স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার দায়ের কোপে বড় ভাই নিহত
jugantor
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার দায়ের কোপে বড় ভাই নিহত

  লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি  

০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:১০:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

লক্ষ্মীপুরে স্থানীয় ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক হোসেন আহমেদের (৪৫) দায়ের কোপে তার বড় ভাই তোফায়েল আহমেদ (৫২) নিহত হয়েছে।

এ ঘটনায় ছোট ভাই হোসেন আহমেদকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের লাহারকান্দি এলাকার দমদমা পুকুরপাড় স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মাহফুজ্জামান আশরাফ, সদর মডেল থানার ওসি মোসলেহ উদ্দিন ও শহর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক (ইনচার্জ) জহিরুল আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

নিহত তোফায়েল একই এলাকার আজিজ উল্যা দফাদার বাড়ির মমতাজুর রহমানের ছেলে। তার স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে থাকলেও তারা ঢাকায় থাকেন। তিনি একাই বাড়িতে থাকেন।

ঘাতক হোসেন তার আপন ছোট ভাই। তিনি ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এশার নামাজ পড়ে তোফায়েল স্থানীয় একটি দোকানে চা খেতে যান। সেখান থেকে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় দমদমা দিঘিরপাড়ে হোসেন তার ওপর হামলা করে।

একপর্যায়ে তার দু'পায়ের এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। চিৎকার দিতে দিতে বাড়ি যাওয়ার পথে রাস্তায় পড়ে তোফায়েল মারা যান।

স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রায় তোফায়েল ও হোসেনের সঙ্গে ঝগড়া হতো ৷ বুধবার সকালে তোফায়েলের সঙ্গে হোসেনের স্ত্রী জেসমিন বেগমের কথা কাটাকাটি হয়। সন্ধ্যায় হোসেন বাড়িতে এলে জেসমিন তার কাছে বিচার দেন।

তোফায়েলের বোন হোসনেয়ারা বেগম ও ভাতিজি ফারজু আক্তার জানান, তোফায়েল অসুস্থ। তারপরও তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। হোসেন তার স্ত্রীর কথায় প্ররোচিত হয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তারা এর বিচার চেয়েছেন।

লক্ষ্মীপুরে পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফ বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি। স্থানীয় ও স্বজনদের সঙ্গে কথা বলছি। অভিযুক্ত হোসেনকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার দায়ের কোপে বড় ভাই নিহত

 লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি 
০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:১০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লক্ষ্মীপুরে স্থানীয় ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক হোসেন আহমেদের (৪৫) দায়ের কোপে তার বড় ভাই তোফায়েল আহমেদ (৫২) নিহত হয়েছে।

এ ঘটনায় ছোট ভাই হোসেন আহমেদকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের লাহারকান্দি এলাকার দমদমা পুকুরপাড় স্থানে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মাহফুজ্জামান আশরাফ, সদর মডেল থানার ওসি মোসলেহ উদ্দিন ও শহর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক (ইনচার্জ) জহিরুল আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

নিহত তোফায়েল একই এলাকার আজিজ উল্যা দফাদার বাড়ির মমতাজুর রহমানের ছেলে। তার স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে থাকলেও তারা ঢাকায় থাকেন। তিনি একাই বাড়িতে থাকেন।

ঘাতক হোসেন তার আপন ছোট ভাই। তিনি ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এশার নামাজ পড়ে তোফায়েল স্থানীয় একটি দোকানে চা খেতে যান। সেখান থেকে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় দমদমা দিঘিরপাড়ে হোসেন তার ওপর হামলা করে।

একপর্যায়ে তার দু'পায়ের এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। চিৎকার দিতে দিতে বাড়ি যাওয়ার পথে রাস্তায় পড়ে তোফায়েল মারা যান।

স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রায় তোফায়েল ও হোসেনের সঙ্গে ঝগড়া হতো ৷ বুধবার সকালে তোফায়েলের সঙ্গে হোসেনের স্ত্রী জেসমিন বেগমের কথা কাটাকাটি হয়। সন্ধ্যায় হোসেন বাড়িতে এলে জেসমিন তার কাছে বিচার দেন।

তোফায়েলের বোন হোসনেয়ারা বেগম ও ভাতিজি ফারজু আক্তার জানান, তোফায়েল অসুস্থ। তারপরও তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। হোসেন তার স্ত্রীর কথায় প্ররোচিত হয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তারা এর বিচার চেয়েছেন।

লক্ষ্মীপুরে পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফ বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি। স্থানীয় ও স্বজনদের সঙ্গে কথা বলছি। অভিযুক্ত হোসেনকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন