বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার ধর্ষণ, কারাগারে পুলিশ সদস্য

 রায়পুরা ( নরসিংদী ) প্রতিনিধি 
১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০১:০১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীর রায়পুরায় তরুণীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে করা মামলায় ইমন (২৮) নামের এক পুলিশ কনস্টেবলকে গ্রেফতারের পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সোমবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে গতকাল রোববার দিবাগত রাত ১টার দিকে ইমনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। এ ঘটনায় সোমবার সকালে ভুক্তভোগী তরুণী (২২) থানায় লিখিত অভিযোগ করেন এবং অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়।

গ্রেফতার ইমন কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রাম থানায় পুলিশ সদস্য হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি রায়পুরা উপজেলার বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর নগর গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ জানায়, রোববার রাতে রায়পুরার একটি এলাকায় ভুক্তভোগীর নিজ বাড়িতে গিয়ে ওই পুলিশ সদস্য শারীরিক সম্পর্কের চেষ্টা করলে ওই তরুণী আপত্তি জানান এবং বিয়ের জন্য চাপ সৃষ্টি করেন। এ সময় তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে এলাকাবাসী তাকে আটক করে থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে আটক করে। সোমবার সকালে ভুক্তভোগী তরুণী ধর্ষণের অভিযোগ এনে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, প্রায় ১৮ মাস পূর্বে  ফেসবুকের মাধ্যমে তাদের পরিচয় হয় এবং এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ভৈরব এলাকার বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে একাধিকার ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে চট্টগ্রামে বেড়ানোর কথা বলে পুনরায় ধর্ষণ করা হয়। রোববার ওই তরুণীর বাসায় এসে ধর্ষণ করতে চাইলে বিয়ের প্রস্তাব দিলে পুলিশ সদস্য অস্বীকার করেন এবং কথা কাটাকাটি হয়। 

রায়পুরা থানার ওসি সাফায়েত হোসেন পলাশ বলেন, ‌রোববার রাত ১টার দিকে ভুক্তভোগী নারীর বাড়ি থেকে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য ইমনকে আটক করে পুলিশ থানায় নিয়ে আসে এবং পরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন