ভৈরবে হত্যা মামলার আসামিদের সঙ্গে বাদীর সংঘর্ষ, আহত ২৫

  ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি ০৯ আগস্ট ২০১৮, ২০:৩৪ | অনলাইন সংস্করণ

কিশোরগঞ্জ ম্যাপ

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে হত্যা মামলার আসামিরা জামিনে এসে বাড়িতে গেলে মামলার বাদীর সঙ্গে সংঘর্ষে কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়। গুরুতর আহতদের মধ্যে ৭ জনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়।

এ সময় ১০টি বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয় একটি পক্ষ। এছাড়া শতাধিক খড়ের গাদাতে আগুন দেয়া হয় বলে জানা গেছে।

সংঘর্ষে আহতরা হলেন, আক্কাছ আলী ( ৪৫) , ইয়াকুব (২৮), শহীদ মিয়া (৩০), শাহানা বেগম (৩৫), এলাছ মিয়া ( ৪২), জাহের মিয়া ( ৮০) ও মানিক মিয়া (৭১)। এছাড়া ভৈরব হাসপাতালে যাদেরকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয় তারা হলেন, গুলজান বেগম (৪০), মাছুম (৩৫), সাফিউদ্দিন (৭৫), নাসিম (৩৩), আনোয়ার হোসেন (৩৫), জিলান উদ্দিন (৫০) ও রমজান (৩৫)। অন্য আহতরা স্থানীয় ক্লিনিক থেকে চিকিৎসা নেয়ার খবর পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার সাদেকপুর ইউনিয়নের মেন্দিপুর গ্রামে দুই পক্ষের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ চলাকালে উভয়পক্ষ দেশীয় অস্ত্র দা, বল্লম, লাঠিসহ ইটপাটকেল ব্যবহার করে। খবর পেয়ে ভৈরব থানা পুলিশ ও সহকারী কমিশনার ( ভূমি) এবং ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেন ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

এদিকে হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার মো. আমজাদ হোসেন জানান, ঢাকায় পাঠানো ৭ জনের মধ্যে আহত ইয়াকুবের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

প্রতক্ষদর্শীরা জানান, গত ১৫ জুলাই ভৈরবের সাদেকপুর ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের সিএনজিচালক সিদ্দিক মিয়া (৪২) ভাড়া নিয়ে ঝগড়ায় মেন্দিপুর এলাকায় নিহত হন। এ ঘটনায় তার ভাই রইছউদ্দিন এলাকার চেয়ারম্যান শেফায়েত উল্লাকে প্রধান আসামি করে ৫৬ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। মামলার ৩০ জন আসামি গত সোমবার কিশোরগঞ্জ আদালত থেকে জামিন পেয়ে তারা বৃহস্পতিবার দুপুরে বাদীর বাড়িতে এসেছিল। এর আগে হত্যার পর আসামিরা ২৪ দিন পলাতক ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানান, তারা জামিন পেয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে সবাই একযোগে বাদীর বাড়িতে আসলেই বাদীর লোকজন তাদের বাধা দেয়। এ সময় উভয়পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।

ভৈরব উপজেলার ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেন বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করি।

ভৈরব ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ আক্কাছ আলী জানান, মেন্দিপুর গ্রামে আগুনের ঘটনা ভয়াবহ। ১০ ঘর ও শতাধিক খড়ের গাদা নেভাতে কর্মীরা কাজ করছেন।

ভৈরব থানার ওসি মো. মোখলেছুর রহমান জানান, সাদেকপুর ইউপির ৪টি গ্রামই ঝগড়াটে গ্রাম হিসেবে পরিচিত। এসব গ্রামে দুটি শক্তিশালী গ্রুপ যুগ যুগ ধরে ঝগড়া সংঘর্ষ করছে। গত দুই বছরে এই এলাকায় ৪টি খুনের ঘটনা ঘটেছে। এসব গ্রামবাসীরা এলাকার কাউকে মানে না এবং ভয়ও করে না। পুলিশ ওই ইউনিয়নের গ্রামে গেলে তারা পুলিশের ওপর পর্যন্ত আক্রমণ করে।

ওসি আরও বলেন, হত্যা মামলার আসামিরা আদালত থেকে জামিন পেয়ে বাড়িতে গেলে বাদী তাদের ওপর আক্রমণ করলে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

 

 

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter