বিচ্ছিন্ন ঘটনায় কুড়িগ্রাম-৩ শূন্য আসনের ভোটগ্রহণ চলছে

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ২৫ জুলাই ২০১৮, ১৩:২৫ | অনলাইন সংস্করণ

বিচ্ছিন্ন ঘটনায় কুড়িগ্রাম-৩ শূন্য আসনের ভোটগ্রহণ চলছে
ছবি- যুগান্তর

কুড়িগ্রাম-৩ শূন্য আসনের উপনির্বাচনে বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে ভোটগ্রহণ চলছে।

বুধবার সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়, একটানা চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত।

সকালে কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের উপস্থিতি নেই বললেই চলে। কোথাও লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দিতে দেখা যায়নি। দু’একজন ভোটার এসে নীরবে ভোট দিয়ে চলে যাচ্ছেন। তবে দুজন প্রার্থী একে অপরের বিরুদ্ধে করছেন অভিযোগ পাল্টাঅভিযোগ।

এর মধ্যে জালভোট দেয়ার অভিযোগে উলিপুরের হাতিয়া ইউনিয়নের নয়াডারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে তিনজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান ওই কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা এসআই মিজানুর রহমান।

জাতীয় পার্টির প্রার্থী ডা. আক্কাস আলী সরকার জানান, থেতরাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দুর্গাপুর ও পাঁচপীরসহ বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে তাদের এজেন্টদের ভেতরে প্রবেশ করতে বাধা দেয়া হচ্ছে।

সরেজমিন থেতরাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে জাতীয় পার্টির এজেন্টদের বাইরে আটকে দেয়া হয়েছে। পরে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান এজেন্টদের ভেতরে আসার ব্যবস্থা করে দেন।

বেলা পৌনে ১১টার দিকে সাতদরগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এক হাজার ২৫৭ ভোটের মধ্যে ৩০০ ভোটার ভোটা প্রদান করেছেন। ভোট সুষ্ঠু হলে জাতীয় পার্টির প্রার্থী জয়লাভের আশা করছেন।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী এমএ মতিন জানান, গত ১০ দিন ধরে আওয়ামী লীগের কর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে মামলাও হয়েছে। আশা করি শান্তিপূর্ণভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। দেশের সমৃদ্ধির জন্য মানুষ নৌকায় ভোট দেবেন। তিনিও জয়ের ব্যাপারে আশা প্রকাশ করেন।

আওয়ামী লীগ প্রার্থী এমএ মতিন এমএস স্কুল অ্যান্ড কলেজে এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থী ডা. আক্কাস আলী সরকার বুড়াবুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়কেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন জানান, কুড়িগ্রাম-৩ শূন্য আসনে নির্বাচনে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এখন পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১১ মে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী একেএম মাইদুল ইসলামের মৃত্যুর কারণে কুড়িগ্রাম-৩ আসনটি শূন্য হয়। এ আসনে গত ১০ জুন নির্বাচন কমিশন উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ৪ জুলাই প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।

কুড়িগ্রাম-৩ আসনের উপনির্বাচনে উলিপুর উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১২টি ইউনিয়ন এবং চিলমারী উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এখানে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে অধ্যাপক এমএ মিতিন এবং জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে ডা. আক্কাস আলী সরকার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৬৩ হাজার ৭৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৭৬ হাজার ৪৭৭ জন এবং নারী ভোটার ১ লাখ ৮৬ হাজার ৫৯৮ জন। ভোটকেন্দ্র ১৫৯টি এবং ভোট কক্ষ ৭৬৭টি। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্র রয়েছে ৬৯টি। কেন্দ্রগুলোতে ১৫৯ জন প্রিসাইডিং অফিসার, ৭৬৭ জন সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার ও ১ হাজার ৫৩৪ জন পোলিং এজেন্ট দায়িত্ব পালন করছে।।

শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, অপরাধ দমন ও আচরণবিধি সংক্রান্ত অভিযোগ নিষ্পত্তির জন্য স্ট্রাইকিং ফোর্সের জন্য ২৬ জন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়েছে।

স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে রংপুর র‌্যাব-১৩ এর ৩০টি টহল টিমে ৩৪৬ সদস্য, কুড়িগ্রাম-২২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের ১৩ প্লাটুন বিজিবির ২৬৩ জওয়ান এবং ২ হাজার ৩০০ পুলিশ ও ২৫০ অস্ত্রধারী আনসার নিরাপত্তার দায়িত্বে আছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter