শ্রীমঙ্গলে ধরা পড়ল দুর্লভ ‘ফ্লাইং স্কুইরেল’

  শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি ১৮ জুলাই ২০১৮, ২০:৩০ | অনলাইন সংস্করণ

শ্রীমঙ্গলে ধরা পড়ল দুর্লভ ফ্লাইং স্কুইরেল
শ্রীমঙ্গলে ধরা পড়ল দুর্লভ ফ্লাইং স্কুইরেল। ছবি: যুগান্তর

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের বনে ধরা পড়ল ‘ফ্লাইং স্কুইরেল’ বা ‘উড়ন্ত কাঠবিড়ালি’। দুর্লভ এই প্রাণীটি বুধবার সকালে বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনে নিয়ে আসেন পরিচালক সজল দেব।

তিনি জানান, গত ১৪ জুলাই কাজল হাজরা নামে এক সৌখিন আলোকচিত্রী বনের চা-বাগানে অসুস্থ অবস্থায় কাঠবিড়ালিটিকে পড়ে থাকতে দেখে তার বাড়ি নিয়ে যান। তারপর সুস্থ করে তোলেন। বুধবার প্রাণীটিকে বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের কাছে হস্তান্তর করেন।

কাজল হাজরা সাংবাদিকদের জানান, ‘সখের বসে ছবি তুলতে প্রায়ই ক্যামেরা নিয়ে বনবাদারে ঘুরে বেড়াই। গত ১৪ জুলাই রাস্তার পাশের চা-বাগানে এই কাঠবিড়ালির বাচ্চাটিকে দেখতে পাই। স্পর্শ করে বুঝতে পারলাম এটি অসুস্থ। সেখান থেকে কাঠবিড়ালিটিকে বাড়িতে এনে দুধ, পানি, কলা খাইয়ে কয়েক দিনে কিছুটা সুস্থ করে তুলি’।

বাংলাদেশ বন্য প্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক সজল দেব বলেন, এটি কাঠবিড়ালি প্রজাতির মধ্যে দুর্লভ। এর ইংরেজি নাম ‘পার্টিকালারড ফ্লাইং স্কুইরেল’ বা বিচিত্রা উড়ন্ত কাঠবিড়ালি। মাথাসহ এদের দেহের দৈর্ঘ্য ২৫ থেকে ৩০ সেন্টিমিটার আর লেজ ২৫ থেকে ৩০ সেন্টিমিটার হয়ে থাকে। সজল দেব জানান, উড়ন্ত কাঠবিড়ালি নিশাচর ও বৃক্ষবাসী প্রাণী। মাটিতে তেমন পা ফেলে না। এক গাছ থেকে অন্য গাছে ১৫০ থেকে ২০০ ফুট দূরত্বে এরা উড়তে পারে। গাছের শিকড়, কুঁড়ি পাতা, পিঁপড়ের ডিম ইত্যাদি খেয়ে বেঁচে থাকে। উড়ার সময় লেজটাকে তারা লাগাম হিসেবে ব্যবহার করে।

তিনি বলেন, উড়ন্ত কাঠবিড়ালি সাধারণত ১০-১২ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকে। তবে বিপন্ন বন্য পরিবেশ ও খাদ্যসংকটের কারণে এদের গড় আয়ু এখন অর্ধেকে নেমে এসেছে। সিলেট ও চট্টগ্রামের বনাঞ্চলে এদের বেশি দেখা যায়’।

উদ্ধারকৃত প্রাণীটি এখনো বেশ অসুস্থ। সুস্থ করে তোলার চেষ্টা করছি। সুস্থ হলে এটিকে অবমুক্ত করা হবে বলে সজল দেব জানান।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter