচাপা দিয়ে রাখে। বুধবার বিকালে ঘটনাটি জানাজানি হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা পায়। তারপর পুলিশ মাটি খুঁড়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত শাকিল পরিবারের সদস্যের ওপর প্রায় নানা কারণে অত্যাচার করত। এসব ঘটনার জের ধরে পরিবারে কলহ দেখা দেয়। একপর্যায়ে ওই কলহের জের ধরে পরিবারের সদস্যরা তাকে হত্যা করে লাশ মাটিচাপা দিয়ে রাখে।

এসপি আরও জানান, বৃহস্পতিবার সকালে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন