মায়ের পরকীয়ায় অসহায় শিশু!
jugantor
মায়ের পরকীয়ায় অসহায় শিশু!

  নড়াইল প্রতিনিধি  

২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ২২:১৪:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার পাচুড়িয়া গ্রামের ৪ বছরের একটি শিশু অঝোরে কেঁদেই যাচ্ছে। তার বাবা ঢাকায় একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। তিনি সেখানেই রয়েছেন।

এদিকে শিশুটির মাকে গত ১৫ জানুয়ারি ফুঁসলিয়ে নিয়ে পালিয়েছে বখাটে যুবক সৈয়দ শাকিল। মাকে না পেয়ে মাঝে মাঝেই কেঁদে উঠছে শিশুটি। শিশুটির কান্না দেখে এলাকার মানুষেরা খুবই মনোকষ্টে আছেন। তবে এ নিয়ে কোনো ভাবনা নেই শাকিলের বাবা-মায়ের।

রোববার সরেজমিন পাচুড়িয়া গ্রামে গিয়ে দেখা যায় চার বছরের শিশুটি মনমরা অবস্থায় অন্য শিশুদের সঙ্গে খেলছে।

শিশুটির দাদি ও প্রতিবেশীরা আরও জানান, এলাকার লোকজন বখাটে শাকিলের পরিবারের কাছে গিয়ে শিশুটির কথা বিবেচনা করে তার মাকে ফেরত এনে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করলেও তারা কর্ণপাত করছেন না।

শিশুটির দাদি আরও জানান, তার নাতি প্রতিদিন সন্ধ্যা হলে মায়ের জন্য কান্না শুরু করে, অনেক রাত পর্যন্ত কান্নাকাটি করে ক্লান্ত হয়ে একপর্যায়ে ঘুমিয়ে যায়।

এদিকে শাকিলের বাড়িতে গেলে তার বাবা-মা কাউকেই পাওয়া যায়নি। তবে প্রতিবেশীদের কেউ কেউ বলেন- শিশুটির মায়ের চরিত্র মোটেও ভালো নয়। তাকে কেউ ফুঁসলিয়ে নেয়নি। তিনি স্বেচ্ছায় গেছেন।

লোহাগড়া থানার এসআই শুকুর বলেন, শিশুটির মাকে উদ্ধারের জন্য একাধিকবার উভয় পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছেন। তারা ঢাকায় আছে। তাদের উদ্ধারে তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

তবে শিশুটির দাদির দাবি, নিয়মিত মামলা রেকর্ড করে আসামিদের গ্রেফতার করলে তিনি ছেলের বউকে ফিরে পেতেন। এ ব্যাপারে তিনি পুলিশ প্রশাসনের আন্তরিক হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

মায়ের পরকীয়ায় অসহায় শিশু!

 নড়াইল প্রতিনিধি 
২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১০:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার পাচুড়িয়া গ্রামের ৪ বছরের একটি শিশু অঝোরে কেঁদেই যাচ্ছে। তার বাবা ঢাকায় একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। তিনি সেখানেই রয়েছেন।

এদিকে শিশুটির মাকে গত ১৫ জানুয়ারি ফুঁসলিয়ে নিয়ে পালিয়েছে বখাটে যুবক সৈয়দ শাকিল। মাকে না পেয়ে মাঝে মাঝেই কেঁদে উঠছে শিশুটি। শিশুটির কান্না দেখে এলাকার মানুষেরা খুবই মনোকষ্টে আছেন। তবে এ নিয়ে কোনো ভাবনা নেই শাকিলের বাবা-মায়ের।

রোববার সরেজমিন পাচুড়িয়া গ্রামে গিয়ে দেখা যায় চার বছরের শিশুটি মনমরা অবস্থায় অন্য শিশুদের সঙ্গে খেলছে।

শিশুটির দাদি ও প্রতিবেশীরা আরও জানান, এলাকার লোকজন বখাটে শাকিলের পরিবারের কাছে গিয়ে শিশুটির কথা বিবেচনা করে তার মাকে ফেরত এনে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করলেও তারা কর্ণপাত করছেন না।

শিশুটির দাদি আরও জানান, তার নাতি প্রতিদিন সন্ধ্যা হলে মায়ের জন্য কান্না শুরু করে, অনেক রাত পর্যন্ত কান্নাকাটি করে ক্লান্ত হয়ে একপর্যায়ে ঘুমিয়ে যায়।

এদিকে শাকিলের বাড়িতে গেলে তার বাবা-মা কাউকেই পাওয়া যায়নি। তবে প্রতিবেশীদের কেউ কেউ বলেন- শিশুটির মায়ের চরিত্র মোটেও ভালো নয়। তাকে কেউ ফুঁসলিয়ে নেয়নি। তিনি স্বেচ্ছায় গেছেন।

লোহাগড়া থানার এসআই শুকুর বলেন, শিশুটির মাকে উদ্ধারের জন্য একাধিকবার উভয় পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছেন। তারা ঢাকায় আছে। তাদের উদ্ধারে তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

তবে শিশুটির দাদির দাবি, নিয়মিত মামলা রেকর্ড করে আসামিদের গ্রেফতার করলে তিনি ছেলের বউকে ফিরে পেতেন। এ ব্যাপারে তিনি পুলিশ প্রশাসনের আন্তরিক হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন