জমি অধিগ্রহণের খবরে বিল ভরাট করে ঘরবাড়ি নির্মাণের হিড়িক!
jugantor
জমি অধিগ্রহণের খবরে বিল ভরাট করে ঘরবাড়ি নির্মাণের হিড়িক!

  বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি  

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২১:৩৮:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

জমি অধিগ্রহণের খবরে বিল ভরাট করে ঘরবাড়ি নির্মাণের হিড়িক

নারায়ণগঞ্জ নগরীকে দূষণমুক্ত রাখতে বন্দরে ৩০১ কোটি ৩৫ লাখ ২১ হাজার টাকা ব্যয়ে স্যানিটারি ল্যান্ডফিল নির্মাণ করছে সিটি করপোরেশন। প্রকল্প বাস্তবায়নে ২৫নং ওয়ার্ডের ধামগড় ও লক্ষণখোলা মৌজায় ৬৯ দশমিক ৮৭ একর জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

২০২০ সালের ২০ অক্টোবর একনেক সভায় শতভাগ সরকারি ব্যয়ে বাস্তবায়নের জন্য ল্যান্ডফিল নির্মাণ প্রকল্পটি অনুমোদন পায়।

এদিকে জমি অধিগ্রহণের খবরে বেশি দাম পাওয়ার আশায় ওই এলাকার নিচু জমি ও বিল ভরাট করে ঘরবাড়ি ও প্রতিষ্ঠান নির্মাণের হিড়িক পড়েছে। রাতারাতি ঘর নির্মাণ করে আলকাতরা ও কালো রং মেখে পুরনো বানানোর চেষ্টা করছেন অনেকেই। নাল জমিকে বসতভিটা বানাতে সংশ্লিষ্ট ভূমি অফিসে দৌড়ঝাঁপও করছেন কেউ কেউ।

মন্ত্রণালয়ের কর্মচারী পরিচয়ে জমির ভালো দাম পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে ফায়দা হাসিলের চেষ্টা চলছে বলে এলাকাবাসী জানান।

এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, সরেজমিন যাচাই ও ভিডিওকরণ আগেই সম্পন্ন হয়েছে। এখন নতুন করে ঘরবাড়ি নির্মাণ করে কোনো লাভ হবে না। যে জমি নাল হিসেবে গণ্য হয়েছে সেগুলো বসতভিটার মূল্য পাবে না।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, নারায়ণগঞ্জ শহরে প্রতিদিন ৩৫০ টন কঠিন বর্জ্য তৈরি হয়। এর মধ্যে দৈনিক ২৯০ টন বর্জ্য সংগ্রহ করছে সিটি করপোরেশন। অবশিষ্ট অপরিশোধিত বর্জ্য নদীর পাড়ে বা খালের ওপর ডাম্প করা হচ্ছে। এছাড়া আবাসিক–বাণিজ্যিক ও মেডিকেল বর্জ্য রাস্তার পাশে পুকুর অথবা খালে ফেলা হচ্ছে। এতে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। তাই দূষণ রোধে ডাম্পিং পয়েন্ট তৈরির জন্য ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে বন্দরের লক্ষণখোলায় জমি অধিগ্রহণের প্রস্তাব করে সিটি করপোরেশন।

জমি অধিগ্রহণের খবরে বিল ভরাট করে ঘরবাড়ি নির্মাণের হিড়িক!

 বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি 
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
জমি অধিগ্রহণের খবরে বিল ভরাট করে ঘরবাড়ি নির্মাণের হিড়িক
ছবি-যুগান্তর

নারায়ণগঞ্জ নগরীকে দূষণমুক্ত রাখতে  বন্দরে ৩০১ কোটি  ৩৫ লাখ ২১ হাজার টাকা ব্যয়ে স্যানিটারি ল্যান্ডফিল নির্মাণ করছে সিটি করপোরেশন। প্রকল্প বাস্তবায়নে ২৫নং ওয়ার্ডের ধামগড় ও লক্ষণখোলা মৌজায় ৬৯ দশমিক ৮৭ একর জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। 

২০২০ সালের ২০ অক্টোবর একনেক সভায় শতভাগ সরকারি ব্যয়ে বাস্তবায়নের জন্য ল্যান্ডফিল নির্মাণ প্রকল্পটি অনুমোদন পায়। 

এদিকে জমি অধিগ্রহণের খবরে বেশি দাম পাওয়ার আশায় ওই এলাকার নিচু জমি ও বিল ভরাট করে ঘরবাড়ি ও প্রতিষ্ঠান নির্মাণের হিড়িক পড়েছে। রাতারাতি ঘর নির্মাণ করে আলকাতরা ও কালো রং মেখে পুরনো বানানোর চেষ্টা করছেন অনেকেই। নাল জমিকে বসতভিটা বানাতে সংশ্লিষ্ট ভূমি অফিসে দৌড়ঝাঁপও করছেন কেউ কেউ। 

মন্ত্রণালয়ের কর্মচারী পরিচয়ে জমির ভালো দাম পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে ফায়দা হাসিলের চেষ্টা চলছে বলে এলাকাবাসী জানান। 

এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, সরেজমিন যাচাই ও ভিডিওকরণ আগেই সম্পন্ন হয়েছে। এখন নতুন করে ঘরবাড়ি নির্মাণ করে কোনো লাভ হবে না।  যে জমি নাল হিসেবে গণ্য হয়েছে সেগুলো বসতভিটার মূল্য পাবে না।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, নারায়ণগঞ্জ শহরে প্রতিদিন ৩৫০ টন কঠিন বর্জ্য তৈরি হয়। এর মধ্যে দৈনিক ২৯০ টন বর্জ্য সংগ্রহ করছে সিটি করপোরেশন। অবশিষ্ট অপরিশোধিত বর্জ্য নদীর পাড়ে বা খালের ওপর ডাম্প করা হচ্ছে। এছাড়া  আবাসিক–বাণিজ্যিক ও মেডিকেল বর্জ্য রাস্তার পাশে পুকুর অথবা খালে ফেলা হচ্ছে। এতে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। তাই দূষণ রোধে ডাম্পিং পয়েন্ট তৈরির জন্য ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে বন্দরের লক্ষণখোলায় জমি অধিগ্রহণের প্রস্তাব করে সিটি করপোরেশন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন