ডোমারে ভিজিএফের চাল কালোবাজারিতে, ৬ গোডাউন সিলগালা

  ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি ১৭ আগস্ট ২০১৮, ১৮:১৬ | অনলাইন সংস্করণ

ডোমারে ভিজিএফের চাল কালোবাজারিতে, ৬ গোডাউন সিলগালা

নীলফামারীর ডোমারে ভিজিএফের চাল কালোবাজারিতে বিক্রির অভিযোগে ৯১ বস্তা চাল জব্দ করা হয়েছে। এ সময় ছয়টি গোডাউন সিলাগালা করা হয়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত উপজেলার জোড়াবাড়ি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. উম্মে ফাতিমা ও পুলিশ যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে এসব চাল জব্দ করে।

অভিযোগে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার জোড়াবাড়ি ইউনিয়নে কোনো নিয়ম না মেনে ভিজিএফ চাল বিতরণ করা হয়। একজন ব্যক্তি একটি কার্ডের চাল উত্তোলনের নিয়ম থাকলেও একজন ব্যক্তিকে পাঁচটি কার্ডের চাল দেয়া হয়।

চাল উত্তোলনকারীদের কাছে মাস্টাররোল খাতায় কারো টিপসইও নেয়া হয় নাই। এ সুযোগে ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যানসহ কালোবাজারিরা বিভিন্ন জায়গায় চাল মজুদ করে রাখে বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. উম্মে ফাতিমা ও পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে গ্রাম পুলিশ আফজাল হোসেনের বাড়ির গোডাউনে ৫০ কেজি ওজনের ৪৬টি বস্তা ও ৩০ কেজি ওজনের ১৯টি বস্তা মোট ৬৫ বস্তা, ইউনিয়ন পরিষদসংলগ্ন তরিকুল ইসলাম বাবলুর গোডাউনে ৫০ কেজি ওজনের আটটি, ৩০ কেজি ওজনের চারটিসহ মোট ১২টি বস্তা ও ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়িসংলগ্ন আলতাফ হোসেনের গোডাউনে (ভাড়া নিয়ে রাখে হলহলিয়ার ৭নং ওয়ার্ডের মৃত নাসির উদ্দিনের ছেলে শফিকুল ইসলাম ) ৫০ কেজি ওজনের আট বস্তা ও ৩০ কেজি ওজনের ছয় বস্তা চাল জব্দ করে ওই তিনটি গোডাউনে ও চাল বিতরণের জন্য মজুদ করে রাখা ইউনিয়ন পরিষদের তিনটি গোডাউনে সিলগালা করা হয়।

অভিযান চলাকালীন সময়ে বিভিন্ন স্থানে মজুদ করে রাখা ভিজিএফ চাল সরিয়ে ফেলারও অভিযোগ উঠেছে।

এ ব্যাপারে জোড়াবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হাসান জানান, চাল বিতরণে এখনো বাকি রয়েছে। সঠিক কত বস্তা চাল আছে তা বলা সম্ভব নয়। ইউনিয়নের তিনটি গোডাউনেই ইউএনও সিলগালা করেছেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. উম্মে ফাতিমা চাল আটক ও গোডাউন সিলগালা করার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ভিজিএফ কমিটি ও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দুস্থ ও অসহায় মানুষের জন্য উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে প্রতি কার্ডধারীকে ২০ কেজি করে ৫৩ হাজার সাত'শ একজন কার্ডধারীকে মোট ১,০৭৪.০২১ টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। গত মঙ্গলবার থেকে বিভিন্ন ইউনিয়নে এই চাল বিতরণ চলছে।

 

 

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter