গণমাধ্যম সুসম্পর্ক সৃষ্টির অন্যতম বাহন: ইকবাল সোবহান

প্রকাশ : ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৯:৫৫ | অনলাইন সংস্করণ

  মহিউদ্দিন মিশু, আখাউড়া থেকে

বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নে গণমাধ্যমের ভূমিকা অপরিহার্য বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী।

এছাড়া পারস্পরিক বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে গণমাধ্যমের ভূমিকাও গুরুত্বপূর্ণ। সাংবাদিকদের ওপর নির্যাতন, হত্যার বিচার ও গণমাধ্যমকে নীতিমালার আওতায় আনা হবে বলেও জানান তথ্য উপদেষ্টা।

শনিবার দুপুরে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের আগরতলায় যাওয়ার আগে ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট নোম্যান্সল্যান্ডে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা জানান।

এ সময় তথ্য উপদেষ্টা বলেন, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলা প্রেসক্লাব সাংবাদিকদের নিমন্ত্রণে শনিবার দুপুরে ৫ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল ত্রিপুরায় পৌঁছায়।

ত্রিপুরায় যাওয়ার আগে তিনি সাংবাদিকদের জানান, ওই আলোচনায় ত্রিপুরার নবনির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমারও উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তথ্য উপদেষ্টা বলেন, সাংবাদিকতায় যারা মিথ্যাচার করেন ও সত্যকে যারা বিকৃত করেন তারা বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে শান্ত পরিবেশকে বিনষ্ট করছেন।

সাংবাদিকদের অভয় দিয়ে তথ্য উপদেষ্টা বলেন, গণমাধ্যমে তথ্য বিকৃতকারী, উসকানিদাতা, ভুয়া সংবাদ উপস্থাপনকারী ও চক্রান্তকারীরাই আজ সাংবাদিকদের প্রশ্নবিদ্ধ করছেন। এসব ষড়যন্ত্রকারীর হাত থেকে গণমাধ্যমের পবিত্রতা রক্ষা করতে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।  

ইকবাল সোবহান চৌধুরী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী গণমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণ করতে চান না। গণমাধ্যমের বিকাশ চান। সরকার সাংবাদিকদের প্রতি সংবেদনশীল। তাই সাংবাদিকদের জন্য কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করেছেন।

ইকবাল সোবহান চৌধুরী সাংবাদিকদের মর্যাদা রক্ষায় সব সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান।

ত্রিপুরার আগরতলা প্রেসক্লাবের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী শনিবার দুপুর সাড়ে সাড়ে ১২টার দিকে আখাউড়া স্থলবন্দর নোম্যান্সল্যান্ডে পৌঁছলে ত্রিপুরায় নিযুক্ত সহকারী হাইকমিশন অফিসের ফার্স্ট সেক্রেটারি মো. জাকির হোসেনসহ প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত  জানানো হয়।

এ সময় অন্যদের মধ্যে তার সফরসঙ্গী ছিলেন- বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিয়ার রহমান, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মহাসচিব শাবান মাহমুদ, রাজীব ঘোষ ও চন্দন ঘোষ।

এছাড়া আখাউড়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুজ্জামান, আখাউড়া উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মহিউদ্দিন মিশু, সরাইল উপজেলা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি নূরুল হুদাসহ স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।