গৌরীপুর উপনির্বাচনে ইউপি চেয়ারম্যানের জালভোটের স্বীকারোক্তির ভিডিও ভাইরাল

  গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ২৭ জুন ২০১৮, ১৭:৪৮ | অনলাইন সংস্করণ

ডৌহাখলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সরকার
ছবি: যুগান্তর

ময়মনসিংহ-৩ গৌরীপুর আসনের উপনির্বাচনে জালভোট দিয়ে নাজিম উদ্দিন আহমেদকে এমপি বানিয়েছেন বলে স্বীকারোক্তি গৌরীপুর উপজেলার ডৌহাখলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সরকার।

তিনি বলেন, “নেত্রী তাকে নৌকা দিছে, প্রত্যেক নেতাকর্মী সিল মাইরা তারে এমপি বানাইয়্যা সংসদে পাঠাইছি”। এমন একটি বক্তব্যের ভিডিও ইউটিউব ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিও প্রকাশের পর বিষয়টি নিয়ে আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। এ ঘটনায় দলের অনেক সিনিয়র নেতাকর্মী চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তাদের দাবি এটা এমপির বিরুদ্ধে চেয়ারম্যানের অপপ্রচার।

স্থানীয় ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রোজার ঈদের আগে গৌরীপুর উপজেলার কলতাপাড়া বাজারের একটি কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় চেয়ারম্যানের দেয়া বক্তব্যের অংশবিশেষ ইউটিউবে দেয়া হয়েছে।

চেয়ারম্যান তার বক্তব্যে ডৌহাখলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ বা অন্য কোনো অঙ্গসংগঠনের সঙ্গে এমপি নাজিম উদ্দিন আহমেদের সমন্বয় না থকার অভিযোগ করেন।

বক্তব্যের একাংশে চেয়ারম্যান বলেন, “নেত্রী নৌকা তাকে (নাজিম উদ্দিন) দিছে, প্রত্যেক নেতাকর্মী সিল মাইরা তারে এমপি বানাইয়্যা সংসদে পাঠাইছি”।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি চেয়াম্যান শহীদুল হক সরকার বলেন, আমাদের দলীয় কার্যালয়ে ঘরোয়া আলোচনা চলছিল। দলের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন ক্ষোভ উপশম করতে গিয়ে এমপি মহোদয় সম্পর্কে আলোচনা হয়েছে। সেই আলোচনা গোপনে ভিডিও ধারণ করে ইউটিউবে ছেড়ে দিয়েছে। ওরাও আমাদের দলীয় শত্রু।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিধু ভূষণ দাস বলেন, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অবাধ ও সুষ্ঠু একটি উপনির্বাচনে মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। কিন্তু ভিডিও বার্তায় শহীদ চেয়ারম্যান যেসব কথা বলেছেন সেটা অত্যন্ত দুঃখজনক ও সম্পূর্ণ বানোয়াট।

ময়মনসিংহ-৩ গৌরীপুর আসনের সংসদ সদস্য, সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ এমপি বলেন, যে বক্তব্য দিয়েছেন তা সম্পূর্ণ সাংগঠনিক ও দলীয় শৃঙ্খলাবহির্ভূত। এ ধরনের বক্তব্য তিনি দিতে পারেন না। আর আমি ডৌহাখলা ইউনিয়নের দলীয় সব নেতাকর্মীর সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ২ মে গৌরীপুর আসনের এমপি ডা. ক্যাপ্টেন (অব.) মজিবুর রহমান ফকিরের মৃত্যুর পর আসনটি শূন্য হয়। পরে ১৮ জুলাই অনুষ্ঠিত ওই আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন নিয়ে এমপি পদে মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ বিজয়ী হন।

ওই উপনির্বাচনে ভয়ভীতি ও মারধোর করে এজেন্টদের বের করে দিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা কেন্দ্র দখলে নিয়ে সীল মারার অভিযোগে এনে সংবাদ সম্মেলনে করে উপনির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন জাতীয় পাটির প্রার্থী শামছুজ্জামান জামাল।

 

 

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.