রাজশাহীতে বুলবুলের এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ

  রাজশাহী ব্যুরো ৩০ জুলাই ২০১৮, ১৪:১৯ | অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীতে বুলবুলের এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ
ছবি- যুগান্তর

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কয়েকটি ভোটকেন্দ্র থেকে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার সকালে বুলবুলের প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট তোফাজ্জল হোসেন তপু অভিযোগে বলেন, নগরীর ১৮, ১৯, ২১ ও ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের কয়েকটি কেন্দ্রে এসব ঘটনা ঘটেছে।

তবে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রগুলোর প্রিসাইডিং অফিসাররা বলেন, বিএনপির পোলিং এজেন্টরা নিজেরাই বাইরে ঘোরাঘুরি করছিল। তাদের কেউ বের করে দেননি।

আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী লিটনের দাবি, একটি পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে বিএনপি নানা অজুহাতে ভোটের পরিবেশ বিঘ্ন করার চেষ্টা করছে।

সংশ্লিষ্টদের অভিযোগে জানা গেছে, সকাল ৮টায় ভোট শুরুর কিছুক্ষণ পর বুলবুলের ধানের শীষের এজেন্ট ইমন উপশহরের ইউসেপ স্কুল ভোটকেন্দ্র থেকে বের হয়ে যান।

পরে তিনি সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, আমাকে ভোটকেন্দ্রের ভেতরে থাকতে দিচ্ছে না আওয়ামী লীগের প্রার্থী লিটনের এজেন্টরা। পরে অবশ্য ইমন শেখ কেন্দ্রের ভেতরে গিয়ে দায়িত্ব পালন করেন।

একই কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের নৌকা প্রতীকের এজেন্ট কামাল হোসেন বলেন, ইমন শেখকে কেউ বের করে দেননি। সিগারেট খেতে বের হয়েছেন।

এদিকে ২১ নম্বর ওয়ার্ডের সিরোইল সরকারি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে (পুরুষ ও মহিলা) ধানের শীষ প্রতীকের ১৫ পোলিং এজেন্টকে কেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেন বুলবুলের প্রধান এজেন্ট তোফাজ্জল হোসেন তপু।

এ ঘটনার খবর পেয়ে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী বুলবুল সকাল ১০টার দিকে ছুটে যান সিরোইল সরকারি স্কুলকেন্দ্রে। সেখানে তিনি কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার জাকির হোসেনের সঙ্গে কথা বলেন এবং নিয়োজিত এজেন্টদের বুথে বুথে বহাল করেন।

অন্যদিকে তেরখাদিয়া স্টেডিয়ামকেন্দ্রে ধানের শীষের এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ পেয়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সাংবাদিকরা সেখানে ছুটে যান। কিন্তু সাংবাদিকরা গিয়ে দেখেন সেখানে ধানের শীষের তিন এজেন্ট নিজ নিজ বুথে দায়িত্ব পালন করছেন।

এদিকে নগরীর ২৯নং ওয়ার্ডের বিনোদপুর ইসলামিয়া কলেজকেন্দ্রে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দিয়ে প্রিসাইডিং অফিসারের সহায়তায় নৌকার বাক্সে ভোট ফেলার অভিযোগ করেন বুলবুলের প্রধান এজেন্ট তপু।

তিনি অভিযোগে বলেন, ইসলামিয়া কলেজের মোট ভোটার দুই হাজার ২৮৪ জন। সকাল সাড়ে ১০টার মধ্যে এই কেন্দ্রে ৫০ শতাংশ ভোটদান সম্পন্ন হয়েছে। এটি ভোট কেটে নৌকার বাক্সে ভর্তির কারণেই ঘটেছে বলে তিনি জানান।

অভিযোগ পেয়ে কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার আব্দুল্লাহ বিন শফি বেলা ১১টার সময় যুগান্তরকে জানান, তার কেন্দ্রে বেলা ১১টা পর্যন্ত ৪০ শতাংশ ভোট হয়েছে। ব্যালট কেটে নৌকার বাক্স ভরাব অভিযোগ তিনি অস্বীকার করেন।

এদিকে সকাল পৌনে ১০টায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল অ্যান্ড কলেজে কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মী কেন্দ্রের ভেতরেই অবস্থান করছেন।

এই কেন্দ্রে বিএনপির এজেন্ট নূর ইসলাম বলেন, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ভোটারদের ধরে এনে বুথে নিয়ে যাচ্ছে।

অন্যদিকে বেলা পৌনে ১১টার সময় ২৪নং ওয়ার্ডের সইজুদ্দীন জনকল্যাণ সরকারি প্রাথমিক স্কুলকেন্দ্রের সামনে নারী ভোটার আনজু বেগমকে ক্রন্দনরত অবস্থায় পাওয়া যায়। কেন কাঁদছেন জানতে চাইলে ভোটার আনজু (ভোটার নং-১৪১৩) যুগান্তরকে বলেন, তিনি কেন্দ্রে গিয়ে দেখতে পান তার ভোট কেউ আগেই দিয়ে ফেলেছেন।

এই কেন্দ্রে ধানের শীষের পোলিং এজেন্ট শিখা খাতুন বলেন, সইজুদ্দীন নারী কেন্দ্রে ব্যাপক জালভোট হচ্ছে। কিন্তু কেউ বাধা দিচ্ছে না। তারা বাধা দিতে গেলে তাদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে সিরোইল সরকারি স্কুলকেন্দ্র থেকে বের হয়ে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল যুগান্তরকে বলেন, কোথাও তার এজেন্টদের থাকতে দেয়া হচ্ছে না। নির্বাচন কমিশন ও ভ্রাম্যমাণ আদালতে অভিযোগ দিয়েও কোনো প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না। নির্বাচনে কারচুপি হচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

ঘটনাপ্রবাহ : রাজশাহী-বরিশাল-সিলেট সিটি নির্বাচন ২০১৮

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×