কারা আসছেন টঙ্গী পূর্ব ও পশ্চিম থানা আ.লীগের নেতৃত্বে 
jugantor
কারা আসছেন টঙ্গী পূর্ব ও পশ্চিম থানা আ.লীগের নেতৃত্বে 

  মো. জাকির হোসেন ও লুৎফুজ্জামান লিটন, টঙ্গী থেকে  

০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬:১০:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরের টঙ্গী পূর্ব ও পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের বহুল আলোচিত ত্রিবার্ষিক সম্মেলন আগামীকাল শুক্রবার। দীর্ঘ প্রায় ২০ বছর পর শিল্পাঞ্চল টঙ্গী আওয়ামী লীগের সম্মেলন হচ্ছে। এই সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা বিরাজ করছে। ফিরে এসেছে প্রাণচাঞ্চল্য।

সম্মেলন ঘিরে টঙ্গীর দুই থানাজুড়ে এখন সাজ সাজ রব। পদপ্রত্যাশীদের তোরণ, পোস্টার ও ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে পথঘাট-অলিগলি। সম্মেলনের অতিথিদের নজর কাড়তে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে সাঁটানো হয়েছে নানা রঙ-বেরঙের ব্যানার-ফেস্টুন।

এই সম্মেলনের মধ্য দিয়ে নতুন নেতৃত্ব পেতে যাচ্ছেন টঙ্গী আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। কারা আসছেন দুই থানায় শীর্ষ পদে সেটি জানতে কৌতূহলের শেষ নেই। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চায়ের দোকানে ঝড় উঠছে কমিটি নিয়ে আলোচনায়।

টঙ্গী সরকারি কলেজ ও সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি মাঠকে সম্মেলনের ভেন্যু হিসেবে বেছে নিয়েছেন আয়োজক কমিটি। ইতোমধ্যে সভামঞ্চের কাজ প্রায় শেষের পথে।

সম্মেলনের প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি।
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য শাহাবুদ্দিন ফরাজী, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য শামসুন নাহার ভূঁইয়া এমপি, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র আসাদুর রহমান কিরণ, মহানগরের সাধারণ সম্পাদক আতাউল্লাহ মণ্ডলসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

দুই থানায় ডজনখানেক নেতা সভাপতি ও সম্পাদক পদ থেকে জোর লবিং করে যাচ্ছেন। টঙ্গী পূর্ব থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদপ্রত্যাশীদের দৌড়ে যারা এগিয়ে রয়েছেন তারা হলেন—অবিভক্ত টঙ্গী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন ও সাবেক কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম।

পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে আলোচনায় আছেন সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র ও ৫২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল আলীম মোল্লা, সাবেক ওয়ার্ড কমিশনার সেলিম মিয়া ও সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুজিবুর রহমান খান।
পূর্ব থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় আছেন ৫৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান টিটু, ৪৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূরুল ইসলাম নূরু, অবিভক্ত টঙ্গী থানা যুবলীগের সভাপতি আব্দুস সাত্তার মোল্লা, কাউছার আহমেদ, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা কাজী মোহাম্মদ সেলিম, অ্যাডভোকেট শাহজাহান।

আর পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশীরা হলেন— ৫৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন মোল্লা, ইঞ্জিনিয়ার এমএম হেলাল উদ্দিন, অবিভক্ত টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন, ৫১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আমজাদ হোসেন, আবু সাঈদ, আজিম হায়দার আদিম, নূর মোহাম্মদ শামীম ও মানিক মিয়া।
যোগাযোগ করা হলে পূর্ব ও পশ্চিম থানার একাধিক নেতাকর্মী প্রায় একই রকম তথ্য দিয়ে বলেন, বহু বছর পর থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে। এতে আমরা অনেক আনন্দিত ও উজ্জীবিত। আমরা চাই সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে নতুন নেতৃত্ব আসুক। তা হলে দলের নেতাকর্মীরা আন্দোলন সংগ্রামে চাঙা থাকবে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে টঙ্গী পূর্ব ও পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক মতিউর রহমান মতি বলেন, প্রায় ২০ বছর পর থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে। আমরা আশা করব দুই থানায়ই যেন দলের প্রকৃত ত্যাগী কর্মীদের কমিটিতে স্থান দেওয়া যায়।

