অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে প্রাণ গেল চাকরিজীবীর
jugantor
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে প্রাণ গেল চাকরিজীবীর

  বরিশাল ব্যুরো  

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৩:০৬:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা থেকে বরিশালে আসার পথে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে প্রাণ গেল দেলোয়ার হোসেন বাবু (৪০) নামে এক চাকরিজীবীর। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাবুর মৃত্যু হয়।

মৃত দেলোয়ার হোসেন বাবু বরিশাল নগরের দক্ষিণ রুপাতলী এলাকার হাওলাদার বাড়ির মৃত আশ্রাব আলির ছেলে। তিনি ঢাকায় একটি ইন্সুরেন্স কোম্পানিতে চাকরি করতেন।

স্বজনরা জানান, বৃহস্পতিবার সুগন্ধা পরিবহণের একটি বাসে চেপে ঢাকা থেকে বরিশালের উদ্দেশ্য রওনা দেন বাবু। রাত ৮টার দিকে স্বজনরা জানতে পারেন বাবু গাড়িতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছেন। পরে বাবুকে উদ্ধার করে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার দুপুরে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

মৃতের বড় ভাই আলাউদ্দিন (জর্জ) বলেন, চাকরির সুবাদে বাবু ঢাকায় থাকতেন এবং প্রায় প্রতি সপ্তাহে বরিশালে আসতেন। অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে আমার ভাইয়ের জীবনটাই শেষ হয়ে গেল। তার স্ত্রী ও ৪ কন্যা সন্তান রয়েছে।

এ বিষয়ে বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই রুম্মান বলেন, দেলোয়ার হোসেনের মৃত্যু বিষ খাইয়ানো না অন্য কিছুর কারণে হয়েছে তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। তাই সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে প্রাণ গেল চাকরিজীবীর

 বরিশাল ব্যুরো 
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা থেকে বরিশালে আসার পথে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে প্রাণ গেল দেলোয়ার হোসেন বাবু (৪০) নামে এক চাকরিজীবীর। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাবুর মৃত্যু হয়।

মৃত দেলোয়ার হোসেন বাবু বরিশাল নগরের দক্ষিণ রুপাতলী এলাকার হাওলাদার বাড়ির মৃত আশ্রাব আলির ছেলে। তিনি ঢাকায় একটি ইন্সুরেন্স কোম্পানিতে চাকরি করতেন।

স্বজনরা জানান, বৃহস্পতিবার সুগন্ধা পরিবহণের একটি বাসে চেপে ঢাকা থেকে বরিশালের উদ্দেশ্য রওনা দেন বাবু। রাত ৮টার দিকে স্বজনরা জানতে পারেন বাবু গাড়িতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছেন। পরে বাবুকে উদ্ধার করে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার দুপুরে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

মৃতের বড় ভাই আলাউদ্দিন (জর্জ) বলেন, চাকরির সুবাদে বাবু ঢাকায় থাকতেন এবং প্রায় প্রতি সপ্তাহে বরিশালে আসতেন। অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে আমার ভাইয়ের জীবনটাই শেষ হয়ে গেল। তার স্ত্রী ও ৪ কন্যা সন্তান রয়েছে।

এ বিষয়ে বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই রুম্মান বলেন, দেলোয়ার হোসেনের মৃত্যু বিষ খাইয়ানো না অন্য কিছুর কারণে হয়েছে তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। তাই সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন