পাওনা আদায়ে বের হওয়ার পরদিন ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

প্রকাশ : ১৩ জুলাই ২০১৮, ১০:১৭ | অনলাইন সংস্করণ

  যশোর ব্যুরো

যশোরের চৌগাছায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে রতন (২৭) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার ভোরে চৌগাছা-যশোর সড়কের কয়ারপাড়া বাজারের পাশে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রতনের বাড়ি চৌগাছা উপজেলার দীঘলসিংহা গ্রামে।

তার বাবা আবু বক্কর ও মা ফরিদা বেগমের দাবি, রতন মাগুরা জেলার এক ব্যক্তির কাছে টাকা পেত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে পাওনা টাকা দেয়ার কথা বলে ওই ব্যক্তি মোবাইল ফোনে তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। দুপুর আড়াইটার দিকে মোটরসাইকেলযোগে সে বাড়ি থেকে বের হয়।

তারা বলেন, সন্ধ্যায় বাড়ি না ফেরায় এবং মোবাইল ফোন রিসিভ না করায় অনেক খোঁজাখুঁজি করেও ছেলের সন্ধান পাইনি।

পরে শুক্রবার ভোরে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল থেকে পূর্বপরিচিত এক ব্যক্তি মোবাইলে জানান, হাসপাতালে রতনের মতো দেখতে একজনের লাশ রয়েছে। সেখানে গিয়ে আমরা তার লাশ শনাক্ত করি।

চৌগাছা থানার ওসি খন্দকার শামিম উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, রাতে তারা সংবাদ পান চৌগাছা যশোর সড়কের কয়ারপাড়া নামক স্থানে দুদল সন্ত্রাসীর মধ্যে ‘গোলাগুলি’ হচ্ছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। এ সময় সেখানে অজ্ঞাত একজনের লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়।

তিনি বলেন, লাশটি উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ সময় লাশের পাশ থেকে একটি ওয়ান শুটারগান, এক রাউন্ড গুলি ও এক প্যাকেট ইয়াবা উদ্ধার করা হয় বলে দাবি করেন ওসি।
শামিম উদ্দিন আরও বলেন, নিহত রতনের বিরুদ্ধে পুলিশের ওপর হামলাসহ কয়েকটি মাদক মামলা রয়েছে। পরে হাসপাতাল মর্গে স্বজনরা লাশ শনাক্ত করেন।

তবে রতনের বাবা-মা জানিয়েছেন, আগে মাদক বিক্রি করলেও রতন ২-৩ বছর ধরে তা ছেড়ে দিয়েছে।