নড়াইলে মোবাইল চুরির অভিযোগে আড়াইলাখ টাকা জরিমানা!

  নড়াইল প্রতিনিধি ১৭ জুলাই ২০১৮, ১৮:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

গ্রাম্য সালিশে যুবককে নাকে খতসহ আড়াইলাখ টাকা জরিমানা
গ্রাম্য সালিশে যুবককে নাকে খতসহ আড়াইলাখ টাকা জরিমানা। ছবি: যুগান্তর

নড়াইলে মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে শিপন রায় (২৫) নামে এক যুবককে গ্রাম্য সালিশে নাকে খতসহ আড়াইলাখ টাকা জরিমানা করেছেন স্থানীয় মাতব্বররা।

জরিমানার অর্থ পরিশোধে অপারগ হলে বসতবাড়ি বিক্রি করে তা আদায় করা হবে। অন্যথায় গ্রাম থেকে তাড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়েছে।

শনিবার সদর উপজেলার বিছালী ইউনিয়নের রুখালী গ্রামের মোড়ল শৈলেন্দ্রনাথ সিকদারের বাড়িতে এক সালিশে এ সীদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এ ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হলে পুলিশ সুপার অভিযুক্ত পাঁচ মাতব্বরকে ডেকে জিজ্ঞসাবাদ করেছেন।

ভূক্তভোগী শিপন রুখালি গ্রামের স্বপন রায়ের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১১জুলাই রাতে বিছালী ইউপি ভবনের সামনে বড় পর্দায় বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা দেখানো হচ্ছিল। এ সময় ইউপি ভবন সংলগ্ন শৈলেন্দ্র নাথ শিকদারের বাড়ি থেকে একটি মোবাইল ফোন ও ভারতীয় ১ হাজার ৮০০ রুপি চুরি হয়।

মোবাইল ও ভারতীয় রুপি চুরির সঙ্গে শিপন রায় জড়িত এমন সন্দেহে শনিবার স্থানীয় মাতব্বর শৈলেন্দ্র নাথ শিকদার গ্রামের অন্য মাতব্বর বিশ্ব বিশ্বাস, মৃতুঞ্জয় বিশ্বাস, গামা বিশ্বাস ও সুবুদ্ধি মজুমদারকে সঙ্গে নিয়ে এক প্রহসনমূলক সালিশে বসেন। সালিশে শিপনকে চোর সাব্যস্ত করে মাতব্বররা বেধড়ক চড়-লাথি মেরে নাকে খতসহ আড়াইলাখ টাকা জরিমানা করেন।

জরিমানার অর্থ পরিশোধে অপারগ হলে বসতবাড়ি বিক্রি করে তা আদায় করা হবে। অন্যথায় গ্রাম থেকে তাড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়া হয় সালিশে।

কোনো সাক্ষ্য প্রমাণ ছাড়াই চুরির অপরাধে গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে যুবককে মারধর করে নাকে খত দেয়া ও মোটা অঙ্কের টাকা জরিমানার বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

এ প্রসঙ্গে মির্জাপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আমিনুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, ‘অভিযুক্ত মাতব্বরদের সঙ্গে নিয়ে এসপি স্যারের নিকট গিয়েছিলাম। স্যার বিষয়টি শুনেছেন। এ ঘটনায় মামলা কিংবা কেউ আটক হয়নি।’

এ ব্যাপারে বিছালী ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান বলেন, ‘ইতিমধ্যে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে অভিযুক্ত মাতব্বরদের ডেকে বিষয়টি মীমাংসা করা হয়েছে।’

একই বিষয়ে মতামত জানতে মোবাইল ফোনে নড়াইল পুলিশ সুপার মোহম্মদ জসিম উদ্দিনের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

 

 

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter