রাবির কোটা আন্দোলনের নেতা তারেক সংকটাপন্ন, ঢাকায় স্থানান্তর

প্রকাশ : ০৮ জুলাই ২০১৮, ১৯:২৫ | অনলাইন সংস্করণ

  রাজশাহী ব্যুরো

ছবি: যুগান্তর

ছাত্রলীগের হামলার গুরুতর আহত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা তরিকুল ইসলাম তারেককে সংকটাপন্ন অবস্থায় ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে। 

রোববার সকালে রাজশাহী নগরীর রয়েল হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকের পরামর্শে তারেককে নিয়ে একটি অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেন তার স্বজন এবং সহপাঠীরা। 

রয়েল হাসপাতালে তারেকের তত্ত্বাবধানকারী চিকিৎসক ডা. সাইদ আহম্মদ বলেন, তার ডান পায়ের হাড় ভেঙে গেছে। এছাড়া মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কোমরের হাড়। পায়ে অস্ত্রোপচার করতে হবে। আর শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় তাকে ঢাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য পরামর্শ দিয়েছি।  
তারেকের সহপাঠী মতিউর রহমান রোববার বিকালে বলেন, ঢাকার মগবাজারের  কমিউনিটি হাসপাতালে তারেককে ভর্তির ব্যাপারে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি। শনিবার রাতে সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক রিপোর্ট দেখে তারেকের মেরুদণ্ডের হাড় ভাঙেনি বলে জানান। তবে বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শক্ত কোনো কিছুর আঘাতে এ ধরনের ক্ষতি হয়েছে। আর ভাঙা পায়ের ক্ষত ও ফোলা না কমার আগে অস্ত্রোপচার করা যাবে না বলে জানিয়েছেন ওই চিকিৎসক।

চিকিৎসার খরচ প্রসঙ্গে মতিউর বলেন, বন্ধু, সহপাঠী, শিক্ষক ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের সহযোগিতায় এখন পর্যন্ত তারেকের চিকিৎসা চলছে। তবে চিকিৎসার ব্যয় বহন করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে তারেকের পরিবারের সদস্যরা চিকিৎসা সহায়তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।  

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, সবসময় তারেকের খোঁজ নেয়ার চেষ্টা করছি। রাজশাহীর বাইরে থাকায় সম্প্রতি যোগাযোগ করা হয়নি। তবে আজ মোবাইল ফোনে তারেকের সঙ্গে যোগাযোগ করব।

প্রসঙ্গত, গত ২ জুলাই ছাত্রলীগের হামলায় তারেক গুরুতর আহত হন তারেক। আহত অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। পরে গত ৫ জুলাই তাকে জোরপূর্বক ‘ছাড়পত্র’ দিয়ে বের করে দেয় রামেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এরপর নগরীর বেসরকারি রয়েল হাসপাতালে তারেককে ভর্তি করা হয়।