প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ঘর উপহার পেলেন চা দোকানি
jugantor
প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ঘর উপহার পেলেন চা দোকানি

  যশোর ব্যুরো  

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:৪২:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বাড়ি উপহার পেলেন যশোরের এক চা দোকানদার। যশোর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুল নিজস্ব অর্থায়নে বাড়িটি ত উপহার দিলেন।

বুধবার বিকালে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপনের অংশ হিসাবে সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের হাটবিলা বয়রাতলা গ্রামের আবু তালেব মোড়লের ছেলে আজিজুর রহমানের হাতে এই ঘরের চাবি তুলে দেয়া হয়।

এ সময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রাজু আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মুজিববর্ষ উপলক্ষে সদর উপজেলার হৈবতপুর ইউনিয়নের তীরেরহাট গ্রামের এক দরিদ্র কৃষককে আনোয়ার হোসেন বিপুল আরও একটি ঘর উপহার দিয়েছিলেন।

ঘর পেয়ে খুশি চা দোকানদার আজিজুর রহমান বলেন, শিশুকাল থেকেই অভাবের সঙ্গে যুদ্ধ করে বড় হয়েছি। দারিদ্র্যের কারণে লেখাপড়া করতে পারেনি। স্থায়ী কোনো ঘর জীবনদশাই করতে পারিনি। তবে আমার সন্তানদের আমি লেখাপড়া শেখানোর চেষ্টা করছি। অল্প আয়ে সংসার চলে। প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে মাথা গোজার ঠাই উপহার পেয়েছি। এটাই আমার জীবনের সবচেয়ে বড় উপহার। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে আজীবন কৃতজ্ঞ থাকব। একই সাথে মানবিক নেতা আনোয়ার হোসেন বিপুলের প্রতিও আমি কৃতজ্ঞ।

জানা যায়, অসুস্থ আজিজুর রহমানের পাঁচ সদস্যের সংসার চলে একমাত্র চা দোকানের আয়ে। স্বামী-স্ত্রী সঙ্গে তিন মেয়ে। উত্তরে কালো মেঘ দেখলেই পিলে চমকে যায়। সামান্য সম্বল নিয়েই অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিতে হয়। ঝড়-বৃষ্টি ছিল তার জীবনের সবথেকে বড় শত্রু। সেই শত্রুকে অবশেষে জয় করতে পেরেছেন আজিজুর রহমান। কালো মেঘ দেখে এই দম্পতির মুখ আর অন্ধকারে ঢেকে যাবে না।

আজিজুর রহমানের প্রতিবেশী লোকমান হোসেন, হামিদুর রহমান ও জাবের হোসেন জানান, শিশুকাল থেকেই দারিদ্রের সাথে বসবাস করলেও আজিজুর রহমান কখনো অসৎ জীবনযাপন করেননি। জীবনভর আল্লাহর কাছে পরীক্ষা দিয়েছেন। অবশেষে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী জন্মদিনে স্থায়ী নিবাস হয়েছে তার। অমায়িক এই মানুষের ঠিকানা হওয়ায় তারা সবাই খুশি।

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ঘর উপহার পেলেন চা দোকানি

 যশোর ব্যুরো 
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৪২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বাড়ি উপহার পেলেন যশোরের এক চা দোকানদার। যশোর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুল নিজস্ব অর্থায়নে বাড়িটি ত উপহার দিলেন।

বুধবার বিকালে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপনের অংশ হিসাবে সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের হাটবিলা বয়রাতলা গ্রামের আবু তালেব মোড়লের ছেলে আজিজুর রহমানের হাতে এই ঘরের চাবি তুলে দেয়া হয়।

এ সময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রাজু আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মুজিববর্ষ উপলক্ষে সদর উপজেলার হৈবতপুর ইউনিয়নের তীরেরহাট গ্রামের এক দরিদ্র কৃষককে আনোয়ার হোসেন বিপুল আরও একটি ঘর উপহার দিয়েছিলেন।

ঘর পেয়ে খুশি চা দোকানদার আজিজুর রহমান বলেন, শিশুকাল থেকেই অভাবের সঙ্গে যুদ্ধ করে বড় হয়েছি। দারিদ্র্যের কারণে লেখাপড়া করতে পারেনি। স্থায়ী কোনো ঘর জীবনদশাই করতে পারিনি। তবে আমার সন্তানদের আমি লেখাপড়া শেখানোর চেষ্টা করছি। অল্প আয়ে সংসার চলে। প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে মাথা গোজার ঠাই উপহার পেয়েছি। এটাই আমার জীবনের সবচেয়ে বড় উপহার। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে আজীবন কৃতজ্ঞ থাকব। একই সাথে মানবিক নেতা আনোয়ার হোসেন বিপুলের প্রতিও আমি কৃতজ্ঞ।

জানা যায়, অসুস্থ আজিজুর রহমানের পাঁচ সদস্যের সংসার চলে একমাত্র চা দোকানের আয়ে। স্বামী-স্ত্রী সঙ্গে তিন মেয়ে। উত্তরে কালো মেঘ দেখলেই পিলে চমকে যায়। সামান্য সম্বল নিয়েই অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিতে হয়। ঝড়-বৃষ্টি ছিল তার জীবনের সবথেকে বড় শত্রু। সেই শত্রুকে অবশেষে জয় করতে পেরেছেন আজিজুর রহমান। কালো মেঘ দেখে এই দম্পতির মুখ আর অন্ধকারে ঢেকে যাবে না।

আজিজুর রহমানের প্রতিবেশী লোকমান হোসেন, হামিদুর রহমান ও জাবের হোসেন জানান, শিশুকাল থেকেই দারিদ্রের সাথে বসবাস করলেও আজিজুর রহমান কখনো অসৎ জীবনযাপন করেননি। জীবনভর আল্লাহর কাছে পরীক্ষা দিয়েছেন। অবশেষে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী জন্মদিনে স্থায়ী নিবাস হয়েছে তার। অমায়িক এই মানুষের ঠিকানা হওয়ায় তারা সবাই খুশি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন