অবশেষে বগুড়ার সেই গৃহবধূ হাসপাতালে

  বগুড়া ব্যুরো ১০ আগস্ট ২০১৮, ২২:০৩ | অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার ম্যাপ

বগুড়ার ধুনটে বাঙালি নদীর শহড়াবাড়ি ঘাট থেকে বুধবার দুপুরে নিখোঁজ গৃহবধূ সুমি আকতারকে (২১) হাসপাতালে পাওয়া গেছে।

সে নদীতে ডুবে গেছে বলে তাকে উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস ও তাদের ডুবুরি দল বুধবার দুপুর থেকে বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত নদীতে উদ্ধার তৎপরতা চালায়।

পরে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ওই গৃহবধূ বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগে ভর্তি হন এবং শুক্রবার সকালে রিলিজ নেন।

তবে তাকে কী কারণে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল সে সম্পর্কে রেজিস্ট্রি খাতায় স্পষ্ট করে কিছু লেখা নেই।

ধুনট ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার সিদ্দিকুর রহমান জানান, দুদিন তাদের অনেক হয়রানি হতে হয়েছে। ওই মেয়েকে উদ্ধারের বিষয়ে তাদের কিছু জানানো হয়নি। আত্মীয়স্বজন ফোন বন্ধ রেখেছেন।

বগুড়ার ছিলিমপুর পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আবদুল কুদ্দুস জানান, ওই মেয়েকে স্বামীর নাম ও ঠিকানা ব্যবহার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও কী কারণে তাকে ভর্তি করা হয়েছে তা উল্লেখ নেই। এছাড়া স্বজনরা শুক্রবার সকালেই তাকে নিয়ে গেছে।

স্থানীয়রা জানায়, ধুনট উপজেলার উত্তর শহড়াবাড়ি গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য মৃত হায়দার আলীর মেয়ে সুমি আকতার সরকারি আজিজুল হক কলেজ থেকে ডিগ্রি চূড়ান্ত পরীক্ষা দিয়েছেন।

প্রায় আড়াই বছর আগে ঢাকায় কর্মরত পার্শ্ববর্তী সারিয়াকান্দি উপজেলার দড়িপাড়া গ্রামের গার্মেন্টসকর্মী জনির সঙ্গে বিয়ে হয়। সুমি মাঝে মাঝে শ্বশুরবাড়িতে যেতেন।

ধুনট ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার সিদ্দিকুর রহমান জানান, তারা প্রথমে নদীতে তল্লাশি করেন। পরে রাজশাহী থেকে আসা ৭ সদস্যের ডুবুরি দল বুধবার সন্ধ্যা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এবং বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেন। কিন্তু গৃহবধূ সুমির সন্ধান পাওয়া যায়নি।

তিনি আরও জানান, লোকমুখে জানতে পারেন সুমি উদ্ধার হয়েছে। তবে বিষয়টি তাদের জানানো হয়নি। স্বজনদের ফোন বন্ধ। গত দু’দিন তাদের অনেক হয়রানি হতে হয়। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। থানাতেও অভিযোগ করা হবে।

তার চাচা তোতা মিয়া জানান, বুধবার দুপুর ১টার দিকে সুমি বাড়ির পাশে যমুনা নদীতে গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। নদীর তীরে মাইকিং ও নৌকা নিয়ে সিরাজগঞ্জের কাজিপুর পর্যন্ত খোঁজ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, তার ভাতিজি নদীতে ডুবে যাওয়ার পর সিরাজগঞ্জে ভেসে উঠলে জনৈক ব্যক্তি তাকে উদ্ধার করে বগুড়ার শেরপুরে রেখে গেছেন। তার ফোন পেয়েই তারা সুমিকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। এরপর থেকে তোতা মিয়া ও পরিবারের অন্যরা ফোন বন্ধ রেখেছেন। বাড়িতেও কেউ নেই।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter