একসঙ্গে এত কবর খুঁড়তে হবে কল্পনাও করিনি

  সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি ০১ আগস্ট ২০১৮, ১৯:৫১ | অনলাইন সংস্করণ

৮ কবর সিরাজগঞ্জ
সিরাজগঞ্জে বিদুৎস্পৃষ্টে নিহত ৮ জনের কবর খোঁড়ার দৃশ্য। ছবি: যুগান্তর

চল্লিশ বছর ধরে কবর খুঁড়ে আসছি। একসঙ্গে এত কবর খুঁড়তে হবে তা কোনোদিন কল্পনাও করিনি। গ্রামে এত কবর খোঁড়ার লোকও নেই। আশপাশের এলাকা থেকে ২০-২৫ জন মানুষের সহযোগিতায় কবর খুঁড়তে হয়েছে।

বুধবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নের কাদাই কবরস্থানে পাশাপাশি আটটি কবর খোঁড়ার কাজে সম্পৃক্ত বৃদ্ধ ওমর সেখ (৬৮) অশ্রুসজল চোখে কথাগুলো বলছিলেন।

মুলিবাড়ি গ্রামের খোকন শেখ, বাঐতারার আব্দুল মোমিন ও কাদাইয়ের আনোয়ার হোসেন বলেন, জীবনে অনেক কবর খুঁড়েছি। অনেক অভিজ্ঞতাও আছে আমাদের। কিন্তু একসঙ্গে আটটি কবর খোঁড়ার অভিজ্ঞতা নেই। এবারই প্রথম।

তারা আরও বলেন, বুকে অনেক চাপা কষ্ট নিয়ে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কবরগুলো খুঁড়েছি। এই গ্রামে আমরা ৭-৮ জন কবর খোঁড়ার কাজ করি। আমাদের পক্ষে এত কবর খোঁড়া সম্ভব ছিল না। পার্শ্ববর্তী বাঐতারা, ছাতিয়ানতলী, দিঘলকান্দি মুলিবাড়ী গ্রামের ১৫-২০ জন কবর খোঁড়ার কাজে সহযোগিতা করায় সুষ্ঠুভাবে কবর খোঁড়ার কাজ করতে পেরেছি।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার দুপুরে কাদাই গ্রামের একটি টং ঘর ১০-১২ জন মিলে মাথায় করে পার্শ্ববর্তী খাল পাড় করার সময় পিডিবির ঝুলে পড়া বিদ্যুতের তার টং ঘরের টিনের সঙ্গে লেগে কেটে যায়। এতে টং ঘরটি বিদ্যুতায়িত হয়ে পড়লে টং ঘরসহ ৯ জন পানিতে পড়ে গিয়ে ৮ জন নিহত হন। অপর একজন সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×