এবার দুই ট্রাকের চাপায় পিষ্ট পরিবহণ শ্রমিক

প্রকাশ : ০৫ আগস্ট ২০১৮, ২০:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

  সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

দুর্ঘটনার পর পরিবহণ শ্রমিক ও শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। ছবি: যুগান্তর

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে দুই ট্রাকের চাপায় প্রাণ গেল আলাউদ্দিন সোহান (২১) নামে এক পরিবহণ শ্রমিকের।

রোববার দুপুর ২টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল ট্রাক স্ট্যান্ডের সামনে এ ঘটনাটি ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোববার দুপুরে একটি ট্রাকে ড্রাইভারের পাশে পুলিশ বসেছিল। এজন্য ওই ট্রাকের হেলপার আলাউদ্দিন সোহান দরজায় দাড়িয়ে ছিল। শিমরাইল মোড় ট্রাক টার্মিনালের সামনে পিছন থেকে আসা আর একটি ট্রাক দ্রুত বেগে ওভারটেক করার সময় অন্য ট্রাকের দরজায় দাড়ানো হেলপার আলাউদ্দিন সোহানকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। দুপুর ২টায় ওই ঘটনার পর থেকে শ্রমিক ও শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে রাখে।

কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, দ্রুত বেগে আসা ট্রাকটির পিছনে একটি পুলিশ ভ্যান ছিল। পুলিশ ভ্যানটি ওই ট্রাককে ধাওয়া করছিল বলে তাদের ধারণা।

ঘটনার পরপর এই ঘটনার প্রতিবাদে পরিবহণ শ্রমিক ও শিক্ষার্থীরা একত্রিত হয়ে সড়ক অবরোধ করে। এসময় কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের বিচার দাবি করে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে শ্রমিক ও শিক্ষার্থীরা। পরিবহণ শ্রমিকের লাশ নিয়ে যেতে চাইলে তারা কয়েক দফা বাধা দেয়।

বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের অভিযোগ কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের ঘুষ বাণিজ্যের কারণে ওই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। তারা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে এ মহাসড়ককে কেন্দ্র করে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশ ও সোনারগাঁ থানা পুলিশ পরিবহন চাঁদাবাজি করে আসছে।

পরে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম শিক্ষার্থী ও শ্রমিকদের সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থী ও শ্রমিকরা অবরোধ প্রত্যাহার করে লাশ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

তবে এ বিষয়ে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশ বলছে ভিন্ন কথা। এ বিষয়ে হাইওয়ে থানা পুলিশের ওসি আব্দুল কাইউম জানান, মদনপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় এক নারী আহত হয়েছিলেন। কিন্তু তাকে ঢাকা মেডিকেলে নেয়ার জন্য কোনো গাড়ি পাওয়া যাচ্ছিল না। একটি লেগুনাকে বুঝিয়ে রাজি করানো হলেও ছাত্র আন্দোলনের কারণে তারা যেতে রাজি হচ্ছিল না। তখন পুলিশে একটি টিম স্কট হিসেবে ওই লেগুনার সঙ্গে সিদ্ধিরগঞ্জে যাওয়ার সময় শিমরাইল মোড়ে সড়ক দুর্ঘটনা দেখতে পেয়ে থানা পুলিশকে অবহিত করে।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক-সার্কেল) মেহেদি ইমরান সিদ্দিকি জানান, নিহত পরিবহন শ্রমিকের নাম আলাউদ্দিন সোহান। তার বাবার নাম জাহাঙ্গীর হোসেন। নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের সাইলোগেইট এলাকায় সে ভাড়া থাকে। তার গ্রামের বাড়ি ফেনী জেলার দাগনভূঁইয়া থানার জগতপুর গ্রামে।

তিনি জানান, দুর্ঘটনার পর পরিবহণ শ্রমিক ও শিক্ষার্থীরা প্রথমে সড়ক অবরোধ করে লাশ আটকিয়ে রেখেছিল। পরে তাদের সঙ্গে কথা বলে সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয়। এখন পরিস্থিতি শান্ত আছে।