ধামরাইয়ে হাতুড়িপেটায় পাগল হয়ে রাজমিস্ত্রির আত্মহত্যা

প্রকাশ : ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:৩৮ | অনলাইন সংস্করণ

  ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি

ঢাকার ধামরাইয়ে ঝগড়া বিবাদের জের ধরে মাথায় হাতুড়িপেটায় পাগল হয়ে সোমবার দুপুরে এক রাজমিস্ত্রি ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

সোমবার দুপুরে ওই রাজমিস্ত্রির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে ধামরাই থানার কুল্লা ইউনিয়নের বড় কুশিয়ারা গ্রামে। এ ব্যাপারে ধামরাই থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, ২২ আগস্ট ১০টার দিকে বড় কুশিয়ারা গ্রামের নেপাল মাল নামে এক রাজমিস্ত্রিকে ঝগড়া বিবাদের একপর্যায়ে প্রতিবেশী লক্ষণ মাল হাতুড়ি দিয়ে মাথার পেছনে এলোপাতাড়ি আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে। তাকে দ্রুত ধামরাই সরকারি আবাসিক হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হলেও তিনি মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন। তাকে বাড়ি নিয়ে আসার পর তিনি উন্মাদের মতো আচরণ করতে থাকেন। পরে পরিবারের লোকজন তাকে রশি দিয়ে বেঁধে ঘরের ভেতর আটকে রাখে।

সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে ঘরের আড়ার সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন নেপাল মাল। খবর পেয়ে ধামরাই থানার এসআই মো. আলামিন শেখ সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই রাজমিস্ত্রির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকার সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছেন।

নিহত নেপাল মালের কাকা লালচাঁন মাল বলেন, নেপাল মালকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে পাগল বানানোর ঘটনায় গ্রাম্যসালিশি বৈঠকে নগদ ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করানো হয়। মো. খোঁয়াজউদ্দিনের বাড়ির সামনে মাঠে খোঁয়াজউদ্দিনের সভাপতিত্বে এ সালিশি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

নেপাল তার মাথার যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে এসআই মো. আলামিন শেখ বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।