কারা আসছেন টঙ্গী পূর্ব ও পশ্চিম থানা আ.লীগের নেতৃত্বে 

 মো. জাকির হোসেন ও লুৎফুজ্জামান লিটন, টঙ্গী থেকে 
০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরের টঙ্গী পূর্ব ও পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের বহুল আলোচিত ত্রিবার্ষিক সম্মেলন আগামীকাল শুক্রবার। দীর্ঘ প্রায় ২০ বছর পর শিল্পাঞ্চল টঙ্গী আওয়ামী লীগের সম্মেলন হচ্ছে। এই সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা বিরাজ করছে। ফিরে এসেছে প্রাণচাঞ্চল্য। 

সম্মেলন ঘিরে টঙ্গীর দুই থানাজুড়ে এখন সাজ সাজ রব। পদপ্রত্যাশীদের তোরণ, পোস্টার ও ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে পথঘাট-অলিগলি। সম্মেলনের অতিথিদের নজর কাড়তে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে সাঁটানো হয়েছে নানা রঙ-বেরঙের ব্যানার-ফেস্টুন। 

এই সম্মেলনের মধ্য দিয়ে নতুন নেতৃত্ব পেতে যাচ্ছেন টঙ্গী আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। কারা আসছেন দুই থানায় শীর্ষ পদে সেটি জানতে কৌতূহলের শেষ নেই। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চায়ের দোকানে ঝড় উঠছে কমিটি নিয়ে আলোচনায়।

টঙ্গী সরকারি কলেজ ও সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি মাঠকে সম্মেলনের ভেন্যু হিসেবে বেছে নিয়েছেন আয়োজক কমিটি। ইতোমধ্যে সভামঞ্চের কাজ প্রায় শেষের পথে। 

সম্মেলনের প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি। 
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী  জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য শাহাবুদ্দিন ফরাজী, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য শামসুন নাহার ভূঁইয়া এমপি, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র আসাদুর রহমান কিরণ, মহানগরের সাধারণ সম্পাদক আতাউল্লাহ মণ্ডলসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। 

দুই থানায় ডজনখানেক নেতা সভাপতি ও সম্পাদক পদ থেকে জোর লবিং করে যাচ্ছেন। টঙ্গী পূর্ব থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদপ্রত্যাশীদের দৌড়ে যারা এগিয়ে রয়েছেন তারা হলেন—অবিভক্ত টঙ্গী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন ও সাবেক কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম। 

পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে আলোচনায় আছেন সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র ও ৫২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল আলীম মোল্লা, সাবেক ওয়ার্ড কমিশনার সেলিম মিয়া ও সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুজিবুর রহমান খান। 
পূর্ব থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় আছেন ৫৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান টিটু, ৪৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূরুল ইসলাম নূরু, অবিভক্ত টঙ্গী থানা যুবলীগের সভাপতি আব্দুস সাত্তার মোল্লা, কাউছার আহমেদ, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা কাজী মোহাম্মদ সেলিম, অ্যাডভোকেট শাহজাহান। 

আর পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশীরা হলেন— ৫৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন মোল্লা, ইঞ্জিনিয়ার এমএম হেলাল উদ্দিন, অবিভক্ত টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন, ৫১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আমজাদ হোসেন, আবু সাঈদ, আজিম হায়দার আদিম, নূর মোহাম্মদ শামীম ও মানিক মিয়া।
যোগাযোগ করা হলে পূর্ব ও পশ্চিম থানার একাধিক নেতাকর্মী প্রায় একই রকম তথ্য দিয়ে বলেন, বহু বছর পর থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে। এতে আমরা অনেক আনন্দিত ও উজ্জীবিত। আমরা চাই সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে নতুন নেতৃত্ব আসুক। তা হলে দলের নেতাকর্মীরা আন্দোলন সংগ্রামে চাঙা থাকবে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে টঙ্গী পূর্ব ও পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক মতিউর রহমান মতি বলেন, প্রায় ২০ বছর পর থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হতে যাচ্ছে। আমরা আশা করব দুই থানায়ই যেন দলের প্রকৃত ত্যাগী কর্মীদের কমিটিতে স্থান দেওয়া যায়।   

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন