যুবলীগ নেতাসহ জেএমবির ৪ জন আটক, টার্গেট বড় ধরনের হামলা

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০১৮, ২০:১৫ | অনলাইন সংস্করণ

  রংপুর ব্যুরো

প্র্রতীকী ছবি

নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জেএমবির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে এক যুবলীগ নেতাসহ ৪ জনকে আটক করেছে র‌্যাব। র‌্যাব-১৩ রংপুর এর একটি বিশেষ দল গত বুধবার রাতে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে থেকে তাদের আটক করে।

আটককৃতদের মধ্যে পাটগ্রাম পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও পোস্ট অফিস এলাকার ব্যবসায়ী আপেল হোসেন (৩১) রয়েছেন।তিনি রসুলগঞ্জ এলাকার লুৎফর রহমানের ছেলে।

অপর ৩ জন হলেন- সর্দারপাড়ার মুজিবুর রহমানের ছেলে মো. জাহিদ হোসেন (১৯), একই এলাকার নজরুল ইসলামের ছেলে মো. শফিকুল ইসলাম শফিক (২৩) ও পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের সোহাগপুর মহল্লার হাফিজার রহমানের ছেলে মোখলেছুর রহমান (৩০)।

এ সময় তাদের কাছ থেকে র‌্যাব ২টি বিদেশি পিস্তল, পিস্তলের ৫ রাউন্ড তাজা গুলি, ২টি ম্যাগাজিন, ২টি দেশি ওয়ান শুটার গান, ২ রাউন্ড ওয়ান শুটার গানের গুলি, ধর্মীয় উসকানিমূলক ও উগ্রবাদী বিপুল পরিমাণ বইপত্র, লিফলেট এবং জঙ্গিবাদের কাজে ব্যবহৃত ৪টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে।

আটককৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে র‌্যাবকে জানায়, তারা দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি ও বড় ধরনের জঙ্গি হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এ জন্য তারা প্রায় ২ বছর ধরে নানা ছদ্মবেশে কাজের আড়ালে আত্মগোপনে থেকে জেএমবির সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছিল। তারা গোপনে বিভিন্ন নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের পরিকল্পনা করছিল।

এছাড়া জঙ্গি সংগঠনে তরুণদের উদ্বুদ্ধকরণ, নতুন সদস্য সংগ্রহ, সংগঠনের জন্য চাঁদা সংগ্রহ এবং সংগৃহীত অর্থ দিয়ে অস্ত্রশস্ত্র সংগ্রহ ইত্যাদি কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকার কথা তারা স্বীকার করেছে। 

আটককৃত জঙ্গিদের তথ্যমতে, এ অঞ্চলসহ বৃহত্তর রংপুর এলাকায় তাদের বিভিন্ন রকমের নাশকতার পরিকল্পনা ছিল। তাদের সংগঠনের সঙ্গে জড়িত আরও অনেক সদস্য আত্মগোপনে জঙ্গি কার্যক্রম চালিয়ে আসছে।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১৩ অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোজাম্মেল হক। তিনি আরও জানান, পালিয়ে আত্মগোপনে থাকা জেএমবি সদস্যদের আটক করতে তারা তৎপরতা চালাচ্ছেন।

তবে যুবলীগ নেতা আপেল হোসেনের বিষয়ে স্থানীয় দলীয় নেতারা কেউ কোনো কথা বলতে রাজি হচ্ছেন না।