সাপের কামড়ের পর ওঝার কাছে গিয়ে কালক্ষেপণ, কিশোরের মৃত্যু
jugantor
সাপের কামড়ের পর ওঝার কাছে গিয়ে কালক্ষেপণ, কিশোরের মৃত্যু

  হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

০৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৯:০৬:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে বিষধর সাপের কামড়ে মো. আরিফুর ইসলাম তুহিন (১৪) নামে এক কিশোর শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার নাঙ্গলমোড়া ইউনিয়নে ৯নং ওয়ার্ডে নিজ বাড়িতে তাকে সাপে কামড় দেয়। এরপর তাকে ওঝা-বৈদ্যের কাছে নেয়। শুক্রবার ভোরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বিষধর সাপে কামড় দেওয়ার পর পরিবারের সদস্যরা ওঝা-বৈদ্যের কাছে গিয়ে কালক্ষেপণ করার ফলে শিশু তুহিনের মৃত্যু হয়েছে বলে শুক্রবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. হারুনুর রশিদ।

নিহত তুহিন উক্ত ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মাওলানা হাসমত আলী বাড়ির মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী মো. সালাউদ্দিনের জ্যেষ্ঠ পুত্র। সে স্থানীয় নাঙ্গলমোড়া শামছুল উলুম ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

মাদ্রাসার শিক্ষক প্রভাষক মোহাম্মদ হোসেন বলেন, নিহত শিশু তুহিন একজন মেধাবী ছাত্র ও শান্ত প্রকৃতির ছেলে। সে নিয়মিত ক্লাসে উপস্থিত থাকত।

নিহতের চাচা জয়নাল আবেদীন জানান, কয়েক দিন আগে শিশু তুহিন তার নানার বাড়িতে (ফেনী) বেড়াতে যায়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে সে তার নানিসহ তাদের ঘরে ফিরে আসে। এর মধ্যে রাত ৮টার দিকে তাকে তাদের বসতঘরে বিষধর সাপ দংশন করে বলে সে আঁচ করতে পারে। এ সময় তার চিৎকারে পরিবারের সদস্যরা এগিয়ে আসলে তাদের সে জানায় তাকে বিষধর সাপে কামড় দিয়েছে। কিন্তু তখন বাড়িতে বিদ্যুৎ না থাকায় কি সাপ তাকে কামড় দিয়েছে তা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে ওই শিশুকে সাপে কামড় দেয়ার পর তার পরিবারের সদস্যরা অবহেলা করে বিভিন্ন ওঝা-বৈদ্যের কাছে নিয়ে কালক্ষেপণ করে। এর মধ্যে তার শারীরিক অবস্থার অবনতির একপর্যায়ে সে অচেতন হয়ে পড়লে শুক্রবার ভোরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. প্রিতম নন্দী জানান, বিষধর সাপের কামড়ে আরিফুল ইসলাম নামে ১৪ বছর বয়সী এক শিশুকে তার পরিবারের সদস্যরা শুক্রবার ভোরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। তার ডান পায়ের আঙুলে সাপের কামড়ের ক্ষতচিহ্ন দৃশ্যমান রয়েছে বলে তিনি জানান।

সাপের কামড়ের পর ওঝার কাছে গিয়ে কালক্ষেপণ, কিশোরের মৃত্যু

 হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
০৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে বিষধর সাপের কামড়ে মো. আরিফুর ইসলাম তুহিন (১৪) নামে এক কিশোর শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার নাঙ্গলমোড়া ইউনিয়নে ৯নং ওয়ার্ডে নিজ বাড়িতে তাকে সাপে কামড় দেয়। এরপর তাকে ওঝা-বৈদ্যের কাছে নেয়। শুক্রবার ভোরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বিষধর সাপে কামড় দেওয়ার পর পরিবারের সদস্যরা ওঝা-বৈদ্যের কাছে গিয়ে কালক্ষেপণ করার ফলে শিশু তুহিনের মৃত্যু হয়েছে বলে শুক্রবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. হারুনুর রশিদ।

নিহত তুহিন উক্ত ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মাওলানা হাসমত আলী বাড়ির মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী মো. সালাউদ্দিনের জ্যেষ্ঠ পুত্র। সে স্থানীয় নাঙ্গলমোড়া শামছুল উলুম ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসার ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

মাদ্রাসার শিক্ষক প্রভাষক মোহাম্মদ হোসেন বলেন, নিহত শিশু তুহিন একজন মেধাবী ছাত্র ও শান্ত প্রকৃতির ছেলে। সে নিয়মিত ক্লাসে উপস্থিত থাকত।

নিহতের চাচা জয়নাল আবেদীন জানান, কয়েক দিন আগে শিশু তুহিন তার নানার বাড়িতে (ফেনী) বেড়াতে যায়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে সে তার নানিসহ তাদের ঘরে ফিরে আসে। এর মধ্যে রাত ৮টার দিকে তাকে তাদের বসতঘরে বিষধর সাপ দংশন করে বলে সে আঁচ করতে পারে। এ সময় তার চিৎকারে পরিবারের সদস্যরা এগিয়ে আসলে তাদের সে জানায় তাকে বিষধর সাপে কামড় দিয়েছে। কিন্তু তখন বাড়িতে বিদ্যুৎ না থাকায় কি সাপ তাকে কামড় দিয়েছে তা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে ওই শিশুকে সাপে কামড় দেয়ার পর তার পরিবারের সদস্যরা অবহেলা করে বিভিন্ন ওঝা-বৈদ্যের কাছে নিয়ে কালক্ষেপণ করে। এর মধ্যে তার শারীরিক অবস্থার অবনতির একপর্যায়ে সে অচেতন হয়ে পড়লে শুক্রবার ভোরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. প্রিতম নন্দী জানান, বিষধর সাপের কামড়ে আরিফুল ইসলাম নামে ১৪ বছর বয়সী এক শিশুকে তার পরিবারের সদস্যরা শুক্রবার ভোরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। তার ডান পায়ের আঙুলে সাপের কামড়ের ক্ষতচিহ্ন দৃশ্যমান রয়েছে বলে তিনি জানান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন