ফোনে কথা বলা নিয়ে সহপাঠীর হাতে হাফেজি মাদ্রাসাছাত্র খুন
jugantor
ফোনে কথা বলা নিয়ে সহপাঠীর হাতে হাফেজি মাদ্রাসাছাত্র খুন

  কুয়াকাটা প্রতিনিধি  

২৭ জুলাই ২০১৮, ২০:৫৭:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

কুয়াকাটা মহিপুরের বরকুতিয়ায় হাফেজি মাদ্রাসায় ছাত্রের হাতে এক ছাত্র খুন হয়েছে। শুক্রবার দুপুরের এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এক কিশোর মাদ্রাসাছাত্রকে স্থানীয়রা আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

নিহত রাজিব ওই ইউনিয়নের বরকুতিয়া গ্রামের লিটন খলিফার ছেলে এবং অভিযুক্ত আবু বক্কর পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন বালিয়াতলীর সোনাপাড়া গ্রামের নাসির তালুকদারের ছেলে।

মহিপুর থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই এলাকার ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের মোহাম্মাদপুর হেফজুল কোরআন দ্বিনীয়া মাদ্রাসায় ছুরির আঘাতে নিহত হয় অপর ছাত্র রাজিব (১১)।

দুপুরে ফোনে কথা বলার সময় একই মাদ্রাসার ছাত্র রাজিবকে সেখান থেকে চলে যেতে বললেও সে না যাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে আবু বক্কর ছুরিকাঘাত করে।

রাজিবের চিৎকারে তাৎক্ষণিক আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে কলাপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে ঘটনার পরপরই খুনের অভিযোগে আবু বক্করকে স্থানীয়রা আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

মহিপুর থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বলেন, কলাপাড়া হাসপাতাল থেকে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত কিশোর মাদ্রাসাছাত্র আবু বক্করকে আটক করা হয়েছে।

ফোনে কথা বলা নিয়ে সহপাঠীর হাতে হাফেজি মাদ্রাসাছাত্র খুন

 কুয়াকাটা প্রতিনিধি 
২৭ জুলাই ২০১৮, ০৮:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুয়াকাটা মহিপুরের বরকুতিয়ায় হাফেজি মাদ্রাসায় ছাত্রের হাতে এক ছাত্র খুন হয়েছে। শুক্রবার দুপুরের এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এক কিশোর মাদ্রাসাছাত্রকে স্থানীয়রা আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

নিহত রাজিব ওই ইউনিয়নের বরকুতিয়া গ্রামের লিটন খলিফার ছেলে এবং অভিযুক্ত আবু বক্কর পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন বালিয়াতলীর সোনাপাড়া গ্রামের নাসির তালুকদারের ছেলে।
 
মহিপুর থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই এলাকার ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের মোহাম্মাদপুর হেফজুল কোরআন দ্বিনীয়া মাদ্রাসায় ছুরির আঘাতে নিহত হয় অপর ছাত্র রাজিব (১১)। 

দুপুরে ফোনে কথা বলার সময় একই মাদ্রাসার ছাত্র রাজিবকে সেখান থেকে চলে যেতে বললেও সে না যাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে আবু বক্কর ছুরিকাঘাত করে। 

রাজিবের চিৎকারে তাৎক্ষণিক আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে কলাপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
 
এদিকে ঘটনার পরপরই খুনের অভিযোগে আবু বক্করকে স্থানীয়রা আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

মহিপুর থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বলেন, কলাপাড়া হাসপাতাল থেকে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত কিশোর মাদ্রাসাছাত্র আবু বক্করকে আটক করা হয়েছে।

 
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন