শেরপুরে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত

প্রকাশ : ২০ জুন ২০১৮, ১৭:০১ | অনলাইন সংস্করণ

  শেরপুর প্রতিনিধি

শেরপুর সদর উপজেলার চুনিয়ারচর গ্রামে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আল আমীন ফকির (২৮) নামে একজন নিহত হয়েছে।

বন্দুকযুদ্ধের সময় আরমান নামে র‌্যাব-১৪ এর গোয়েন্দা শাখার এক কনস্টেবল আহত হয়েছেন বলে র‌্যাবের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।

র‌্যাবের দাবি নিহত ব্যক্তি মাদক ব্যবসায়ী। তবে স্বজনদের দাবি আল আমীনকে র‌্যাব গুলি করে মেরেছে। 

মঙ্গলবার রাত সোয়া ৮টার দিকে ঘটনাটি ঘটলেও বুধবার সকাল ১০টার দিকে আল আমীনের গুলিবিদ্ধ লাশ একটি হলুদ ক্ষেতে পড়ে থাকতে দেখা যায়। 

এলাকাবাসী নিহতের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ বুধবার দুপুর ২টার দিকে লাশ উদ্ধার করে।

নিহত আল আমীন ফকির চুনিয়ার চর গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে।

র‌্যাব-১৪ এর কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাজিব কুমার দেব বুধবার বিকালে মোবাইল ফোনে জানান, মঙ্গলবার রাত সোয়া ৮টার দিকে র‌্যাবের একটি দল মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে শেরপুর সদর উপজেলার চুনিয়ার চর এলাকায় যায়। সেখানে মাদক ব্যবসায়ীদের ধরার চেষ্টা করলে তারা র‌্যাব সদস্যদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় আরমান নামে র‌্যাবের গোয়েন্দা শাখার এক কনস্টেবল আহত হন।

তিনি বলেন, এ সময় মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধ হলেও নিহত হওয়ার কোনো খবর পাওয়া যায়নি। বুধবার সকালে গুলিবিদ্ধ এক মাদক ব্যবসায়ীর লাশ পড়ে থাকার সংবাদ জানা গেছে।

এ ব্যাপারে শেরপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আমিনুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে বুধবার দুপুরে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। এর বেশি কিছু তিনি জানাতে পারেননি।

আল আমীন ফকিরের পরিবারের লোকজন জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে আল আমীনকে মোটরসাইকেলে উঠিয়ে নিয়ে যায় তার মামাতো ভাই সোহাগ। এরপর থেকে তার আর কোনো খোঁজখবর পাওয়া যাচ্ছিল না। বুধবার সকাল ১০টার দিকে আল আমীনের গুলিবিদ্ধ লাশ হলুদ ক্ষেতে পড়ে থাকতে দেখা যায়। র‌্যাব তাকে গুলি করে মেরেছে।