দুই কর্মচারীকে জুতাপেটা করা সেই এসিল্যান্ডকে বদলি
jugantor
দুই কর্মচারীকে জুতাপেটা করা সেই এসিল্যান্ডকে বদলি

  টাঙ্গাইল প্রতিনিধি  

২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:১৯:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ভূমি অফিসের দুই কর্মচারীকে জুতাপেটা করার অভিযোগে সহকারী কমিশনার (ভূমি) অমিত দত্তকে বদলি করা হয়েছে। বুধবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

অমিত দত্তকে পদায়নের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এপিডি অনুবিভাগে ন্যস্ত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ড. মো. আতাউল গনি বলেন, সুষ্ঠু কর্ম পরিবেশ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এসিল্যান্ড অমিত দত্তকে ঢাকায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বদলি করা হয়েছে। অপরদিকে ওই দুই কর্মচারীকে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়।

গত সোমবার দুপুরে নামজারি আবেদনে ত্রুটি থাকায় টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ভূমি অফিসের দুই কর্মচারীকে জুতাপেটা করার অভিযোগ উঠে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) অমিত দত্তের বিরুদ্ধে। মারধরের শিকার দুই কর্মচারী হলেন- ভূমি অফিসের সার্টিফিকেট সহকারী মমিনুল ইসলাম ও আউটসোর্সিংয়ের কম্পিউটার অপারেটর খায়রুল ইসলাম।

জানা যায়, আউটসোর্সিংয়ের কম্পিউটার অপারেটর খায়রুল ইসলামকে নিজ কক্ষে ডেকে নেন এসিল্যান্ড অমিত দত্ত। পরে নামজারির কাজে ক্রুটি দেখিয়ে দফায় দফায় প্রায় এক ঘণ্টা খায়রুল ইসলামকে জুতাপেটা করেন তিনি। এরপর খায়রুল ইসলাম বের হয়ে আসলে ওই সময় সার্টিফিকেট সহকারী মমিনুল ইসলাম তার কক্ষে প্রবেশ করা মাত্রই সহকারী কমিশনার (ভূমি) অমিত দত্ত জুতা দিয়ে তার দিকে ছুঁড়েন এবং চেয়ার থেকে উঠে গিয়ে মুমিনুলকে মারপিটসহ অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন।

এ বিষয়ে সার্টিফিকেট সহকারী মমিনুল ইসলাম ইসলাম বলেন, এসিল্যান্ডের স্যারের অফিস কক্ষ প্রবেশ করা মাত্রই আমাকে জুতা দিয়ে ঢিল মারেন এবং চেয়ার থেকে উঠে জুতা দিয়ে মারপিটসহ নানা ধরনের কটূক্তি করেন। পরে আমি রুম থেকে বের হয়ে আসি।

অভিযোগের বিষয় জানতে উপজেলা সহকারী কমিশনারের সরকারি (ভূমি) অফিসে গেলে সেখানে তাকে পাওয়া যায়নি। মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

দুই কর্মচারীকে জুতাপেটা করা সেই এসিল্যান্ডকে বদলি

 টাঙ্গাইল প্রতিনিধি 
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:১৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ভূমি অফিসের দুই কর্মচারীকে জুতাপেটা করার অভিযোগে সহকারী কমিশনার (ভূমি) অমিত দত্তকে বদলি করা হয়েছে। বুধবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

অমিত দত্তকে পদায়নের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এপিডি অনুবিভাগে ন্যস্ত করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ড. মো. আতাউল গনি বলেন, সুষ্ঠু কর্ম পরিবেশ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এসিল্যান্ড অমিত দত্তকে ঢাকায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বদলি করা হয়েছে। অপরদিকে ওই দুই কর্মচারীকে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়।

গত সোমবার দুপুরে নামজারি আবেদনে ত্রুটি থাকায় টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ভূমি অফিসের দুই কর্মচারীকে জুতাপেটা করার অভিযোগ উঠে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) অমিত দত্তের বিরুদ্ধে। মারধরের শিকার দুই কর্মচারী হলেন- ভূমি অফিসের সার্টিফিকেট সহকারী মমিনুল ইসলাম ও আউটসোর্সিংয়ের কম্পিউটার অপারেটর খায়রুল ইসলাম।

জানা যায়, আউটসোর্সিংয়ের কম্পিউটার অপারেটর খায়রুল ইসলামকে নিজ কক্ষে ডেকে নেন এসিল্যান্ড অমিত দত্ত। পরে নামজারির কাজে ক্রুটি দেখিয়ে দফায় দফায় প্রায় এক ঘণ্টা খায়রুল ইসলামকে জুতাপেটা করেন তিনি। এরপর খায়রুল ইসলাম বের হয়ে আসলে ওই সময় সার্টিফিকেট সহকারী মমিনুল ইসলাম তার কক্ষে প্রবেশ করা মাত্রই সহকারী কমিশনার (ভূমি) অমিত দত্ত জুতা দিয়ে তার দিকে ছুঁড়েন এবং চেয়ার থেকে উঠে গিয়ে মুমিনুলকে মারপিটসহ অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন।

এ বিষয়ে সার্টিফিকেট সহকারী মমিনুল ইসলাম ইসলাম বলেন, এসিল্যান্ডের স্যারের অফিস কক্ষ প্রবেশ করা মাত্রই আমাকে জুতা দিয়ে ঢিল মারেন এবং চেয়ার থেকে উঠে জুতা দিয়ে মারপিটসহ নানা ধরনের কটূক্তি করেন। পরে আমি রুম থেকে বের হয়ে আসি।

অভিযোগের বিষয় জানতে উপজেলা সহকারী কমিশনারের সরকারি (ভূমি) অফিসে গেলে সেখানে তাকে পাওয়া যায়নি। মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন