কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে হালকা যানবাহন পারাপার চলছে, লঞ্চে উপচেপড়া ভিড়

  শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি ১৭ আগস্ট ২০১৮, ২১:২০ | অনলাইন সংস্করণ

কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে হালকা যানবাহন পারাপার চলছে, লঞ্চে উপচেপড়া ভিড়

কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে কম লোড নিয়ে কে-টাইপসহ ১১টি ছোট ফেরি দিয়ে হালকা যানবাহন পারাপার করানো হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়। ফলে লঞ্চ ও স্পিডবোটে পরিবহনের যাত্রীদের পারাপার হতে দেখা গেছে। এছাড়াও ঈদে দক্ষিণাঞ্চলের ঘরে ফেরা যাত্রীদের চাপ কিছুটা বেড়েছে।

শুক্রবার কাঁঠালবাড়ি ঘাট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, রাজধানীর সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের নৌ-যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুট। গেল কয়েক সপ্তাহ নাব্য সংকটের কারণে এই রুটের ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। ফেরি পারাপারে বিঘ্ন ঘটায় যাত্রীবাহী পরিবহনগুলোর যাত্রীরা নৌপথের লঞ্চ ও স্পিডবোটযোগে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে। ফেরিতে যানবাহন কম লোড করতে পারার কারণে কয়েকশ পণ্যবাহী ট্রাক এখনো ঘাটে আটকে আছে।

কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাট কর্তৃপক্ষ ও আটকেপড়া ট্রাকের চালকরা জানান, ঈদের যাত্রীদের নির্বিঘ্নে পারাপার করতে নদীর নাব্য ফিরিয়ে আনতে ৯টি ড্রেজার দিয়ে দিনরাত খনন কাজ চলছে। এদিকে ঈদে দক্ষিণাঞ্চলের ঘরে ফেরা যাত্রী চাপ বেড়েছে। প্রায় দেড় মাস ধরে ড্রেজিং করার পর স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে বিকল্প চ্যানেল। বিআইডব্লিউটিএর কাঁঠালবাড়ি ঘাটের সহকারী ম্যানেজার আ. মমিন মিয়া জানান, পদ্মায় নাব্য সংকটের কারণে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। কে-টাইপের ১১টি ফেরি দিয়ে ছোট এবং হালকা যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। এছাড়া ভারী যানবাহনগুলোকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুট ব্যবহার করতে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, গত প্রায় ১২-১৩ দিন আগে লৌহজং চ্যানেল মুখে নাব্য সংকট দেখা দেয়। তখন রোরো ও ডাম্প ফেরিগুলো শিমুলিয়া ও কাঠালবাড়ি ফেরিঘাটে নোঙর করে রাখ হয়। পরবর্তীতে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া পরিবহনের চাপ বেড়ে যায়। তখন ৩টি ফেরি শাহ পরান, এনায়েত পুরী ও শাহ মখদুম ওই রুটে অর্থাৎ পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া পাঠানো হয়। তাই ফেরিগুলো এখনো সেখান থেকে আনা হয় নাই।

আ. মমিন মিয়া বলেন, শিমুলিয়া ঘাটে দীর্ঘদিন নোঙর করে থাকা বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর ফেরিটি শুক্রবার দুপুরে শিমুলিয়া থেকে পরিবহন নিয়ে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে এসে বিকালে পৌঁছেছে। যদি কাঁঠালবাড়ি থেকে নির্বিঘ্নে শিমুলিয়া প্রান্তে যেতে পারে তাহলে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া প্রান্তে যেই ফেরিগুলো পাঠানো হয়েছিল সেই তিনটি ফেরিকে রাতেই এই রুটে আনা হবে।

তিনি বলেন, এছাড়া বিকালে একটি ডাম্ব ফেরি পরীক্ষামূলকভাবে শিমুলিয়া থেকে কাঁঠালবাড়ি ঘাটের উদ্দেশে রওনা দেয়। ফেরি ভাষা শহিদ বরকত চলে যাবে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে। কিন্ত শুক্রবার পর্যন্ত কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া রুট স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসেনি। তবে দুই-একদিনের মধ্যে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হলে ওই ফেরিগুলো নিয়ে আসা বলে তিনি জানান।

বিআইডব্লিউটিএর ট্রাফিক পরিদর্শক (টিআই) আক্তার হোসেন জানান, নাব্য সংকটের ফেরি কম চলায় লঞ্চে পরিবহনসহ সাধারণ যাত্রীদের চাপ কিছুটা বেড়েছে। এছাড়াও ঈদে ঘরে ফেরা যাত্রীদের চাপও বেড়েছে।

 

 

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter