প্রকাশ্যে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা
jugantor
প্রকাশ্যে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা

  শরীয়তপুর প্রতিনিধি  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২২:০৭:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় মতিউর রহমান (মতু) মুন্সি (৩০) নামে একজনকে ঘর থেকে তুলে নিয়ে প্রকাশ্যে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুবৃর্ত্তরা। এ সময় দুর্বৃত্তরা নিহতের বাড়ি ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে।

বুধবার দুপুরে নড়িয়া উপজেলার মোক্তারের চর ইউনিয়নের মৃধাকান্দি গ্রামে এমন ঘটনা ঘটে। নিহত মতিউর রহমান মতু মুন্সি মৃত আব্দুল করিম মুন্সির ছেলে।

নড়িয়া থানা ও নিহতের ভাবী খাদিজা বেগম সূত্রে জানা যায়, জায়গা জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আব্দুল করিম মুন্সির ছেলে মতিউর রহমান মতু মুন্সির সাথে একই এলাকার আবু মৃধা গংদের সাথে বিরোধ চলে আসছিল।

গত কয়েক কিছু দিন পূর্বে সে জায়গায় আবু মৃধা ও তার লোকজন জোরপূর্বক একটি টিনের ঘর তোলে। তারপর থেকে আবু মৃধার লোকজন ভয়ভীতি দেখিয়ে মতু মুন্সি গংদের বাড়ি ছাড়া করে।

বুধবার দুপুরে মতিউর রহমান মতু মুন্সি বাড়িতে ফিরলে আবু মৃধার লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মতু মুন্সিকে ধাওয়া করে। সে প্রাণে বাঁচার জন্য নিজ ঘরে গিয়ে দরজা লাগিয়ে দেয়। একই গ্রামের ছোবহান মৃধা, ইকবাল মৃধা, বাদল মৃধা, মোকলেছ মৃধা, বিল্লাল মৃধা, রাজ্জাক মৃধা, জসিম মৃধা, তুহিন মৃধা, খালেক মৃধা, সবুজ মৃধাসহ অন্যরা রাম দা, টেটা, সরকিসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দরজা ও ঘর ভাংচুর করে।

তারা ঘরে ঢুকে মতু মুন্সিকে চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে টেনেহিচড়ে রাস্তায় নিয়ে আসে। সেখানেও তাকে আরেক দফা কুপিয়ে গুরুতর জখম করে।

আশংকাজনক অবস্থায় স্বজনরা তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্ত শেষে তার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ সময় দুর্বৃত্তরা মতু মুন্সির ঘর কুপিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করেছে। এলাকায় চরম আতংক বিরাজ করছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

নিহতের ভাই আবু তাহের মুন্সি বলেন, আমাদের জায়গায় জোর করে আবু মৃধা গংরা দুই-তিন মাস আগে একটি ঘর তুলে আমদেরকে বাড়ি ছাড়া করে। আজ আমার ভাইকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। আমরা এ হত্যাকাণ্ডের বিচার চাই। আবু মৃধা গংদের ফাসি চাই।

নড়িয়া থানার ওসি (তদন্ত) আবির হোসেন বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মৃধাকান্দি এলাকায় একজনকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। এর সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে আমরা ৪ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছি।

প্রকাশ্যে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা

 শরীয়তপুর প্রতিনিধি 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় মতিউর রহমান (মতু) মুন্সি (৩০) নামে একজনকে ঘর থেকে তুলে নিয়ে প্রকাশ্যে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুবৃর্ত্তরা। এ সময় দুর্বৃত্তরা নিহতের বাড়ি ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে।

বুধবার দুপুরে নড়িয়া উপজেলার মোক্তারের চর ইউনিয়নের মৃধাকান্দি গ্রামে এমন ঘটনা ঘটে। নিহত মতিউর রহমান মতু মুন্সি মৃত আব্দুল করিম মুন্সির ছেলে।

নড়িয়া থানা ও নিহতের ভাবী খাদিজা বেগম সূত্রে জানা যায়, জায়গা জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আব্দুল করিম মুন্সির ছেলে মতিউর রহমান মতু মুন্সির সাথে একই এলাকার আবু মৃধা গংদের সাথে বিরোধ চলে আসছিল।

গত কয়েক কিছু দিন পূর্বে সে জায়গায় আবু মৃধা ও তার লোকজন জোরপূর্বক একটি টিনের ঘর তোলে। তারপর থেকে আবু মৃধার লোকজন ভয়ভীতি দেখিয়ে মতু মুন্সি গংদের বাড়ি ছাড়া করে। 

বুধবার দুপুরে মতিউর রহমান মতু মুন্সি বাড়িতে ফিরলে আবু মৃধার লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মতু মুন্সিকে ধাওয়া করে। সে প্রাণে বাঁচার জন্য নিজ ঘরে গিয়ে দরজা লাগিয়ে দেয়। একই গ্রামের ছোবহান মৃধা, ইকবাল মৃধা, বাদল মৃধা, মোকলেছ মৃধা, বিল্লাল মৃধা, রাজ্জাক মৃধা, জসিম মৃধা, তুহিন মৃধা, খালেক মৃধা, সবুজ মৃধাসহ অন্যরা রাম দা, টেটা, সরকিসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দরজা ও ঘর ভাংচুর করে।

তারা ঘরে ঢুকে মতু মুন্সিকে চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে টেনেহিচড়ে রাস্তায় নিয়ে আসে। সেখানেও তাকে আরেক দফা কুপিয়ে গুরুতর জখম করে।

আশংকাজনক অবস্থায় স্বজনরা তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্ত শেষে তার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ সময় দুর্বৃত্তরা মতু মুন্সির ঘর কুপিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করেছে। এলাকায় চরম আতংক বিরাজ করছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

নিহতের ভাই আবু তাহের মুন্সি বলেন, আমাদের জায়গায় জোর করে আবু মৃধা গংরা দুই-তিন মাস আগে একটি ঘর তুলে আমদেরকে বাড়ি ছাড়া করে। আজ আমার ভাইকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। আমরা এ হত্যাকাণ্ডের বিচার চাই। আবু মৃধা গংদের ফাসি চাই।

নড়িয়া থানার ওসি (তদন্ত) আবির হোসেন বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মৃধাকান্দি এলাকায় একজনকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। এর সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে আমরা ৪ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন