সালিশে ছাত্রলীগ নেতাকে পেটালেন আ’লীগ নেতা!

  যুগান্তর রিপোর্ট, নাটোর ২৮ আগস্ট ২০১৮, ০০:৩৬ | অনলাইন সংস্করণ

নাটোর

নাটোরে সালিশ চলাকালে আওয়ামী লীগ নেতা ছাত্রলীগের এক নেতাকে প্রকাশ্যে পিটিয়েছেন। সদর উপজেলার ছাতনীর বারোঘরিয়ায় এক বাড়ি থেকে মাদকবিরোধী অভিযানের নামে টাকা লুটের ঘটনায় এ সালিশ ডাকা হয়।

সালিশে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য ও যুবলীগ নেতাকে দণ্ড না দিয়ে ক্ষমা চাওয়ার মধ্য দিয়ে অভিযোগ নিষ্পত্তি করেছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান।

শনিবার রাতে সদর উপজেলার ছাতনী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এমরান আলী সদর থানার এএসআই আবুল কালাম আজাদকে সঙ্গে নিয়ে ব্যবসায়ী আইয়ুব মণ্ডলের বাড়ি তছনছ করে টাকা লুট করেন বলে অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তাকে থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে নেয়া হয়েছে। সোমবার ছাতনীর বারোঘরিয়া স্কুল মাঠে টাকা লুটের ঘটনায় সালিশ বসে।

ছাতনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি তোফাজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দুলাল সরকার, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক পলাশ কুমার মণ্ডলসহ প্রায় এক হাজার লোক উপস্থিত ছিলেন।

সালিশে বিশৃঙ্খলা শুরু হলে পলাশ কুমার মণ্ডল দাঁড়িয়ে লোকজনকে শান্ত করার চেষ্টা করেন। এতে সালিশের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেনসহ তার সমর্থকরা তাকে পিটিয়ে জখম করেন। পরে পলাশ ও তার সমর্থকরা সালিশ ছেড়ে চলে যান। তবে তারপরেও সালিশ চলেছে। সালিশে ইউপি সদস্য এমরান হোসেনের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হয়। এজন্য সভায় সিদ্ধান্ত হয় তাকে সবার কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। সিদ্ধান্ত মোতাবেক তিনি আইয়ুব আলীসহ সবার কাছে ক্ষমা চান। ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ করলে তাকে ৫ হাজার টাকার মুচলেকা সম্পাদন করতে হবে বলেও সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

পলাশ কুমার জানান, সালিশের সভাপতিসহ আওয়ামী লীগের নেতারা অভিযুক্ত ইউপি সদস্যের পক্ষ নিয়ে বিচারের নামে প্রহসন করেছেন।

তবে তোফাজ্জল হোসেন পক্ষপাতের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি শুধু পরিস্থিতি শান্ত করার জন্যই পলাশকে একটা থাপ্পড় মেরেছি। সে সালিশ পণ্ড করার চেষ্টা করছিল।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter