আশুলিয়ায় বংশী নদীতে ডুবে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু

  আশুলিয়া প্রতিনিধি ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২০:১৮ | অনলাইন সংস্করণ

আশলিয়া বংশী নদীতে নিখোঁজ শিক্ষার্থীদের উদ্ধারে স্থানীয় জেলেরা

আশুলিয়ায় বন্ধুদের সঙ্গে বংশী নদীতে গোসল করতে নেমে প্রবল স্রোতে তলিয়ে গিয়ে সোহাগ খন্দকার (১২) ও মাসুদ (১৩) হোসেন নামে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে।

রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় একজনের ও ২টায় অপর জনের লাশ উদ্ধার করেন স্থানীয় জেলে ও ডিইপিজেড ফায়ার সার্ভিস ডুবুরিরা।

নিহত সোহাগ আশুলিয়ার কাইছাবাড়ির এলাকায় সিরাজুল খন্দকারের ছেলে। সে জে এল মডেল স্কুলের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। অপর নিহত শিক্ষার্থী মাসুদ কাইছাবাড়ি এলাকায় ইকবাল হোসেনের ছেলে। সে কাইছাবাড়ি আইডিয়াল মডেল স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ছিল।

আশুলিয়ার ডগরতলী এলাকার বংশী নদীতে গোসল করতে নামে ৮ শিক্ষার্থী। সেখানে নদীর স্রোতে তলিয়ে যায় সোহাগ ও মাসুদ। অপর ৬ শিক্ষার্থী এ বিষয়টি স্থানীয়দের জানায়। পরে স্থানীয় জেলেরা প্রথমে নদীতে জাল ফেলে তাদের খুঁজতে থাকেন। তারা সোহাগের লাশ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে।

এরপর ডিইপিজেডের দমকল বাহিনীর ডুবুরিরা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেন। পরে দুপুর ২টার দিকে নিখোঁজ মাসুদের লাশ উদ্ধার করেন ডুবুরিরা।

প্রত্যক্ষদর্শী জিল্লুর হোসেন জানান, রোববার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ৮ জন বিভিন্ন বয়সের শিশু-কিশোর বংশী নদীর শাখা ডগরতলী খালে গোসল করতে নামে। এ সময় দুইজন স্রোতের টানে গভীর পানিতে তলিয়ে যায়। বাকি ৬ জন ডাঙ্গায় উঠতে পারলেও দুজন নিখোঁজ হয়।

ডিইপিজেড ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা আবদুল হামিদ জানান, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধারকাজ চালায়। স্থানীয় জেলেরা একজনের লাশ উদ্ধার করে। পরে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল অপর একজনের লাশ উদ্ধার করেন।

 

 

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter