নরসিংদীতে ফেসবুকে ভিডিও ভাইরাল, স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রকাশ : ১৭ আগস্ট ২০১৮, ২২:০৩ | অনলাইন সংস্করণ

  নরসিংদী প্রতিনিধি

প্রতীকী ছবি

নরসিংদীতে ফেসবুকে অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল ও ব্ল্যাকমেইলের ঘটনায় গলায় ফাঁস দিয়ে এক স্কুলছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।  এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত স্কুলছাত্রী রিংকু সূত্রধর (১৪) সদর উপজেলার হাজীপুর গ্রামের চাঁন মোহন সূত্রধরের মেয়ে। সে সদর উপজেলার আলীজান জেএম একাডেমির দশম শ্রেণির ছাত্রী।  


বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার হাজীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রাতেই তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এলাকাবাসী ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, নিহত স্কুলছাত্রী রিংকু আলীজান জেএম একাডেমির ছাত্রী ছিল। গত তিন আগে অভি নামে এক যুবক ও তার ২০-২৫ জন বন্ধুবান্ধব মিলে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নিহত স্কুলছাত্রীর বাড়িতে হামলা করে। আর তার পরিবারের লোকজনকেও হুমকি প্রদান করে তার সঙ্গে বিয়ে দেয়ার জন্য। আর তা যদি তারা না করে তাহলে সে ফেসবুকে ও ইন্টারনেটে তার অশ্লীল ভিডিও ও ছবি ভাইরাল করবে।

পরবর্তীতে তার পরিবারের লোকজন অনেক আকুতি করলে সে আর কিছু করবে না বলে চলে যায়। অভি তার বন্ধু ইব্রাহীমের কাছে রিংকুর অশ্লীল ছবি ও ভিডিও মোবাইলে স্থানান্তর করে।  পরবর্তীতে ইব্রহীম রিংকুকে অশ্লীল কাজে উদ্বুদ্ধ করতে চাইলে রিংকু অস্বীকৃতি জানায়। এরই প্রেক্ষিতে অভি ও তার বন্ধু ইব্রাহীমের ইন্টারনেটে কিছু অশ্লীল ছবি ও ভিডিও ভাইরাল করে।  আর সেই ছবি রিংকু ও তার পরিবারের লোকজন দেখতে পায়।  এর কিছুক্ষণ পরেই রাত সাড়ে ৮টার দিকে রিংকু গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।

নিহতের পিতা চাঁন মোহন সূত্রধর বলেন, অভি আমার বাড়িতে এসে হুমকি প্রদান করে আমার মেয়ের অশ্লীল ভিডিও এবং ছবি ভাইরাল করবে। তাকে অনেক বুঝিয়ে বললে সে আমাকে কথা দেয় সে এমন কোনো কাজ করবে না। কিন্তু পরবর্তীতে সে আমার মেয়ের অশ্লীল ভিডিও আর ছবি ইন্টারনেটে ভাইরাল করে।  যার জন্য আজকে আমার মেয়ে আত্মহত্যা করে।  আমার মেয়ে অভি আর তার বন্ধু ইব্রাহীমের জন্য আত্মহত্যা করেছে। আমি তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।


মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নরসিংদী সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক বদিউজ্জামান বলেন, নিহতের লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। নিহতের পরিবার থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।